শনিবার, ০২ জুলাই ২০২২, ১৮ আষাঢ় ১৪২৯, ০২ যিলহজ ১৪৪৩ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

ভ্যাকসিন নিয়ে দুর্নীতির ক্ষেত্র তৈরি করা হয়েছে

১৩ জানুয়ারি সারা দেশে প্রতিবাদী সমাবেশ-মানববন্ধন সংবাদ সম্মেলনে মির্জা ফখরুল

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১১ জানুয়ারি, ২০২১, ১২:০০ এএম

দুর্নীতি করতেই সরকার ভ্যাকসিন আমদানিতে মধ্যস্বত্ত্ব ভোগী নিয়োগ দিয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

তিনি বলেন, সরকার সরাসরি ভ্যাকসিন না কিনে মধ্যস্বত্ত্ব ভোগী নিয়োগ দিয়েছে দুর্নীতির জন্যে। এর মাধ্যমে জনগনের অর্থ নয়-ছয় করে দুর্নীতির ক্ষেত্র তৈরি করা হয়েছে। গতকাল রোববার গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। মির্জা ফখরুল বলেন, মানুষের জীবন রক্ষাকারী ভ্যাকসিন আমদানি প্রক্রিয়ায় অস্পষ্টতা, স্বজনপ্রীতি ও দুর্নীতির ফলে জনগণের এই টিকা প্রাপ্তি অনিশ্চয়তার মধ্যে পড়েছে। ভ্যাকসিন কবে আসবে- এটা নিয়ে গোটা জাতির সঙ্গে আমরাও চরমভাবে উদ্বিগ্ন। এখন পর্যন্ত তারা (সরকার) কোনো সুনির্দিষ্ট সময়ও নির্ধারণ করতে পারেনি। এখন পর্যন্ত ভারত থেকে আসবে তারও কোনো নিশ্চিয়তা পাইনি। কারণ ভারতের হাই কমিশনার বলেছেন, ভারতের চাহিদা মেটানো হবে তারপরে তারা নির্ধারণ করবেন। তাদের পররাষ্ট্র সচিবও একই কথা বলছেন। আমরা পত্র-পত্রিকায় দেখছি যে, শ্রীলংকার সাথে তারা চুক্তি করেছেন, শ্রীলংকাকে তারা আগে অগ্রাধিকার দেবেন। এই বিষয়গুলো অস্পষ্ট এবং এটা পুরোপুরিভাবে বাংলাদেশের মানুষকে আবার প্রতারণার শিকার করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, ভ্যাকসিনটা হচ্ছে জীবন রক্ষার করার একট বিষয়। এটা একটা অগ্রাধিকার। সেই ভ্যাকসিন নিয়েও তারা দুর্নীতি করছে যেটা আমরা পত্র-পত্রিকায়ে দেখছি। এই সরকার যে পুরোপুরিভাবে দায়িত্ব জ্ঞানহীন সরকার এবং জনগণের প্রতি যে তাদের কোনো রকম দায়-দায়িত্ব নেই সেটাই এখানে প্রমাণিত হচ্ছে।

দেশে দুর্নীতির সর্বগ্রাসী চিত্র ফুটে উঠেছে মন্তব্য করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, একজন বর্তমান মেয়র, আরেকজন সাবেক মেয়র। বর্তমান মেয়র অভিযোগ করছেন যে, সাবেক মেয়র দুর্নীতি করেছেন। তার মুখ দিয়ে বেরিয়ে আসছে যে, আগে দুর্নীতি কি হয়েছে? যারা এখন আছেন, তারা কি করছেন সেটাও আমরা পত্র-পত্রিকায় দেখতে পারছি। সুতরাং বর্তমানে দেশে দুর্নীতির সর্বগ্রাসী যে চিত্র সেটাই বেরিয়ে এসেছে। এসময় সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান।

১৩ জানুয়ারি সারাদেশে সমাবেশ-মানববন্ধন: দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত ‘ভুয়া-বানোয়াট-মিথ্যা’ রাষ্ট্রদ্রোহিতার মামলায় অভিযোগ গঠন ও গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির প্রতিবাদে আগামী ১৩ জানুয়ারি সারাদেশে জেলা ও মহানগরে প্রতিবাদ সমাবেশ-মানববন্ধনের কর্মসূচি ঘোষণা করেছে বিএনপি। সংবাদ সম্মেলনে কর্মসূচি ঘোষণা করে মির্জা ফখরুল বলেন, সরকার বিএনপির নেতৃত্ব শূণ্য করার হীন প্রচেষ্টা চালাচ্ছে। ভুয়া বানোয়াট মিথ্যা রাষ্ট্রদ্রোহিতার মামলায় তারেক রহমানের অনুপস্থিতিতে চার্জ গঠন ও ওয়ারেন্ট জারি সম্পূর্ণ আইনের পরিপন্থি দখলদার সরকারের বাকশালী চরিত্রের বহিঃপ্রকাশ।

তিনি জানান, শনিবার তারেক রহমানের সভাপতিত্বে জাতীয় স্থায়ী কমিটির ভার্চুয়াল বৈঠকে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মিথ্যা ভিত্তিহীন মামলায় দায়েরের ঘটনার নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করা হয়। তারেক রহমানের সভাপতিত্বে ওই বৈঠকে মহাসচিবসহ স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, জমির উদ্দিন সরকার, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, আব্দুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, সেলিমা রহমান ও ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু উপস্থিত ছিলেন।#

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Google Apps