ঢাকা, সোমবার, ০১ জুন ২০২০, ১৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ০৮ শাওয়াল ১৪৪১ হিজরী

শান্তি ও সমৃদ্ধির পথ ইসলাম

আজকে রাজত্ব কার

উবায়দুর রহমান খান নদভী | প্রকাশের সময় : ২৯ মার্চ, ২০২০, ১২:০১ এএম

হাশরের ময়দানের অবস্থা বর্ণনা করতে গিয়ে কোরআন ও হাদিসে যেসব কথা এসেছে, তার মধ্যে এটিও একটি। সব প্রাণী মৃত্যুবরণ করার পর আল্লাহ তায়ালা মালাকুল মাওত হযরত আজরাইল (আ.)-কেও মৃত্যুবরণ করতে বলবেন। আজরাইল নিজেই নিজের প্রাণ হরণ করবেন।

তখন আল্লাহ ছাড়া আর কেউ থাকবে না। সর্বপ্রথম সামান্য যাদেরকে পুনর্জীবন দেয়া হবে, তাদের মধ্যে আমাদের মহানবী (সা.) প্রধান। আল্লাহ তখন ফেরেশতাদের বলবেন, সৃষ্টিজগতে কেউ জীবিত আছে কি? কোনো জওয়াব আসবে না। বলবেন, কোথায় দুনিয়ার রাজা বাদশাহ সম্রাটরা? কোথায় প্রাসাদ ও অট্টালিকার অধিবাসীরা? নিরাপত্তা বেষ্টনীতে অবস্থানকারীরা?

প্রাণ ফিরে পাওয়া নৈকট্যশীল ফেরেশতারা জবাব দিবেন, কেউ নেই। সবকিছু সুনসান। নীরব নিস্তব্ধ। আল্লাহ বলবেন, ‘লিমানিল মুলকুল ইয়াওম’। অর্থাৎ, আজকের রাজত্ব কার? জবাব দেয়ার কেউ থাকবে না। আল্লাহই বলবেন, পরম প্রতাপান্বিত একমাত্র আল্লাহর।

এরপর নবী করিম (সা.)-এর মাধ্যমে হাশরের মাঠের অবস্থান, হামদের পতাকা হাতে নবী করিম (সা.)-এর আগমন, আল্লাহর অভ‚তপূর্ব প্রশংসা, সেজদা, সুপারিশ, মাকামে মাহমুদ স্থাপন, হাওজে কাউসার ইত্যাদি কার্যক্রম শুরু হবে।

আজকের বিশ্বও আকস্মিকভাবে মিনি কেয়ামতের দৃশ্য দেখছে। হাশরের সাথে এর কোনো তুলনা চলে না। তবে, সামান্য নমুনা দেখা যাচ্ছে। দুনিয়ার সব ব্যস্ত ও উন্নত নগরী লকডাউন। মানুষ স্বেচ্ছাবন্দি ও ভীত সন্ত্রস্ত। একটি মারাত্মক ভাইরাস, যার ছোঁয়া কার্যকর হওয়া মাত্রই মানুষটি মৃত্যুর কাছাকাছি চলে যায়। ১৪ দিনের মধ্যে আক্রমণের চিহ্ন দেখা দেয়। ভুলে বা ইচ্ছায় যেই তার ছোঁয়া পায়, প্রায় সময়ই সে আক্রান্ত হয়ে যায়। কত নিষ্ঠুর রোগ।

মানুষ মৃত্যুর সময়ও আপনজনদের কাছে দেখতে চায় না। ভাবে, আমি পৃথিবী ছেড়ে চলে যাই। আমার আপনজনেরা বেঁচে থাকুক। এজন্য লাশ সৎকারে নরমাল মানুষ যেতে সাহস পায় না। পোড়ানো বা মাটি চাপা দেয়ার কাজটি সংক্রমণরোধক পোষাক পরা স্বেচ্ছাকর্মীরা করছে। শুধু তাই না, মানুষ আপনজন আক্রান্ত হলে তাকে ছেড়ে পালাচ্ছে।

বাংলাদেশে একজন প্রবাসীকে বিপদমুক্ত সনদ দিয়ে ১৪ দিন সতর্ক ও বিচ্ছিন্ন থাকার পরামর্শ দিয়ে বাড়ি পাঠালে লোকটি বাড়ি গিয়ে দেখে তার স্ত্রী বাপের বাড়ি চলে গেছে। প্রাণের ভয়ে প্রবাসী স্বামীকেও সে স্বাগত জানায়নি। জীবনের মায়া বড় মায়া, একথাটি পবিত্র কোরআনে আল্লাহ বলে দিয়েছেন।

হাশরের দিনটি এমন, যেদিন মানুষ তার ভাই, মা, স্ত্রী, সন্তান, সবাইকে দেখামাত্র ছুটে পালাবে। সেদিন প্রত্যেকে নিজের অবস্থা নিয়ে এতই ব্যস্ত ও উদ্বিগ্ন থাকবে যে, আর কারও দিকে নজর দেয়ার সুযোগ থাকবে না। (সূরা আবাসা : আয়াত ৩৪-৩৭)।

 

 

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (22)
Asif Salauddin ২৯ মার্চ, ২০২০, ১২:৫৮ এএম says : 0
সর্বময় ক্ষমতার মালিক মহান আল্লাহ রাব্বুল আল আমিন ছাড়া কার।যিনি সব কিছুর নিয়ন্ত্রক কারী।
Total Reply(0)
নিরব কান্না ২৯ মার্চ, ২০২০, ১২:৫৯ এএম says : 0
যিনি সৃষ্টির কর্তা তার,,,
Total Reply(0)
Gazi Anwar ২৯ মার্চ, ২০২০, ১২:৫৯ এএম says : 0
আল কোরআন,সূরা আল ইমরান [আয়াত-১৮৯] وَلِلَّهِ مُلكُ السَّماواتِ وَالأَرضِ وَاللَّهُ عَلى كُلِّ شَيءٍ قَديرٌ আর আল্লাহর জন্যই আসমান ও যমীনের রাজত্ব। আর আল্লাহ সব কিছুর উপর ক্ষমতাবান।
Total Reply(0)
Abdul Aziz ২৯ মার্চ, ২০২০, ১২:৫৯ এএম says : 0
সর্ব শক্তিমান মহান আল্লাহর রাজত্ব।
Total Reply(0)
Omar Faruk Bhuiyan ২৯ মার্চ, ২০২০, ১২:৫৯ এএম says : 0
শুধু আজকে নয় সারাজীবন রাজত্ব একমাত্র আমার আল্লাহর
Total Reply(0)
M A Kalam Reza ২৯ মার্চ, ২০২০, ১২:৫৯ এএম says : 0
যিনি উভয় জাহান সৃষ্টি করেছেন রাব্বুল আলামীন তারই রাজত্ব....
Total Reply(0)
Naiem Nur Nobi ২৯ মার্চ, ২০২০, ১:০০ এএম says : 0
আল্লাহর রাজত্ব কি শুধু আজকের নাকি এমন কথা বলাও ইমানের দূর্বলতা, চিরকালোই রাজত্ব আল্লাহর।
Total Reply(1)
এক পথিক ২৯ মার্চ, ২০২০, ১০:২০ এএম says : 0
মহান আল্লাহ মনের খবর জানেন; তবে লেখনী থেকে প্রতীয়মান হয় যে, প্রশ্নটি মূলতঃ তাদের প্রতি যারা আল্লার কর্তৃত্বকে অস্বীকার করে ।
মো: হুমায়ুন কবির ২৯ মার্চ, ২০২০, ১:০০ এএম says : 0
আল্লাহ্ পরম করুনাময়, মহা সত্তার মালিক। তার হাতেই আমাদের জীবন ও মরন।
Total Reply(0)
Jahad Rahman ২৯ মার্চ, ২০২০, ১:০০ এএম says : 0
একমাত্র পরাক্রমশালী আল্লাহ্
Total Reply(0)
মো: হুমায়ুন কবির ২৯ মার্চ, ২০২০, ১:০০ এএম says : 0
আল্লাহ্ পরম করুনাময়, মহা সত্তার মালিক। তার হাতেই আমাদের জীবন ও মরন।
Total Reply(0)
MD Tareque Molla ২৯ মার্চ, ২০২০, ১:০০ এএম says : 0
যেখানে বাংলাদেশর অধিকাংশ মিডিয়াই ইসলাম বিদ্বেষী, সেখানে ধন্যবাদ Daily Inquilab - দৈনিক ইনকিলাব কে কুরআনের এত সুন্দর একটা বিষয়কে তুলে ধরার জন্য
Total Reply(0)
Mohammad Roni ২৯ মার্চ, ২০২০, ১:০০ এএম says : 0
আল্লাহ রাজত্ব তোমারই ছিলো তোমারই আছে এবং তোমারই থাকবে,,,
Total Reply(0)
Md Rokib ২৯ মার্চ, ২০২০, ১:০১ এএম says : 0
সেই মহান আল্লাহ পাক এর যিনি সব ক্ষমতার মালিক.
Total Reply(0)
Nor Alom ২৯ মার্চ, ২০২০, ১:৩০ এএম says : 0
আল্লাহ আমাদের কে ক্ষমা করে দিন!
Total Reply(0)
Nor Alom ২৯ মার্চ, ২০২০, ১:৩১ এএম says : 0
আল্লাহ আমাদের কে ক্ষমা করে দিন!
Total Reply(0)
Nor Alom ২৯ মার্চ, ২০২০, ১:৩১ এএম says : 0
আল্লাহ আমাদের কে ক্ষমা করে দিন!
Total Reply(0)
Lata Nahar ২৯ মার্চ, ২০২০, ৭:২৭ এএম says : 0
হে আমার আল্লাহ্, আমাদেরকে মাফ করে দাও।
Total Reply(0)
এই বাণী থেকে সকলের শিক্ষা নেওয়া উচিত ২৯ মার্চ, ২০২০, ৭:৩৯ এএম says : 0
এ বাণী থেকে সকলের শিক্ষা নেওয়া উচিত
Total Reply(0)
A.B.M. Ruhul Amin Akanda ২৯ মার্চ, ২০২০, ৯:৪৪ এএম says : 0
সর্ব শক্তিমান মহান আল্লাহর রাজত্ব।
Total Reply(0)
taijul Islam ২৯ মার্চ, ২০২০, ৩:২৩ পিএম says : 0
সর্বময় ক্ষমতার মালিক মহান আল্লাহ রাব্বুল আল আমিন ছাড়া কার।যিনি সব কিছুর নিয়ন্ত্রক কারী।ALLHUAKBAR
Total Reply(0)
Imamul Muttakin ৩১ মার্চ, ২০২০, ৭:২৬ এএম says : 0
Allah is almighty and ever Kingdom
Total Reply(0)
মোহাম্মদ দাউদ ২ এপ্রিল, ২০২০, ৯:৫৫ এএম says : 0
রাজত্ব একমাত্র আল্লাহ।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন