শুক্রবার, ১২ আগস্ট ২০২২, ২৮ শ্রাবণ ১৪২৯, ১৩ মুহাররম ১৪৪৪

জাতীয় সংবাদ

হতদরিদ্রদের চালের দামও বাড়ল

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১ জুলাই, ২০২২, ১২:১১ এএম

খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির আওতায় দেশের ৫০ লাখ হতদরিদ্র মানুষের কাছে বিক্রি করা চালের মূল্য নতুন দাম অনুযায়ী কেজি প্রতি চালের দাম ১০ টাকা থেকে বেড়ে ১৫ টাকা পুনর্নিধারণ করেছে সরকার। আজ শুক্রবার থেকে নতুন দাম কার্যকর হবে।
গতকাল বৃহস্পতিবার খাদ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালককে এ নির্দেশনা দিয়েছে খাদ্য মন্ত্রণালয়। এর আগে খাদ্য অধিদপ্তরের এই কর্মসূচির চালের বিক্রয় মূল্য পুনর্র্নিধারণ করে গত ২২ জুন অর্থ মন্ত্রণালয় থেকে খাদ্য মন্ত্রণালয়ের সচিবের কাছে চিঠি পাঠানো হয়েছিল। অর্থ মন্ত্রণালয়ের চিঠির পরিপ্রেক্ষিতে চালের নতুন মূল্য কার্যকর করতে নির্দেশ দিল খাদ্য মন্ত্রণালয়।

অর্থ মন্ত্রণালয়ের চিঠিতে বলা হয়, ইউনিয়ন পর্যায়ে হতদরিদ্রদের জন্য সরকার নির্ধারিত মূল্যে কার্ডের মাধ্যমে খাদ্যশস্য বিতরণ নীতিমালা, ২০১৬’ অনুযায়ী ‘খাদ্য বান্ধব’ কার্যক্রমের আওতায় দরিদ্র জনসংখ্যার মধ্য থেকে ইউনিয়ন পর্যায়ে নির্বাচিত সর্বোচ্চ ৫০ লাখ পরিবারকে কর্মাভাবকালীন সেপ্টেম্বর, অক্টোবর ও নভেম্বর এবং মার্চ ও এপ্রিল পাঁচ মাস প্রতিমাসে ৩০ কেজি চাল বিক্রির ক্ষেত্রে চালের মূল্য পুনর্নিধারণ করা হলো। এতে বলা হয়েছে, সমতল ও দুর্গম এলাকার জন্য ভোক্তা পর্যায়ে প্রতিটি নির্বাচিত পরিবারের কাছে চালের খুচরা বিক্রয় মূল্য প্রতি কেজি ১৫ টাকা এবং এক্স-গোডাউন মূল্য ডিলারের কাছে বিক্রয় মূল্য সমতল এলাকার জন্য প্রতি কেজি ১৩ টাকা ৫০ পয়সা এবং দুর্গম এলাকার জন্য প্রতি কেজি ১৩ টাকা। পুননির্ধারিত মূল্য ১ জুলাই থেকে কার্যকর হবে বলেও চিঠিতে জানিয়েছে অর্থ মন্ত্রণালয়।

গত ৯ জুন জাতীয় সংসদে ২০২২-২৩ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট বক্তৃতায় অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল জানান, খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির চালের দাম ১০ টাকা থেকে বাড়িয়ে ১৫ টাকা হচ্ছে।

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (3)
MD Al-amin ১ জুলাই, ২০২২, ১০:৩৪ এএম says : 0
দাম যতই বারুক না কেনো বাংলাদেশের মানুষের সব কিছু ক্রয় ক্ষমতার ভিতরে আছে।
Total Reply(0)
Arfan Shourov ১ জুলাই, ২০২২, ১০:৩৫ এএম says : 0
এইটাই প্রমান করে যে দেশে দারিদ্র্যের হারও কমছে। কিন্তু মিডিয়া সব কিছু negatively দেখে।
Total Reply(0)
Omar Faruk ১ জুলাই, ২০২২, ১০:৩৫ এএম says : 0
সরকার ঢাকায় সাধারণ মানুষের জন্য রেশন কাড দিচ্ছে। সেখানে চাল দিচ্ছে না। শুধু দুই কেজি ডাল দুই কেজি তেল এক কেজি চিনি।মাসে দুই বার দিবে।একটা সংসারে মাসে চার কেজি ডাল দরকার হয়না।তাই ডালের পরিমাণ কমিয়ে টিবিসির মাধ্যমে চাল দিলে সাধারণ মানুষের বেশি উপকার হবে।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন