শনিবার, ২১ মে ২০২২, ০৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৯ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

সম্পাদকীয়

দখল-দূষণে বিপন্ন নদ-নদী

আর কে চৌধুরী | প্রকাশের সময় : ১১ জানুয়ারি, ২০২২, ১২:০৬ এএম

বাংলাদেশ নদ-নদীর দেশ। মাত্র ১ লাখ ৪৮ হাজার ৪৬০ বর্গকিলোমিটারের এই দেশে যত নদ-নদী রয়েছে তা দুনিয়ার অন্য কোনো দেশ নেই। নদ-নদীর কল্যাণে বাংলাদেশে মিঠা পানির অন্যতম বড় উৎসও বটে। দুর্ভাগ্যজনক হলেও বলতে হচ্ছে, দেশের সবচেয়ে মূল্যবান এ সম্পদের সুরক্ষার ক্ষেত্রে আমরা ততটা যত্নবান নই। যে কারণে নদ-নদী দখল-দূষণে বিপন্ন হয়ে পড়ছে। নদ-নদীর বুকে জেগে উঠছে চর। পলি জমে বন্ধ হয়ে যাচ্ছে প্রবাহ। অনেক স্থানে মানচিত্র থেকে হারিয়ে যাচ্ছে নদ-নদীর অস্তিত্ব। একসময়ের নদীকেন্দ্রিক জীবিকাধারীরা এখন পেশা বদলে ভিন্ন পেশায় টিকে থাকার সংগ্রামে লিপ্ত। নদ-নদীর প্রবাহ বন্ধ করে প্রভাবশালীরা গড়ে তুলেছে স্থাপনা। বেশির ভাগ নদ-নদীই ভরা যৌবন হারিয়ে এখন মরা খাল।

মাদারীপুরের প্রধান নদ-নদী পদ্মা, আড়িয়াল খাঁ, পালরদী, কুমার, নিম্নকুমার, টরকী ও ময়নাকাটার এখন বেহাল দশা। স্রোতস্বিনী সুরমা একসময় ছিল সিলেটের লাইফলাইন। এ নদীর তীর ঘেঁষেই গড়ে উঠেছে ব্যবসা-বাণিজ্যের পাইকারি হাট, মোকাম। সেগুলো এখনো সরব। পাড়ের এ কোলাহল দেখে নীরবে কাঁদে একসময়ের প্রমত্তা সুরমা। দখল-দূষণ আর ভরাটে সুরমা বিপন্ন। খুলনায় চলছে নদী দখলের উৎসব। প্রভাবশালীরা মহানগরীর রূপসা, ভৈরব, ময়ূর, ডুমুরিয়ার ভদ্রা, হরি, সুখ ও হামকুড়া নদ-নদীর জায়গা দখল করে অবৈধ স্থাপনা, ইটভাটা, ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান, বাড়িঘর, হাঁস-মুরগির খামার তৈরি করেছেন। রাজশাহীতে পদ্মা নদী দখল রোধে পানি উন্নয়ন বোর্ড ৫৯১ অবৈধ দখলদার চিহ্নিত করলেও উচ্ছেদ করতে পারেনি। শহরের গৃহস্থালি সব ময়লা-আবর্জনা নদীতে ফেলা হচ্ছে। চট্টগ্রামের প্রাণ কর্ণফুলী নদীও দখল-দূষণে অস্তিত্ব হারাতে বসেছে। নদ-নদীর সঙ্গে বৈরী আচরণ দেশের পরিবেশের জন্য বিপর্যয় ডেকে আনছে। অস্তিত্বের স্বার্থে এ আত্মঘাতী প্রবণতা থেকে বিরত থাকতে হবে।

বিগত ৬০-৭০ বছরেও অনেক নদী খনন না করায় নদীর তলদেশে পলি জমে নাব্য হ্রাস পেয়ে মরা খালে পরিণত হচ্ছে। এতে বিলুপ্ত হয়ে যাচ্ছে জীববৈচিত্র্যসহ মৎস্যসম্পদ ও নানা জলজ প্রাণী। হাজার হাজার জেলে পরিবার এখন তাদের আদি পেশা ছেড়ে বেকারত্ব ঘোচাতে বেছে নিয়েছে অন্য পেশা। খেয়া পারের মাঝিরা বৈঠা ছেড়ে কলের নৌকা চালিয়েও শেষ অবধি ছাড়তে হয়েছে বাপ-দাদার পেশা। জালের মতো ছড়িয়ে থাকা নদীগুলোও এখন বিত্তবানদের ফসলি জমি। ভয়াবহ নাব্য সঙ্কট নদীর অববাহিকায় পরিবেশ বিপর্যয়সহ কৃষি আবাদে নেমে এসেছে স্থবিরতা। নদীর তলদেশে পানি না থাকায় সেচনির্ভর কৃষকরা পড়েছে মহাসঙ্কটে।

বাংলাদেশে ছোট বড় অসংখ্য নদ-নদী জালের মতো ছড়িয়ে আছে। প্রাচীনকাল থেকেই এদেশের মানুষের জীবন ও জীবিকার অন্যতম অবলম্বন নদ-নদী। তবে নদী ভরাট, নব্যতা হ্রাস ও দূষণের কারণে ছোট-বড় অনেক নদী বর্তমানে বিপন্ন। মিঠাপানির মৎস্যসম্পদ ও জলজ জীববৈচিত্র্যের অন্যতম আবাসস্থল হিসেবে নদীর গুরুত্ব অপরিসীম। তবে মানুষের বিভিন্ন কর্মকান্ডে বাংলাদেশের নদ-নদীগুলো হারিয়ে যাচ্ছে। অবৈধভাবে নদী দখল এবং শিল্প-কারখানার বর্জ্য দ্বারা দূষণে নদীগুলোর যেমন বিপন্ন হয়ে পড়ছে, তেমনি নদীর পরিবেশ নষ্ট হওয়ায় হারিয়ে যাচ্ছে দেশীয় প্রজাতির মাছসহ গুরুত্বপূর্ণ জীববৈচিত্র্য।
লেখক: মুক্তিযোদ্ধা, শিক্ষাবিদ ও সাবেক চেয়ারম্যান, রাজউক

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন