বৃহস্পতিবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২২, ১৩ মাঘ ১৪২৮, ২৩ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

সিয়াম সাধনা কল্যাণে ভরপুর

এ. কে. এম. ফজলুর রহমান মুনশী | প্রকাশের সময় : ৮ মে, ২০২০, ১২:০৪ এএম

রূপবৈচিত্রে পরিপূর্ণ এই সাধের পৃথিবী সময়ের আবর্তে আবর্তিত হচ্ছে এবং প্রতিনিয়তই নতুন নতুন স্বাদ আহলাদের উপকরণাদি এতে বসবাসকারী জীবকুলকে সরবরাহ করছে। কিন্তু এর ধারাবাহিকতা বজায় রাখার জন্য আল্লাহপাক এমন কিছু প্রাকৃতিক নিয়ম-নীতি নির্ধারণ করে দিয়েছেন যার মাঝে কোনো দিন অনিয়ম হয় না। তিনি বারো মাসে এক বছর নির্দিষ্ট করে দিয়েছেন এর মাঝে কোনো রকম হেরফের হয় না। এই বারোটি মাসের মধ্যে একটি মাস সিয়াম সাধনাকে মুমিন-মুসলমানের জন্য ফরজ করে দিয়েছেন, যাতে করে তারা নিজেদের জীবনকে সুন্দর, পরিচ্ছন্ন ও নিষ্কলুষ করে গড়ে তুলতে পারে। তাই পরহিতৈষণা, কৃচ্ছসাধনা, ত্যাগ ও সংযমের মহিমার দ্বারা তারা যেন নিজেদের জীবন চলার পথকে মনোহর ও পরিশোভিত করে তুলতে পারে এবং ইহকালীন জীবন ও পরকালীন জীবনে মুক্তি, নিষ্কৃতি ও সফলতা লাভে কৃতার্থ হতে পারে তজ্জন্যই করা হয়েছে সিয়াম সাধনার এই মহতী আয়োজন।

মুসলিম বিশ্বের সর্বত্রই মাহে রমজানে শুরু হয় সিয়াম সাধনা। দীর্ঘ এক মাসব্যপী সিয়াম সাধনার কঠোর পরিশ্রম ও প্রশিক্ষণ শুরু হয় মহাসমারোহে। যাতে করে মুমিন-মুসলমানগণ তাকওয়া ও পরহেজগারি অর্জনের মাধ্যমে এর সামগ্রিক সুফল ব্যক্তি জীবন হতে শুরু করে সমাজ ও রাষ্ট্রীয় জীবনের সর্বত্র ছড়িয়ে দিতে পারে। এর দ্বারা বিশ্বের সর্বত্র সুগঠিত হয় মানবতার অমোঘ শান্তি ও কল্যাণ। সিয়াম সাধনার মাধ্যমে মানুষের অন্তরের রিপুগুলো অবদমিত হয়ে যায়, তাকওয়ার তীব্র দহনে তা জ্বলে-পুড়ে ছারখার হয়ে যায়। মানুষের অন্তরের পশু প্রবৃত্তি তথা নফসে আম্মারা পরিশোধিত হয়ে তা নফসে লাউয়্যামা ও মুতমাইন্নার স্তরে উন্নীত ও পরিশোধিত হওয়ার গৌরব অর্জনে সক্ষম হয়।

প্রকৃত রোজাদার আত্মশুদ্ধি ও আত্মসংশোধনের মাধ্যমে আল্লাহপাকের প্রিয়পাত্রে পরিণত হয়। এরই বদৌলতে সমাজ থেকে সকল অন্যায়, অনাচার, ব্যভিচার, জুলুম, নির্যাতন ও সন্ত্রাস দূরীভ‚ত হয়ে গোটা অবশিষ্ট জীবনপথ নির্বিঘœ ও নিরাপদ হওয়ার পথ সুগম করে তোলে। এজন্যই লক্ষ্য করা যায় যে, সিয়াম সাধনার মাধ্যমে ষড়রিপুর তাড়না থেকে মুক্তি লাভ করে। ফলে লোভ-লালসা, কামনা-বাসনা, ক্রোধ, নেশা, মিথ্যা, প্রতারণা, প্রবঞ্চনা, ঝগড়া-বিবাদ, গীবত, অশ্লীলতার চর্চা ইত্যাদি থেকে পুত পবিত্র হয়ে সুন্দর ও মনোহর আদর্শপূর্ণ জীবন লাভ করে। এজন্য অপরাধমুক্ত আদর্শ সমাজ গঠনে সিয়ামের ভ‚মিকা খুবই উপযোগী অনবদ্য।

মানবিক সহানুভ‚তি ও সহমর্মিতা প্রদর্শনের মোক্ষম উপায় হচ্ছে সিয়াম সাধনা। সমাজের বিত্তবান লোকেরা সিয়ামের অনুশীলনের মাধ্যমে ক্ষুধার্ত, অনাহারী, অর্ধাহারী মানুষের দুঃখ-যাতনা এবং ক্ষুধা-পিপাসার অসহ্য যন্ত্রণা অনুভব করতে পারে, তা উপলব্ধি করার সুযোগ পায় এবং নিরন্ন, বস্ত্রহীন ও সম্পদহীন মানুষের প্রতি সহানুভ‚তি ও সহমর্মিতার ভাব জাগ্রত করার প্রেরণা লাভ করে। এজন্যই প্রিয় নবী (সা.) উদত্তি কণ্ঠে ঘোষণা করেছেন : রোজার মাস হলো সহমর্মিতার মাস। সমবেদনা, সহযোগিতা ও সদাচার দ্বারা এ মাসে দেশ জাতি অগণিত পুণ্যকর্ম সম্পাদনে ব্রতি হয়।

মানব জীবনের অমূল্য সম্পদ হচ্ছে চরিত্র বা সহজাত স্বভাব। এ চরিত্র যদি সদগুণাবলীর পরশে সমুজ্জল হয়ে উঠে তখন জীবন হয় স্বার্থক ও কল্যাণবহ। সিয়াম সাধনা উত্তম চরিত্র গঠনে গুরুত্বপূর্ণ ভ‚মিকা পালন করে। এরই ফলশ্রæতি স্বরূপ রোজাদার ব্যক্তি অন্যায়-অনাচার, পাপাচার, কামাচার থেকে নিজেকে বিরত রাখে। সকল প্রকার ধর্মবিরোধী ও সমাজবিরোধী কার্যকলাপ যেমন পরনিন্দা, পরচর্চা, ঝগড়া-বিবাদ, মিথ্যা প্রবঞ্চনা, প্রতারণা ইত্যাদিসহ সকল প্রকার অবাঞ্ছিত ও অনভিপ্রেত কাজ ও পদক্ষেপ হতে নিজেকে বিরত রাখে। এতে করে সমাজ ও সংসার হয় কলুষমুক্ত ও পরিচ্ছন্ন। যার চিত্ত বিমোহন লালিমার আবহ পরবর্তী মাসগুলোতেও অব্যাহত থাকে এবং জগৎজোড়া ইসলামি সমাজ গঠনের প্রেরণা ছড়িয়ে পড়ে।

সিয়াম সাধনা রোজাদারকে বাক সংযমের সমুজ্জল শিক্ষা প্রদান করে। মহৎ ও পুণ্যাশ্রয়ী জীবনের অধিকারী মানুষের অন্যতম প্রধান চারিত্রিক উৎকর্ষতা প্রকাশ পায়। মুমিন জীবনের এটি নিত্যঅপরিহার্র্য অনুষঙ্গ। আর এটাই হচ্ছে তার ঈমানের পরিপূর্ণতার প্রতীক। আল কোরআনে মহান রাব্বুল আলামীন ইরশাদ করেছেন : “হে ঈমানদারগণ! তোমরা দৃঢ়ভাবে তাকওয়া অবলম্বন করো ও সংযতভাবে বাক্যালাপ করো। তিনি তোমাদের কার্যসমূহ সুনির্মল করে দেখেন এবং তোমাদের পাপসমূহ ক্ষমা করে দেবেন। প্রকৃতই যে ব্যক্তি আল্লাহ ও রাসূলের অনুসরণ করে সে হবে বিরাট সফলতার অধিকারী।” (সূরা আহযাব : আয়াত ৭০-৭১)। এই শুভ সংবাদের ব্যাখ্যায় রাসূল (সা.) বলেছেন : “যে ব্যক্তি আল্লাহ ও শেষ দিবসে বিশ্বাস রাখে, সে যেন ভালো কথা বলে অথবা নীরবতা পালন করে।” (সহীহ বুখারি ও সহীহ মুসলিম)।

 

 

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন