বুধবার, ২০ অক্টোবর ২০২১, ০৪ কার্তিক ১৪২৮, ১২ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

সারা বাংলার খবর

রাজশাহীতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতার মধ্যেই রাস্তায় বাড়ছে মানুষ

রাজশাহী ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ২৮ জুলাই, ২০২১, ৪:১৫ পিএম

রাজশাহীতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে আগের দিনের চেয়ে বেশি তৎপর দেখা গেলেও কঠোর লকডাউনের ষষ্ঠ দিনে সড়কে যানবাহন ও মানুষের চলাচল আগের দিনগুলোর চেয়ে বেড়েছে। দোকানি, ক্রেতা, পথচারী অনেকেরই মাস্ক মুখে থাকছে না। বুধবার সকালে রাজশাহী নগরীর সাহেববাজার, লক্ষ্ণীপুর, সাগরপাড়া ও আশপাশের এলাকা ঘুরে দেখা যায়, কেউ চায়ের দোকানের সামনে দাঁড়িয়ে চা খাচ্ছেন, আবার কেউ কাঁচাবাবাজারে ঘোরাঘুরি করে চলে যাচ্ছেন। আগের দিনের তুলনায় এদিন কাঁচাবাজার, মাছ ও মুদি দোকানে লোকজনের চলাচল বেড়েছে। প্রধান সড়কে মানুষের সঙ্গে যানবাহনের সংখ্যাও বেশি। সাহেববাজার এলাকায় সেনাবাহিনী, আনসার, পুলিশ আর ভ্রাম্যমাণ আদালতের কার্যক্রম দেখা গেছে। নানা অজুহাতে বের হওয়া মানুষদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে তল্লাশি চৌকিতে, মাস্ক না পরায় করা হচ্ছে জরিমানা।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আবু আসলাম বলেন, অধিকাংশই জরুরি দরকার ছাড়া বের হয়েছেন এবং জানতে চাইলে নানা অজুহাত দিচ্ছেন। তাই, তাদের জরিমানা করা হচ্ছে। অনেকেরই মাস্ক থুতনিতে, তাদেরকেও জরিমানা করা হয়েছে।

তিনি বলেন, কঠোরতম লকডাউন বাস্তবায়নে পুলিশের পাশাপাশি রাজশাহীতে ১১ প্লাটুন সেনা, বিজিবি ও আনসার সদস্য কাজ করছে। এছাড়াও ২২টি ভ্রাম্যমাণ আদালত মাঠে রয়েছে। এর মধ্যে নগরীর চারটি ও উপজেলা পর্যায়ে ১৮টি।

রাজশাহী জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ কাউছার হামিদ মঙ্গলবার জানান, রাজশাহীতে লকডাউনের পঞ্চম দিনে মঙ্গলবার লকডাউনের বিধিনিষেধ ও স্বাস্থ্যবিধি না মানায় ৭১ জনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। এ সময়ে জরিমানা আদায় করা হয়েছে ৪৫ হাজার ৫০ টাকা। আর স্বাস্থ্যবিধি না মানায় একজনকে কারাদন্ড প্রদান করা হয়েছে।

তিনি জানান, রাজশাহী নগরী ও উপজেলাগুলোতে এই জরিমানা করা হয়। এর মধ্যে নগরীতে ৩২টি মামলায় ২৫ হাজার ৬০০ টাকা জরিমানা করা হয়। আর উপজেলাগুলোতে ৩৯টি মামলায় ১৯ হাজার ৪৫০ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে।

তিনি বলেন, সর্বাত্মক লকডাউন চলাকালে বিধিনিষেধ অনুযায়ী, জরুরি ঔষধ ও নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দোকানের বাইরে কেউ দোকানপাট খুলতে পারবে না। এ সময়ে অপ্রয়োজনে কেউ বাইরেও বের হতে পারবে না। জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলেও মাস্ক পরতে হবে, স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে। কিন্তু লক্ষ করা গেছে, এই সময়েও কেউ কেউ দোকান খুলেছে। তাদের জরিমানা করা হয়েছে। এ ছাড়া যারা মাস্ক পরেননি, কিংবা স্বাস্থ্যবিধি লঙ্ঘন করেছেন, তাদেরও মামলা দেওয়া হয়েছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন