রোববার, ২৮ নভেম্বর ২০২১, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২২ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী

সারা বাংলার খবর

রাবির হল খুলছে কাল, সব ধরণের প্রস্তুতি সম্পন্ন

রাবি সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৬ অক্টোবর, ২০২১, ৫:০৫ পিএম

মহামারী করোনা ভাইরাস সংক্রমণের কারণে দীর্ঘদিন বন্ধের পর আগামীকাল (১৬ অক্টোবর) খুলতে যাচ্ছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) আবাসিক হলসমূহ। সে লক্ষ্যে হলগুলোতে নেয়া হচ্ছে সব ধরণের প্রস্তুতি।

সরেজমিনে বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকটি হল ঘুরে দেখা যায়, প্রত্যেকটি আবাসিক হলেই চলছে সংস্কার ও মেরামতের কাজ। টাইলস লাগানো, দেয়াল রং করা, পাঠকক্ষ, ডাইনিং, ক্যান্টিন, শৌচাগার মেরামতসহ সব স্থানে পরিস্কার পরিচ্ছন্ন করা হচ্ছে। আবাসিক শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্যবিধির কথা মাথায় রেখে হাত ধোঁয়ার জন্য প্রতিটি হলের ফটকে বসানো হয়েছে বেসিন।

এবিষয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. রওশন জাহিদ বলেন, আমাদের হলে আইসোলেশন রুমের ব্যবস্থা করা হয়েছে যাতে কোন শিক্ষার্থী অসুস্থ হলে আমরা তাকে প্রাথমিকভাবে সেখানে রাখতে পারি। বাথরুমগুলোতে নতুন করে টাইলস লাগানো হয়েছে, ফ্লোর পরিস্কার পরিচ্ছন্ন করা হচ্ছে। হলগেটে বেসিন লাগানো হয়েছে, নতুন করে দেয়ালে রং করা হচ্ছে । শিক্ষার্থীদের হলে উঠাতে আমাদের প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি প্রায় সম্পন্ন করেছি।


এদিকে শিক্ষার্থীদের ক্লাস ও আবাসিক হলে ফিরতে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। এগুলোর মধ্যে রয়েছে সকল শিক্ষার্থীর জন্য কমপক্ষে এক ডোজ ভ্যাক্সিন গ্রহণ বাধ্যতামূলক। যারা এখনো রেজিস্ট্রেশন করেনি তাদের হলে ওঠার বা ক্লাস শুরুর আগে রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন করতে হবে।
১৭ থেকে ২২ অক্টোবর পর্যন্ত শহীদ সুখরঞ্জন সমাদ্দার ছাত্র-শিক্ষক সাংস্কৃতিক কেন্দ্রে (টিএসসিসি) কোভিড-১৯ টিকার প্রথম ও দ্বিতীয় ডোজ প্রদান করা হবে। ক্যাম্পাসে, হলে বা ক্লাসে অবস্থানকালীন সময়ে সকলকে নাক-মুখ ঢেকে মাস্ক ব্যবহার করতে হবে এবং সরকার নির্দেশিত অন্যান্য স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। হলে বা ক্লাস কক্ষে প্রবেশের আগে সাবান দিয়ে হাত ধুয়ে বা স্যানিটাইজার দিয়ে হাত জীবানুমুক্ত করতে হবে। হলে অবস্থানকালে কোনো শিক্ষার্থীর কোভিড-১৯ এর লক্ষণ দেখা দিলে তাকে হলে অথবা বিশ্ববিদ্যালয় চিকিৎসা কেন্দ্রে আইসোলেশন কক্ষে পৃথক রাখার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের রোকেয়া হল প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক মোবাররা সিদ্দিকা বলেন, শিক্ষার্থীদের বরণ করে নিতে সব ধরনের প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। প্রত্যেকটি হলে প্রয়োজনীয় সংস্কার কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে। কিছু কাজ এখনো চলমান রয়েছে। প্রতিটি হলে আইসোলেশনের ব্যবস্থা করা হয়েছে। যেনো কোন শিক্ষার্থী হঠাৎ অসুস্থ হলে তাকে আইসোলেশনে রেখে চিকিৎসা দেওয়া যায়। তাছাড়া শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষার প্রতি সর্বোচ্চ নজর রাখা হবে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন