ঢাকা শনিবার, ১৭ এপ্রিল ২০২১, ৪ বৈশাখ ১৪২৮, ০৪ রমজান ১৪৪২ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

যানজটে নিত্যদিনের ভোগান্তি

রূপগঞ্জে বাইপাস ও ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক

মো. খলিল সিকদার, রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) থেকে : | প্রকাশের সময় : ১৮ নভেম্বর, ২০২০, ১২:০২ এএম

এশিয়ান হাইওয়ে (বাইপাস) ও ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জের বিভিন্ন পয়েন্টে প্রতিদিনই যানজট সৃষ্টি হচ্ছে। যানজটে আটকা পড়ছে বিভিন্ন ধরনের যানবাহন। যানজটের কারণে ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন যাত্রী সাধারণ থেকে শুরু করে পথচারীরাও।

গতকাল সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত এশিয়ান হাইওয়ে (বাইপাস) সড়কের কাঞ্চন টোলপ্লাজা থেকে গোলাকান্দাইল পর্যন্ত প্রায় ৬ কিলোমিটার ও ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের বরপা থেকে যাত্রামুড়া পর্যন্ত প্রায় ৫ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে যানজট সৃষ্টি হয়। ভোগান্তির শিকার হয়ে অনেক যাত্রী ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। নিয়ম ভঙ্গ করে যানবাহন চলাচল, অদক্ষ চালক দিয়ে গাড়ি চালানো, যত্রতত্র কাউন্টার, ওভারব্রিজ না থাকায় ঝুঁকি নিয়ে হাজার হাজার শ্রমিকের সড়ক পারাপার, নিয়ম ভঙ্গ করে সড়কে গাড়ি পার্কিংসহ নানা কারণে এ যানজট সৃষ্টি হচ্ছে।

জানা গেছে, এশিয়ান হাইওয়ে (বাইপাস) ও ঢাকা-সিলেট মহাসড়কটি গোলাকান্দাইল এলাকা অতিক্রম করেছে। এ দুটি সড়ক যোগে চলাচল করছে রাজশাহী, পাবনা, বগুড়া, টাঙ্গাইল, মানিকগঞ্জ, সিলেট, সুনামগঞ্জ, হবিগঞ্জ, ব্রাম্মণবাড়িয়া, ভৈরব, নরসিংদীসহ প্রায় ৪০ জেলার যানবাহন। আর ভুলতা-গোলাকান্দাইল এলাকা যানজটের এলাকা হিসেবে পরিচিত ছিলো। তবে ভুলতা ফ্লাইওভার চালু হওয়ার পর থেকে এখানে আর যানজট সৃষ্টি হয় না।

ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের ভুলতা থেকে শুরু করে যাত্রামুড়া এলাকা পর্যন্ত ছোট বড় সব মিলিয়ে প্রায় শতাধিক শিল্প কারখানা রয়েছে। এসব কারখানায় হাজার হাজার শ্রমিক কাজ করেন। সকালে কাজে যোগদান, দুপুরের খাবারের সময় এবং রাতের ছুটির সময় ওভারব্রিজ না থাকায় শ্রমিকরা ঝুঁকি নিয়ে সড়ক পারাপার হয়। এতে সড়ক পারাপারের সময় দীর্ঘ যানজট সৃষ্টি হয়ে যায়। এছাড়া যত্রতত্র গাড়ির কাউন্টার, অটো স্টেশনের কারণে যানজট সৃষ্টি হয়। যানজট নিরসন করতে কাঁচপুর হাইওয়ে থানা পুলিশ ও ট্রাফিক পুলিশকে হিমশিম খেতে হয়। বিশেষ করে সিটি গ্রæপের শত শত ট্রাক প্রবেশ করতে গিয়ে রূপসী বাসস্টেশন এলাকায় প্রতিদিনই যানজট লেগে থাকছে।

অপরদিকে, এশিয়ান হাইওয়ে (বাইপাস) সড়কটি প্রশস্থতা অনেকটা কম। গাড়ি ওভারটেকিং করতে গিয়ে অনেক সময় সড়ক দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছে। আর সড়ক দুর্ঘটনার কারণেও দীর্ঘ যানজট সৃষ্টি হয়। কোন কারণে যানবাহন বিকল হয়ে পড়লে এক পাশ বন্ধ হয়ে যায় এবং অপরপাশ দিয়ে যানবাহন চলাচল করতে হয়। এ সড়কে বেশিরভাগ যানজট সৃষ্টি হয় নিয়ম ভঙ্গ করে যানাবাহন চলাচলের কারণে। বিশেষ করে রূপগঞ্জ উপজেলার কাঞ্চন টোলপ্লাজা এলাকা থেকে শুরু করে গোলাকান্দাইল পর্যন্ত প্রায় নিত্যদিন যানজট লেগে থাকে। এশিয়ান হাইওয়ে সড়কের বেশ কয়েক স্থানে বালুর ব্যবসা গড়ে তুলেছে স্থানীয় প্রভাবশালীরা। আর এসব বালু ট্রাক যোগে বিভিন্ন স্থানে সাপ্লাই দেয়া হচ্ছে। এসব ট্রাকের কারণেও যানজট সৃষ্টি হচ্ছে। গতকাল সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত এশিয়ান হাইওয়ে (বাইপাস) সড়কের কাঞ্চন টোলপ্লাজা থেকে গোলাকান্দাইল পর্যন্ত প্রায় ৬ কিলোমিটার ও ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের বরপা থেকে যাত্রামুড়া ৫ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে যানজট সৃষ্টি হয়।

পাবনাগামী বাসযাত্রী আমির হোসেন বলেন, প্রায় সময়ই এশিয়ান হাইওয়ে (বাইপাস) দিয়ে ঢাকায় আসি। প্রায় সময়ই কাঞ্চন টোলপ্লাজা এলাকায় যানজটে পড়ি। টোল আদায়ে ধীরগতির কারণে যানজট সৃষ্টি হয়। করটিয়ার কাপড় ব্যবসায়ী জাকির মিয়া বলেন, করটিয়া ও গাউছিয়া পাইকারি কাপড়ের বাজার থেকে কাপড় ক্রয় করি। মালামাল নিতে গিয়ে অনেক সময় যানজটে পড়তে হয়। ট্রাকচালক আলী আকবর বলেন, ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের বরাব এলাকায় স্থানীয় অটো রিকশা চাঁদাবাজদের কারণে যানজট লেগে থাকে। কিছু বলতে গেলে যানবাহন চালকদের মারধর করে।

বিশ্বরোড এলাকার টিআই রফিকুল ইসলাম বলেন, শিল্প এলাকাগুলোতে ওভারব্রিজ করে দিলে যানজট হতো না। একদিকে ধুলাবালি আর অন্যদিকে যানজট। যানজট নিরসনে ট্রাফিক পুলিশ কাজ করে যাচ্ছে।

অনেক সময় পুলিশ সদস্যরা অসুস্থ হয়ে পড়ছে। তবে আগের তুলনায় এখন যানজট অনেকটা কম।

 

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন