বৃহস্পিতবার, ১৮ আগস্ট ২০২২, ০৩ ভাদ্র ১৪২৯, ১৯ মুহাররম ১৪৪৪

ব্যবসা বাণিজ্য

পদ্মা সেতুর উদ্বোধনে বাংলাদেশকে বিশ্বব্যাংকের অভিনন্দন

অর্থনৈতিক রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৫ জুন, ২০২২, ৪:২১ পিএম

বাংলাদেশে নিযুক্ত বিশ্বব্যাংকের কান্ট্রি ডিরেক্টর মার্সি মিয়াং টেম্বন বলেছেন, সময় এসেছে বাংলাদেশ ও বিশ্বব্যাংকের মধ্যকার সম্পর্ককে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার। শনিবার (২৫ জুন) পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উপলক্ষে তিনি বাংলাদেশের জনগণকে অভিনন্দন জানান। তিনি বলেন, পদ্মা সেতু বাংলাদেশের জনগণ ও অর্থনীতিতে বহুমাত্রিক সুবিধা বয়ে আনবে। বাংলাদেশের দীর্ঘমেয়াদী উন্নয়ন সহযোগী হিসেবে বিশ্বব্যাংক এ স্বীকৃতি দেয় বলে উল্লেখ করেন তিনি। মার্সি মিয়াং টেম্বন বলেন, এই সেতু দেশের সমন্বিত প্রবৃদ্ধি ত্বরান্বিত করতে এবং দারিদ্র্য হ্রাসে অবদান রাখবে। ৬.১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ স্বপ্নের পদ্মা সেতুর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে যোগ দিতে মাওয়ায় পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শুরুতে বিশ্বব্যাংক প্রাথমিকভাবে পদ্মা সেতু নির্মাণ প্রকল্পের সহ-অর্থায়নে রাজি হলেও ২০১২ সালে প্রকল্পে দুর্নীতির অভিযোগ তুলে অর্থায়ন নাকচ করে দেয়। তবে কানাডার একটি আদালতের রায় অনুযায়ী, বিশ্বব্যাংকের করা সকল অভিযোগই ছিল মিথ্যা, বানোয়াট ও ভিত্তিহীন। এরপর বিশ্বব্যাংক থেকে ঋণ না নেয়ার সিদ্ধান্ত নেয় সরকার।

দেশের বৃহত্তম প্রকল্প পদ্মা সেতু নির্মাণের কাজ প্রায় শতভাগ অভ্যন্তরীণ অর্থায়নে সম্পন্ন হয়েছে। নির্মাণ বাবদ মোট ব্যয় হয়েছে ৩০ হাজার ১৯৩ কোটি ৩৯ লাখ টাকা। পদ্মা সেতু প্রকল্প বাস্তবায়নের ফলে রাজধানী ঢাকার সঙ্গে সড়ক ও রেলপথে দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ২১টি সংযুক্ত হলো। বিশেষজ্ঞদের মতে, এর ফলে দেশের জিডিপি ১ দশমিক ২ থেকে ২ শতাংশ পর্যন্ত বৃদ্ধি পাবে। ১৯৯৯ সালে প্রাক-সম্ভাব্যতা সমীক্ষার মাধ্যমে শুরু হয়েছিল পদ্মা সেতু নির্মাণের যাত্রা। এরমাঝে অসংখ্য বাধা-বিপত্তি ও বিতর্কের সম্মুখীন হতে হয়েছে এই প্রকল্পকে কেন্দ্র করে। ২০১৫ সালে সেতুর নির্মাণ কাজ শুরুর কথা থাকলেও বিদেশি সাহায্য বাতিল হওয়াসহ নদীর গভীরতা বৃদ্ধি ও অন্যান্য জটিলতার কারণে কাজ শুরু করতে বিলম্ব হয়।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
jack ali ২৫ জুন, ২০২২, ৫:২১ পিএম says : 0
তারা কি জনগণের রক্ত পানি করে ট্যাক্সের টাকা খরচ করে লক্ষ লক্ষ লোক জড়ো করে উদ্বোধন করে আমাদের দেশের সরকার তারা জানে না কিভাবে দেশের উন্নতি করতে হয় আমাদের দেশের শিক্ষা ব্যবস্থাকে ধ্বংস করে দিয়েছে যারা শিক্ষিত হয়ে বের হয় তারা কিছুই করতে পারো না তারা সমাজ এবং পরিবারের বোঝা বিদেশের পরে নির্ভরশীল করে রেখেছে আমাদের দেশের সরকার কারণ তাদের কাছ থেকে কাজ করালে যদি এক লক্ষ টাকা দিয়ে কোন কাজ করতে হয় তখন তারা নেবে 10 লক্ষ টাকা এর মধ্যে 9 লক্ষ টাকা তারা মেরে দিবে সরকার এবং পদ্মা সেতুর ক্ষেত্রেও তাই হয়েছে 11 হাজার কোটি টাকার পদ্মা সেতু 30 হাজার কোটি টাকারও বেশি খরচ হয়েছে আবার উদ্বোধন করতে কত হাজার কোটি টাকা খরচ হয়েছে সেটা তারাই জানে এবং কেয়ামতের দিন আল্লাহ বলে দিবে আল্লাহর গজব পড়বে তোমাদের পরে মানুষ বন্যায় ধ্বংস হয়ে গেছে সেদিকে তাদের কোন দায়িত্ব জ্ঞান নাই তারা আনন্দ ফুর্তি করছে
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন