বুধবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২১, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০৩ জামাদিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিজরী

খেলাধুলা

নতুন স্বপ্নে অলিম্পিক যাত্রা লাল-সবুজদের

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৪ জুলাই, ২০২১, ৮:১৩ পিএম | আপডেট : ১২:৫১ এএম, ১৫ জুলাই, ২০২১

বিশ্বের সর্ব বৃহৎ ক্রীড়া আসর অলিম্পিক গেমসে প্রতিবারই শুধু অংশগ্রহণ করতে হবে বলেই অংশ নেয় বাংলাদেশ। সেই ১৯৮৪ সাল থেকেই বাংলাদেশের এই মানসিকতা দেখা গেছে। তবে এবারের প্রেক্ষাপট ভিন্ন। ২৩ জুলাই থেকে জাপানের রাজধানী টোকিওতে শুরু হওয়া এবারের অলিম্পিক গেমসে কিছু একটা করে দেখানোই বাংলাদেশের ক্রীড়াবিদদের লক্ষ্য। বলা যায় এবার নতুন স্বপ্নে অলিম্পিক যাত্রা লাল-সবুজদের।

তাই অন্য আসরগুলোর তুলনায় এবারের অলিম্পিক যাত্রা কিছুটা স্বপ্নের মোড়কে বেঁধেছে বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশন (বিওএ)। বুধবার রাজধানীর একটি অভিজাত হোটেলে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এমনটাই জানান বিওএ’র সহ-সভাপতি এবং টোকিও অলিম্পিকে বাংলাদেশ দলের শেফ দ্য মিশন শেখ বশির আহমেদ মামুন। তিনি আরও জানান, এবার বাংলাদেশের ৬ জন ক্রীড়াবিদ টোকিও অলিম্পিকের চারটি ডিসিপ্লিনে অংশ নেবেন। এরা হলেন- আরচ্যার রোমান সানা, দিয়া সিদ্দিকী, সাতারু আরিফুল ইসলাম, জুনাইনা আহমেদ, শুটার আব্দুল্লাহ হেল বাকী ও অ্যাথলেট জহির রায়হান। মামুন বলেন,‘আমাদের আরচ্যার রোমান সানা নিজ যোগ্যতায় টোকিও অলিম্পিকে জায়গা করে নিয়েছে। তাকে নিয়ে আমরা ভালো কিছু আশা করছি।’ তিনি যোগ করেন,‘টোকিও অলিম্পিক গেমস থেকে আমাদের যদি কোনো পদক আসে তাহলে নীতিমালা অনুযায়ী বিওএ থেকে পুরস্কৃত হবেন ক্রীড়াবিদরা। আমরা ক্রীড়াবিদদের বলেছি, টাকার অঙ্ক নিয়ে ভেব না। তোমরা পদক পেলে পুরো দেশবাসী তোমাদের নিয়ে আনন্দ করবে।’ বিওএ মহাসচিব সৈয়দ শাহেদ রেজা টোকিওগামী বাংলাদেশ দলের নিয়ে আশাবাদ ব্যক্ত করেন। তিনি বলেন,‘যদি তারা সর্বোচ্চটুকু উজাড় করে দিতে পারে, তাহলে দেশের জন্য মাইল ফলক আনতে পারবে বলে বিশ্বাস করি। এ মুহূর্তে সুস্থ থাকা গুরুত্বপূর্ণ। আশা করি তারা সুস্থ থেকে সেরাটা ঢেলে দিতে পারবে টোকিওতে।’

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের কারণে টোকিও অলিম্পিকে অংশগ্রহণকারী খেলোয়াড়দের আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনে আনা হয়নি। ভার্চুয়ালি যুক্ত ছিলেন আরচ্যার রোমান সানা ও শুটার আব্দুল্লাহ হেল বাকী। রোমান নিজের উপর আস্থা রাখতে বলেন,‘প্রতিদিন কঠোর অনুশীলন হচ্ছে। ফাইনাল ম্যাচগুলো হয় যেভাবে, সেভাবে আলাদা অনুশীলনের একটা ব্যবস্থা হয়েছে। ওয়ার্ড কাপ স্টেজ ২ ও ৩ এ আমাদের ফলাফল ভালো ছিল। কিছু একটা করে দেখানোই আমার লক্ষ্য থাকবে।’ রোমান সানা ব্যক্তিগত ইভেন্ট ছাড়াও মিশ্র বিভাগে দিয়া সিদ্দিকীর সঙ্গে জুটি বেঁধে খেলবেন।

আরচ্যারি ছাড়া দুই জন যাচ্ছেন শুধু সাতারে। দুই সাঁতারুই এখন দেশের বাইরে। বাংলাদেশের পুরুষ সাঁতারু আরিফুল ইসলাম ফ্রান্সে প্রশিক্ষণে আছেন। প্রবাসী নারী সাঁতারু জুনাইনা আহমেদ আছেন লন্ডনে। আরিফ তিন বছর উচ্চতর প্রশিক্ষণ নিলেও তাকে নিয়ে খুব বেশি আশা করতে পারছে না বিওএ। শুটিং ও অ্যাথলেটিক্স থেকে যাচ্ছেন আব্দুল্লাহ হেল বাকী এবং জহির রায়হান। এ দুই জনের স্বাভাবিক প্রত্যাশা টোকিওতে নিজের সেরা স্কোর ও টাইমিংয়ের উন্নতি করা।

অভিজ্ঞ শুটার বাকী ও সরাসরি অলিম্পিকে সুযোগ পাওয়া রোমান সানাকে দিয়ে পতাকা বহন করানোর পরিকল্পনা ছিল বিওএর। কিন্তু দু’জনেরই উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের পর দিন খেলা থাকায় তাদের পরিবর্তে সাতারু আরিফুল ইসলাম উদ্বোধনের দিন বাংলাদেশের পতাকা বহন করবেন।

টোকিওতে খুব কড়া বিধিনেষেধের মধ্যে থাকবে বাংলাদেশ দল। যে অ্যাথলেটের খেলা শেষ বা গেমস থেকে বিদায় নেয়ার ৪৮ ঘন্টার মধ্যে তাকে টোকিও ত্যাগ করতে হবে। আগামীকাল বিকালে বাংলাদেশ আরচ্যারি ও শুটিং দল ঢাকা ছাড়বে। সাতারুরা যথাক্রমে লন্ডন ও প্যারিস থেকে টোকিও যাবেন। অ্যাথলেট জহির রায়হান যাবেন ২৫ জুলাই।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন