বৃহস্পতিবার ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ১৩ জামাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

ইভিএমে নয় ভোট হবে ব্যালটে

ইসির সিদ্ধান্ত প্রত্যাখ্যান সংবাদ সম্মেলনে মির্জা ফখরুল

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৫ আগস্ট, ২০২২, ১২:০০ এএম

আগামী জাতীয় নির্বাচনে দেড়‘শ আসনে ইভিএমে (ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিন) ভোট করার ঘোষণা দিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। কমিশনের কমিশনের এই সিদ্ধান্ত প্রত্যাখ্যান করে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ইভিএমে নয়, ভোট হবে সম্পূর্ণ ব্যালটে। গতকাল বুধবার নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে যৌথসভা শেষে এক সংবাদ সম্মেলনে নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্তের তিনি এসব কথা বলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, এই নির্বাচন কমিশন তারা শুধুমাত্র সরকারের ইচ্ছা পালন করবার জন্যে, তাদের যে লক্ষ্য আছে সরকার গঠন করার, সেই লক্ষ্যকে চূড়ান্ত রুপ দেয়ার জন্যই ইভিএমের কথা আবারো বলেছে। আমরা স্পষ্ট করে বলতে চাই, এটা কখনোই জনগণ গ্রহন করবে না, আমরাও গ্রহণ করছি না। এটাকে পুরোপুরিভাবে আমরা প্রত্যাখ্যান করছি।

তিনি বলেন, বিএনপির দাবি খুব পরিস্কার, নির্বাচনকালীন সময়ে একটি নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকার ছাড়া এদেশে কোনো নির্বাচন হবে না। দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে জনগণের দাবির প্রতিফলিত হবে না, জনগণের যে রায় সেই রায় প্রতিফলিত হবে না। সুতরাং আমরা যেটা পরিস্কার করে বলে এসেছি যে, অবিলম্বে এই সরকারকে তাদের ব্যর্থতার জন্য পদত্যাগ করতে হবে এবং পদত্যাগ করে তাদেরকে একটা নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের হাতে ক্ষমতা হস্তান্তর করতে হবে। সংসদ বিলুপ্ত করতে হবে এবং নতুন করে গঠিত নির্বাচন কমিশনের পরিচালনায় একটা অবাধ, সুষ্ঠু নির্বাচন সকল দলের কাছে গ্রহণযোগ্য একটা পার্লামেন্ট নির্বাচন করতে হবে এবং জনগণের সরকার গঠন করতে হবে।

বর্তমান নির্বাচন কমিশনের বিষয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, এই নির্বাচন কমিশনের ব্যাপারে একটুও আমাদের ইন্টারেস্ট নেই। তারা কি বলছে না বলছে, কি করছে-এটা আমাদের কাছে খুব আগ্রহ সৃষ্টি করে না। কারণ আমাদের মূল বিষয়টা হচ্ছে, যেটা আমরা বিশ্বাস করি সরকার যদি পরিবর্তন না হয় নির্বাচনকালীন সময়ে সেখানে কোনো নির্বাচন কমিশনের পক্ষেই সুষ্ঠু নির্বাচন করা সম্ভব না। আজকে প্রমাণিত হলো যে, এই নির্বাচন কমিশনও যে এই সরকারেরই একটা অঙ্গসংগঠন। কারণ ওরা (আওয়ামী লীগ) তিন‘শ আসনে ইভিএম চেয়েছে। আর ওরা (নির্বাচন কমিশন) এখন অফার করেছে দেড়‘শতে। একটা রফা-কম্প্রোমাইজ সরকারের সঙ্গে।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, সমস্ত রাজৈনৈতিক দলগুলো এমনকি জাতীয় পার্টি পর্যন্ত তারা সবাই বলে এসেছিল যে, আমরা ইভিএম চাই না। কারণ ইভিএম দিয়ে জনগণের রায় সঠিকভাবে প্রতিফলিত হবে না। তারপরেও বর্তমান নির্বাচন কমিশন সেটি করেছে। যে নির্বাচন কমিশন করা হয়েছে এটা অবৈধ নির্বাচন কমিশন। কারণ এই কমিশন গঠন করাও সঠিক পদ্ধতিতে হয়নি।

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির আমান উল্লাহ আমান, আবদুস সালাম, রুহুল কবির রিজভী, মজিবুর রহমান সারোয়ার, খায়রুল কবির খোকন, হাবিব উন নবী খান সোহেল, নেওয়াজ হালিমা আরলি, তাইফুল ইসলাম টিপু, মহানগর বিএনপির রফিকুল আলম মজনু, আমিনুল হক, যুবদলের সুলতান সালাহউদ্দিন টুকু, মোনায়েম মুন্না, স্বেচ্ছাসেবক দলের মোস্তাফিজুর রহমান, আবদুল কাদির ভুঁইয়া জুয়েল, মহিলা দলের সুলতানা আহমেদ, হেলেন জেরিন খান, মুক্তিযোদ্ধা দলের সাদেক আহমেদ খান, শফিকুল ইসলাম মিলন, তাঁতী দলের আবদুল কালাম আজাদ, মজিবুর রহমান মুজিব, মৎস্যজীবী দলের আবদুর রহিম, শ্রমিক দলের আনোয়ার হোসাইন, মোস্তাফিজুল করীম মজুমদার, উলামা দলের নজরুল ইসলাম তালুকদার, সেলিম রেজা, জাসাসের লিয়াকত আলী, জাকির হোসেন রোকন, ছাত্রদলের সাইফ মাহমুদ জুয়েল প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন