বুধবার, ০৫ অক্টোবর ২০২২, ২০ আশ্বিন ১৪২৯, ০৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

প্রস্তুত হোন রাজপথ দখল করতে হবে

নেতাকর্মীদের মির্জা ফখরুল

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৩ আগস্ট, ২০২২, ১২:০০ এএম

রাজপথ দখলের জন্য নেতাকর্মীদের প্রস্তুত হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, আপনারা রাস্তা দখল করতে রাজি আছেন? রাস্তায় না নামলে কিছু হবে? রাস্তা দখল করতে হবে। আপনারা সবাই রেডি হয়ে যান, তৈরি হয়ে যান। আমরা এই ফ্যাসিস্ট কর্তৃত্ববাদী সরকারকে টেনে হিচড়ে নামাবো এবং আমরা জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করব-এটা হোক আজকে আমাদের শপথ।

গতকাল মঙ্গলবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ভোলায় পুলিশের গুলিতে স্বেচ্ছাসেবক দলের আবদুল রহিম নিহত হওয়ার ঘটনার প্রতিবাদে ঢাকা মহানগর বিএনপি উত্তর-দক্ষিণের উদ্যোগে আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন। রাজধানীর বিভিন্ন ওয়ার্ড থেকে কয়েক হাজার নেতা-কর্মী এই বিক্ষোভ কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করেন। বিক্ষোভ সমাবেশে কর্মীরা বিএনপি মহাসচিবের বক্তব্যের সময় ‘হরতাল, হরতাল’ শ্লোগান দিতে থাকলে তিনি বলেন, হরতাল দিও। আগে রাস্তা দখল করো।

মির্জা ফখরুল বলেন, আর কোনো সময় দেয়া চলবে না। এখন আমাদের দাবি একটাই- একদফা এক দাবি হাসিনা তুমি কবে যাবে। আসুন সেই এক দফা দাবি আদায়, জনগণের সরকার, পার্লামেন্ট প্রতিষ্ঠা করার লক্ষ্যে আমরা ঐক্যবদ্ধ হই। গণতন্ত্রের প্রতীক দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া এবং ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নেতৃত্বে এদেশের মানুষের আশা-আকাক্সক্ষা প্রতিফলিত হবে এবং আমরা দেশকে অবশ্যই অবশ্যই মুক্ত করতে সক্ষম হবো।”

জনগণই সরকারকে হারিকেন তুলে দেবে মন্তব্য করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, বলেছেন (প্রধানমন্ত্রী) যে, বিএনপির নেতাদের হাতে হারিকেন ধরিয়ে দেবেন। হারিকেন ধরানোর সময় শেষ আপনাদের। হারিকেন ধরানোর টাইম পাবেন না, পেছনের রাস্তায় দিয়ে যাওয়ারও সময় পাবেন না। এরকম বহু ঘটনা আছে। শ্রীলংকায় রাজাপাকসে পালাতে গিয়েও সহজে পালাতে পারছিলো না, আর প্রধানমন্ত্রী তো পালাতেই পারেনি, মালদ্বীপে গিয়ে বসে আছে। পালাতে চাইলেও জনগণ পালাতে দেয় না-সেই কথাগুলো মনে রাখবেন সেই কথাগুলো স্মরণ রাখবেন।

তিনি বলেন, গত ১৫ বছরে আপনারা এই বাংলাদেশকে একটা শ্মসানে পরিণত করেছেন, পুরোপুরি ফ্যাসিস্ট রাষ্ট্রে পরিণত করেছেন এবং ব্যর্থ রাষ্ট্রে পরিণত করেছেন। কোথায় সাফল্য আপনাদের? এই মেট্রোরেল দেখিয়ে বলেন, পদ্মাসেতু দেখিয়ে বলেন-এখানে নাকী ওদের সব সাফল্য। আর সবচেয়ে বেশি মানুষ দারিদ্র্যসীমার নিচে চলে গেছে, দুই বেলা খেতে পারে না, শ্রমজীবী মানুষ হাহাকার করছে।

ভোলার ঘটনা উল্লেখ করে মির্জা ফখরুল বলেন, ভোলায় আমাদের এক সহকর্মী খুন হয়ে গেছে। আমরা কখনো শুনিনি শান্তিপ্রিয় ভোলায় পুলিশের গুলিতে রক্ত ঝরেছে। সেই ভোলায় সম্পূর্ণ বিনা কারণে বিনা উস্কানিতে জনগণের দাবির সমাবেশে অতর্কিতে পুলিশ আক্রমণ করে, গুলি করে আবদুল রহিমকে হত্যা করে। আরেকজন সহকর্মী ভোলা ছাত্রদলের সভাপতি নুরুল আলম হাসপাতালে আইসিইউতে জীবন মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই করছে।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, রহিমের মা কালকে যখন মর্গ থেকে তার লাশ নিতে যায় সেখানে গিয়ে চিৎকার করে বুক ফাটতে ফাটতে বলছেন, আমার ছেলেকে আমার বুকে ফিরিয়ে দাও। বাংলাদেশে এটা নতুন নয়। আমরা ১৪/১৫ বছরে সেটাই দেখছি। গুম হয়ে যাওয়া ইলিয়াস আলীর মেয়ে এখনো দরজায় দাঁড়িয়ে থাকে কখন তার বাবার বাসায় ফিরে আসবে, আমাদের ছাত্র দলের ছেলে-মেয়েরা এখনো বলে আমি আবার বাবার সঙ্গে ঈদ করতে চাই। ৩৫ লাখ মানুষের বিরুদ্ধে মামলা, আমাদের নেতা-কর্মীরা হাজিরা দিতে দিতে হয়রান হয়ে গেছে। এই হচ্ছে বাংলাদেশের চেহারা।

তিনি বলেন, আজকে পুলিশ বাহিনী শুধু আওয়ামী লীগকে টিকিয়ে রাখার জন্য রাষ্ট্র যন্ত্রকে সম্পূর্ণ ব্যবহার করে তারা একতরফা হত্যা-নির্যাতন করে চলেছে। আমরা এই বাংলাদেশের মানুষ এভাবে নিরব হয়ে বসে থাকতে পারি না। আমাদের অতীত ঐতিহ্য স্মরণ করে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে যেভাবে নব্বইতে, ৫২ সালে, ৬৯‘এ গর্জে উঠেছিলো মানুষ আজকেও শাহাদাতের মধ্য দিয়ে সেইভাবে গর্জে উঠতে হবে। আমাদেরকে দখল করে নিতে হবে রাস্তা-ঘাট, ক্ষমতাসীনদের তখতে-তাউস থেকে নামিয়ে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে।

স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, সরকারকে বলব, এখনো সময় আছে পদত্যাগ করুন, সংসদ বাতিল করুন, নির্দলীয় সরকার গঠন করে আপনারা কেটে পড়ুন। তা না হলে শ্রীলংকার মতো জনগণ রাস্তায় নেমে আপনাদের বিদায় করবে।

স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ভোলার আবদুল রহিম দখলদার সরকারের গুলিতে মৃত্যবরণ করেছে। রহিম তুমি বিজয়ের চেতনা আগামীদিনে, রহিম তুমি মুক্তির চেতনা আগামীদিনের, রহিম তুমি গণতন্ত্রের চেতনা আগামী দিনের, রহিম তুমি স্বাধীনতার চেতনা আগামী দিনের। তোমার মৃত্যু আমরা বৃথা যেতে দেবো।
মহানগর উত্তরের আহবায়ক আমান উল্লাহ আমানের সভাপতিত্বে এবং সদস্য সচিব আমিনুল হক ও রফিকুল আলম মজনুর পরিচালনায় বিক্ষোভ সমাবেশে বিএনপির শামসুজ্জামান দুদু, আবদুস সালাম, আবদুস সালাম আজাদ, কামরুজ্জামান রতন, এবিএম মোশাররফ হোসেন, মীর সরফত আলী সপু, সাইফুল আলম নিরব, ইকবাল হোসেন শ্যামল, মহানগর বিএনপির ইশরাক হোসেন, ইউসুফ মৃধা, যুবদলের সুলতান সালাহউদ্দিন টুকু, মোনায়েম মুন্না, স্বেচ্ছাসেবক দলের মোস্তাফিজুর রহমান, মহিলা দলের নিলোফার চৌধুরী মনি, হেলেন জেরিন খান, ওলামা দলের শাহ নেসারুল হক, কৃষক দলের হাসান জাফির তুহিন, শহিদুল ইসলাম বাবুল, তাঁতী দলের আবুল কালাম আজাদ, মৎস্যজীবী দলের আবদুর রহিম, জাসাসের জাকির হোসেন রোকন, ছাত্রদলের কাজী রওনাকুল ইসলাম শ্রাবণ ও সাইফ মাহমুদ জুয়েল প্রমূখ বক্তব্য রাখেন।

চট্টগ্রাম ব্যুরো জানায়, ভোলায় কর্মসূচি চলাকালে পুলিশের বেপরোয়া গুলিতে স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা আবদুর রহিম খুনের প্রতিবাদে নগরীতে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে বিএনপি। কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসাবে নাসিমন ভবনস্থ দলীয় কার্যালয় মাঠে সমাবেশে বক্তারা বলেন, দুঃশাসন জারি রেখেই অবৈধ সরকার ক্ষমতায় টিকে থাকার জন্য মরিয়া হয়ে উঠেছে। এজন্যই তারা বিরোধী দলকে দমন পীড়নের মাধ্যমে নিশ্চিহ্ন করার নীলনকশা বাস্তবায়ন করছে।
নগর বিএনপির সদস্য সচিব আবুল হাশেম বক্করের সভাপতিত্বে সমাবেশে বিএনপি নেতা এ এম নাজিম উদ্দিন, এম এ আজিজ, মো. মিয়া ভোলা, নাজিমুর রহমান, শফিকুর রহমান স্বপন, প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।
স্টাফ রির্পোটার, মাদারীপুর থেকে জানান, ভোলার ঘটনার প্রতিবাদে মাদারীপুর জেলা বিএনপি বিক্ষোভ মিছিল করেছে। এতে বক্তব্য রাখেন, সদর বিএনপির সাবেক সভাপতি সোহরাব হোসেন হাওলাদার, বজলুর রহমান যুবদল নেতা মনিরুজ্জামন ফুকসহ প্রমুখ।

নেত্রকোনা জেলা সংবাদদাতা জানান, স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতা আব্দুর রহিম হত্যার প্রতিবাদে নেত্রকোনায় সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার সকাল ১০টায় ছোট বাজারস্থ দলীয় কার্যালয়ের সামনে বিএনপি নেত্রকোনা জেলা শাখা এই কর্মসূচির আয়োজন করে। জেলা বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক অ্যাডভোকেট মাহফুজুল হকের সভাপতিত করেন, যুগ্ম আহবায়ক তাজেজুল ইসলাম ফারাস সুজাত।

নাটোর জেলা সংবাদদাতা জানান, নাটোরে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে জেলা বিএনপি ও তার সহযোগী সংগঠন। খবর পেয়ে দলীয় কার্যালয়ের সামনে আগে থেকেই পুলিশ মোতায়েন ছিল। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, জেলা বিএনপির আহবায়ক আমিনুল হক, সদস্য সচিব রহিম নেওয়াজ, জেলা যুবদলের সভাপতি এ হাই তালুকদার ডালিম প্রমুখ।

শেরপুর জেলা সংবাদদাতা জানান, শেরপুর জেলা বিএনপির সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, জেলা বিএনপির সভাপতি মাহমুদুল হক রুবেল, সহ-সভাপতি ফজলুল হক লাভলু, এডভোকেট রাকিবুল হাসান, এসএম শহিদুল ইসলাম ভিপি, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আওয়াল চৌধুরী প্রমুখ।

নাসিরনগর (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) উপজেলা সংবাদদাতা জানান, ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে নাসিরনগর উপজেলা ছাত্রদলের আহবায়ক কমিটির। এতে উপজেলা ছাত্রদলের আহবায়ক জমসেদ মিয়ার সভাপতিত্ব করেন।

ঝালকাঠি জেলা সংবাদদাতা জানান, ঝালকাঠি মহিলা কলেজ সড়কে কর্মসূচি পালন করেন জেলা বিএনপি। সমাবেশে বক্তব্য দেন জেলা বিএনপির সদস্য সচিব অ্যাডভোকেট মো. শাহাদাৎ হেসেন, পৌর বিএনপির সভাপতি অ্যাডভোকেট মো. নাসিমুল হাসান প্রমুখ।

তারাকান্দা (ময়মনসিংহ) উপজেলা সংবাদদাতা জানান, ময়মনসিংহ উত্তর জেলা বিএনপির আয়োজনে তারাকান্দায় বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

ইবি সংবাদদাতা জানান, বিক্ষোভ মিছিল করেছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি) শাখা ছাত্রদল। ছাত্রদলের আহ্বায়ক সাহেদ আহম্মেদ ও সদস্য সচিব মাসুদ রুমী মিথুন, যুগ্ম-আহ্বায়ক আনোয়ার পারভেজ, রোকনউদ্দীন, সোলায়মান চৌধুরী, উপস্থিত ছিলেন।

গাবতলী (বগুড়া) উপজেলা সংবাদদাতা জানান, বগুড়ার গাবতলী উপজেলা ও পৌর ছাত্রদলের উদ্যোগে দাড়াইল বাজারে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। এতে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা ছাত্রদলের সভাপতি এম আর হাসান পলাশ।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (5)
আকিব ৩ আগস্ট, ২০২২, ১:১৭ এএম says : 0
তত্বাবধায়ক সরকার ছাড়া এ দেশে নির্বাচন হলে বিএনপি ক্ষমতায় আসতে পারবে না। কাজেই বিএনপির উচিত হবে এখন চূড়ান্ত আন্দোলন করা। কোনো বিদেশি নেতা এ দেশের সরকার বসিয়ে দিয়ে যাবে না। নিজেরাই করতে হবে।
Total Reply(0)
আকিব ৩ আগস্ট, ২০২২, ১:১১ এএম says : 0
বিএনপি ভীতু দল।
Total Reply(0)
আকিব ৩ আগস্ট, ২০২২, ১:১১ এএম says : 0
বর্তমানে সবচেয়ে জনপ্রিয় দল বিএনপি। কিন্তু তারা আন্দোলন করতে জানে না।
Total Reply(0)
আকিব ৩ আগস্ট, ২০২২, ১:১৫ এএম says : 0
বিএনপির কাছে হাজারো ইস্যু ছিল। কিন্তু তারা একবারও আন্দোলনে সফল হতে পারেনি। এবার তারা সবাই একসাথে আন্দোলন করলে এ সরকারকে বিদায় করতে পারবে।
Total Reply(0)
আকিব ৩ আগস্ট, ২০২২, ১:১৯ এএম says : 0
বিএনপি বুঝে শুনে পা ফেলে আন্দোলন করলে তারা জয়ী হবে। অন্যথায় তাদের পরাজয় বরণ করতে হবে।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন