বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন ২০২২, ১৬ আষাঢ় ১৪২৯, ২৯ যিলক্বদ ১৪৪৩ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

দেশ ভেনিজুয়েলা নাইজেরিয়ার মতো হয়ে যাচ্ছে

গুলশান কার্যালয়ে মির্জা ফখরুল

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২২, ১২:০১ এএম

যেভাবে মূল্যস্ফীতি বেড়েছে, নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম বেড়েছে তাতে দেশ ভেনিজুয়েলা বা নাইজেরিয়ার মতো অবস্থা হয়ে যাচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, আজকে ইনফ্লুয়েশন (মূল্যস্ফীতি) কোথায় ২০০ ভাগ পর্যন্ত বেড়েছে। চাল-ডাল-তেল-লবণের দাম যে হারে বেড়েছে এটা কোনো স্বাধীন দেশে এভাবে চলতে পারে না। এটা তো একটা পুরোপুরিভাবে ভেনিজুয়েলা বা নাইজেরিয়ার মতো অবস্থা হয়ে যাচ্ছে। অপচয়, অপব্যবহার, দুর্নীতির কারণে এদেশ একটা ফেইল্ড স্টেটে (ব্যর্থ রাষ্ট্রে) পরিণত হয়েছে।

গতকাল শুক্রবার গুলশানে চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে বিএনপির স্বাধীনতা সূবর্ণজয়ন্তী উদযাপন রচনা প্রতিযোগিতা কমিটির উদ্যোগে জাতীয় ও বিভাগীয় পর্যায়ের রচনা প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের নাম ঘোষণা উপলক্ষে অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।
দেশে লুটপাটের অর্থনীতি চালু করেছে অভিযোগ করে মির্জা ফখরুল বলেন, বাংলাদেশের অর্থনৈতিক স্বাধীনতার সূচক কোথায় গিয়ে দাঁড়িয়েছে। এরা সারাক্ষণ চিৎকার করছে উন্নয়ন উন্নয়ন উন্নয়ন। মনে হয় যে, গোটা বাংলাদেশকে তারা সোনা দিয়ে মুড়িয়ে দিয়েছে। আন্তর্জাতিক সংস্থা হ্যারিটেজ ফাউন্ডেশনের জরিপ বলেছে, ১৭৭টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থা হচ্ছে ১৩৭তম স্থানে। ২০২১ সালে ছিলো ১২০তম। অর্থ্যাৎ ১৭ ধাপ নিচে নেমে গেছে। এটা ক্রমান্বয়ে নামছে। কারণ তারা (সরকার) অত্যন্ত সুপরিকল্পিতভাবে প্রথমে জনগণের রাজনৈতিক স্বাধীনতা হরণ করে, মানুষের অধিকারগুলো কেড়ে নিয়ে, অর্থনৈতিক অধিকারগুলো কেড়ে নিয়েছে। এখানে একটা দুর্নীতির অর্থনীতি বললে ছোট করা হয়, লুটপাটের অর্থনীতি চালু করেছে। একেবারে ডাকাতি, অর্থনীতি চালু করেছে। দুর্নীতি করাটা তাদের মজ্জাগত, এটাকে তারা অপরাধ মনে করেনা, এটাকে তারা রাইট মনে করে।

স্বাস্থ্যখাত, সড়ক-যোগাযোগ-সেতুসহ বিভিন্ন খাতে ব্যাপক দুর্নীতির চিত্রও তুলে ধরে বিএনপি মহাসচিব বলেন, এসব লুটপাট হচ্ছে তাদের কাছে উন্নয়ন। তাদের (আওয়ামী সরকার) উন্নয়ন হয়েছে, তারা কোটিপতি হয়েছে। তারা বিদেশে বেগমপাড়া তৈরি করছে। যাদেরকে ব্যবহার করে তারা ক্ষমতাকে টিকিয়ে রেখেছে তাদের সঙ্গে শেয়ার করছে। সরকারি কর্মচারিদের বেতন বাড়ানোর দাবি-আমাদের কোনো আপত্তি নেই, আমরা খুশি হবো। কিন্তু সেই সরকারি কর্মচারিদের বেতন বাড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে সাধারণ মানুষের আয়ের তো বৃদ্ধি করতে হবে, সেই সুযোগ তো তৈরি করতে হবে। সেটা কিন্তু হচ্ছে না।

সার্চ কমিটির বিষয়ে তিনি বলেন, এই দেশের জনগণ আর সেই ফাঁদে পা দেবে না, গণতন্ত্রকে ধ্বংস করার আওয়ামী লীগের যত পরিকল্পনা আছে সবকিছুকে তারা ধবংস করে দেবে। তারা রুখে দাঁড়াবে। এই ভয়াবহ গণতন্ত্র বিরোধী, বাংলাদেশের মানুষ বিরোধী, স্বাধীনতা বিরোধী শক্তিকে রুখে দেয়ার জন্য তারা জাতীয় ঐক্য সৃষ্টি করে একটা নিরপেক্ষ নির্বাচনকালীন সরকারের অধীনে একটি নিরপেক্ষ নির্বাচনের মধ্য দিয়ে জনগণের শাসন প্রতিষ্ঠা করবে ইনশাল্লাহ।

স্বাধীনতার সূবর্ণ জয়ন্তী উদযাপন উপলক্ষে এই রচনা প্রতিযোগিতা ১২ স্তরে ১২টি বিষয়ে রচনা প্রতিযোগিতার আয়োজন করে। এই প্রতিযোগিতায় ৪১৯ জন প্রতিযোগী অংশ নেয়। তাদের মধ্য থেকে জাতীয় পর্যায়ে ১৭জন এবং বিভাগীয় পর্য়ায়ে ৭৯জন বিজয়ী হয়।
রচনা প্রতিযোগিতা কমিটির আহবায়ক প্রফেসর আফম ইউসুফ হায়দারের সভাপতিত্বে ও সদস্য সচিব প্রফেসর এবিএম ওবায়দুল ইসলামের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন- বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আবদুস সালাম।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন- প্রফেসর আবদুল লতিফ মাসুম, প্রফেসর লুৎফর রহমান, প্রফেসর এমতাজ হোসেন, প্রফেসর শামসুল আলম, প্রফেসর সিদ্দিকুর রহমান খান, বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য আকরামুল হাসান, ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামল, চেয়ারপারসনের কার্যালয়ের এবিএম আবদুস সাত্তার, রিয়াজউদ্দিন নসু, শায়রুল কবির খান।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Google Apps