রোববার, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ০৮ কার্তিক ১৪২৮, ১৬ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

মহানগর

প্রধানমন্ত্রীর সাথে আলোচনা করে দ্রুত হিফজ ও মক্তব খুলে দেয়া হবে

আলেমদের সাথে বৈঠকে-স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৫ আগস্ট, ২০২১, ৮:০৫ পিএম | আপডেট : ৯:৩২ পিএম, ২৫ আগস্ট, ২০২১

ফাইল ছবি


স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেন, প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করে অতি দ্রুত হিফজ ও মক্তব বিভাগ খুলে দেয়া হবে। তিনি বলেন, পর্যায়ক্রমে সারাদেশের কওমি মাদরাসা ও অন্যান্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান চালুর আশু পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে। আজ বুধবার দুপুরে আল-হাইআতুল উলয়া লিল-জামি‘আতিল কওমিয়া বাংলাদেশের চেয়ারম্যান এবং বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া বাংলাদেশের সভাপতি আল্লামা মাহমুদুল হাসানের নেতৃত্বে ৮ সদস্য বিশিষ্ট আলেমদের একটি প্রতিনিধিদল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে তার সচিবালয়ের কার্যালয়ে বৈঠকে তিনি এসব কথা বলেন। বৈঠকে আলেম নেতৃবৃন্দ সরকারের নিকট কওমি মাদরাসাসমূহ খুলে দেয়ার জোর দাবি জানান। আল-হাইআতুল উলয়া লিল-জামি‘আতিল কওমিয়া বাংলাদেশ এর প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এতথ্য জানানো হয়।

বৈঠকে আল্লামা মাহমুদুল হাসান বলেন, কওমি মাদরাসাগুলোতে কোরআন-হাদীস ভিত্তিক শিক্ষা কার্যক্রম চালানো হয় এবং কোরআন তেলাওয়াত, যিকির, দোয়া, তাহাজ্জুদ ও পাঁচ ওয়াক্ত নামায আদায় করে মহামারি ও বালা-মসিবত হতে মুক্তির জন্য বিশেষভাবে মোনাজাত করা হয়। এর মাধ্যমে আল্লাহ তায়ালার অশেষ রহমতে জাতি করোনাসহ সবরকম বালা-মসিবত থেকে পরিত্রাণ পেতে পারে। মাদরাসাগুলো বন্ধ থাকায় মহান আল্লাহর দরবারে সম্মিলিত ও ব্যাপক দোয়া ও কান্নাকাটিও বন্ধ হয়ে আছে।

তিনি আরো বলেন, প্রায় দেড় বছর যাবত সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ। শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ থাকায় অনেক শিক্ষার্থীরা অহেতুক ও অপরাধমূলক কর্মকান্ডে জড়িয়ে পড়ছে। পারিবারিক ও সামাজিক অবক্ষয় দেখা দিচ্ছে। এহেন অবস্থায় সার্বিক বিবেচনায় সারাদেশের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়া অত্যন্ত জরুরি। আল্লামা মাহমুদুল হাসান যে সকল আলেম-উলামা, মাদরাসার ছাত্র ও ধর্মপ্রাণ মুসলমান জেলখানায় বন্দী তাদেরকে দ্রুত মুক্তি দেয়া এবং যারা আত্মগোপনে আছেন তাদের হয়রানির বন্ধেরও জোর দাবি জানান। জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আলেম-উলামাদের অনেককে জামিন দেয়া হচ্ছে। আল্লামা মাহমুদুল হাসান জামিনের প্রক্রিয়া আরো দ্রুততর করার দাবি জানান। প্রতিনিধি দলের আল-হাইআতুল উলয়া ও বেফাকের অন্য সদস্যরা হলেন, মাওলানা নূরুল ইসলাম, আল্লামা আব্দুল কুদ্দুস, মাওলানা মাহফুজুল হক, মুফতি ফয়জুল্লাহ, মুফতি নূরুল আমীন, মুফতি মোহাম্মদ আলী এবং মাওলানা ইয়াহইয়া মাহমুদ।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন