শুক্রবার, ২৬ জুলাই ২০২৪, ১১ শ্রাবন ১৪৩১, ১৯ মুহাররম ১৪৪৬ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

রাষ্ট্র ব্যবস্থা সংস্কারে ১৯ দফা ঘোষণা আসছে কাল

সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে জাতীয় সম্মেলন সংবাদ সম্মেলনে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ নেতৃবৃন্দ

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১ জানুয়ারি, ২০২৩, ১২:০০ এএম

আগামীকাল সোমবার ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ আয়োজিত জাতীয় সম্মেলনে রাষ্ট্র ব্যবস্থার সংস্কারের দাবিতে ১৯ দফা ঘোষণা আসছে। সম্মেলনে নির্বাচনকালীন জাতীয় সরকার প্রতিষ্ঠার দাবিসহ ১৫ দফা দাবি উপস্থাপন করা হবে। এছাড়া দলের পূর্ণাঙ্গ কমিটিও ঘোষণা করা হবে। গতকাল শনিবার পুরানা পল্টনস্থ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে জাতীয় সম্মেলন এবং চলমান রাজনৈতিক পরিস্থিতির প্রেক্ষিতে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে দলের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা গাজী আতাউর রহমান এসব তথ্য জানান।

সংবাদ সম্মেলন সঞ্চালনায় ছিলেন সহকারি মহাসচিব মাওলানা ইমতিয়াজ আলম। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, সহকারি মহাসচিব মাওলানা আব্দুল কাদের, কেএম আতিকুর রহমান, অধ্যাপক সৈয়দ বেলায়েত হোসেন, মাওলানা আহমদ আবদুল কাইয়ূম, মাওলানা খলিলুর রহমান, জিএম রুহুল আমিন, মাওলানা সিরাজুল ইসলাম, মাওলানা লোকমান হোসাইন জাফরী, মুক্তিযোদ্ধা আবুল কাশেম, আলহাজ জান্নাতুল ইসলাম, মুফতী মোস্তফা কামাল, শহিদুল ইসলাম কবির।

সংবাদ সম্মেলনে মাওলানা গাজী আতাউর রহমান বলেন, দেশের অর্থনৈতিক দুরাবস্থা, নির্বাচন নিয়ে অস্থিরতা, জোট-মহাজোট ভাঙ্গা-গড়ার নিত্য ঘটনা। আজ ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মজলিশে শুরা অধিবেশন অনুষ্ঠিত হবে। যেখানে আসন্ন নির্বাচনকে সামনে রেখে নতুন নেতৃত্ব নির্ধারণ করা হবে।

তিনি বলেন, আগামীকালের জাতীয় সম্মেলন একটি মাইল ফলক হতে যাচ্ছে। সম্মেলনে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের তৃণমূলের নেতৃবৃন্দ অংশ নেবেন। সম্মেলন থেকে দলের আমীর আসন্ন নির্বাচনকে সামনে রেখে করণীয় নির্দেশনা প্রদান করবেন। নির্বাচনী লক্ষ্যমাত্রা বেধে দিবেন। তিনি বলেন, সম্মেলনের যাবতীয় প্রস্তুতি প্রায় সম্পন্ন। অভ্যর্থনা, নিরাপত্তাসহ সামগ্রিক ব্যবস্থাপনা শেষ হয়েছে।

তিনি বলেন, আমরা দেশের প্রায় সকল রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের সাথে ঘনিষ্ঠ আলাপ করেছি। বহু বিষয়ে আমরা একমত হয়েছি। আগামীর পরিকল্পনায় সহযোগী হওয়ার বিষয়ে একধরনের বোঝাপড়া হয়েছে। এই সম্মেলন জাতীয় রাজনীতির জন্য একটি বাঁক পরিবর্তনীয় ঐতিহাসিক ঘটনা হতে যাচ্ছে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (4)
Dlr Hossen ১ জানুয়ারি, ২০২৩, ৯:০৪ এএম says : 0
প্রশংসনীয় প্রস্তাব, তবে আরোও কিছু সংযোজন সংশোধন প্রয়োজন আছে। যেমন দলীয় রাজনীতি থেকে ছাত্র রাজনীতি আলাদা করতে হবে।এমপি দেরকে সংসদে নিজ দলের বিপক্ষে ভোট দেয়ার অধিকার দিতে হবে বা ভোট দান থেকে বিরত বা ঐ দিন অনুপস্থিত থাকার অধিকার দিতে হবে।
Total Reply(0)
HB Shanto ১ জানুয়ারি, ২০২৩, ৯:০৪ এএম says : 0
অনেক সুন্দর একটি প্রস্তাব নিয়ে এসেছেন আমি মনে করি বাংলাদেশের সকল দলএ প্রস্তাবটি মেনে নিবে
Total Reply(0)
Obaidur Rahman Tanbir ১ জানুয়ারি, ২০২৩, ৯:০৫ এএম says : 0
আমি বাংলাদেশের একজন সাধারণ নাগরিক হিসেবে বলছি,বর্তমান সরকার এদেশের ইতিহাসে সবচেয়ে কঠোর স্বৈরশাসক। তিনি জনগণের ভোট ছাড়াই টানা ১৫ বছর ক্ষমতায় রয়েছেন। প্রথমে ক্ষমতায় এসে সব সৎ সেনা কর্মকর্তাদের হত্যা করে প্রশাসনের মেরুদণ্ড ভেঙে দেয়। সাধারণ মানুষ প্রতিবাদ করলে তিনি সাধারণ মানুষের ওপর নির্বিচারে গুলি চালান। তিনি ক্ষমতায় থেকে জনগণের ভোটাধিকার কেড়ে নিয়েছেন, রাষ্ট্রীয় সব প্রতিষ্ঠান ধ্বংস করেছেন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ধ্বংস করেছেন, দেশের ব্যাংক লুট করেছেন এবং তার নেতারা বিদেশে পাড়ি জমিয়েছেন। হাজার হাজার মানুষ বন্দী হয়েছে। দেশের প্রশাসনকে নিজের গোলাম বানিয়ে রেখেছেন। স্বৈরাচারী সরকারের পতন চাই এবং আমাদের ভোটের অধিকার চাই।
Total Reply(0)
Mohammed Shoaib ১ জানুয়ারি, ২০২৩, ৯:০৫ এএম says : 0
আমি স্বাগত জানাই এরকম রাষ্ট্র পরিচালনার সুন্দর একটা উদ্যোগ নেওয়ার জন্য
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন