বৃহস্পতিবার , ১ জুন ২০২৩, ১৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১১ যিলক্বদ ১৪৪৪ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

সরকারি হজযাত্রীরা হয়রানির শিকার হজের আগেই

নিবন্ধনের মেয়াদ ৭ মার্চ পর্যন্ত বর্ধিত

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১ মার্চ, ২০২৩, ১২:০১ এএম

সরকারি ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনার হজযাত্রীদের নিবন্ধনের সময়সীমা আগামী ৭ মার্চ পর্যন্ত বর্ধিত করা হয়েছে। হজযাত্রীদের নিবন্ধন কার্যক্রম ধীরগতিতে চলায় সময়সীমা বর্ধিত করা হয়েছে। এদিকে, হজের পুরো মৌসুম শুরুর আগেই সরকারি ব্যবস্থাপনার হজযাত্রীরা চরম হয়রানির শিকার হচ্ছে বলে একাধিক ভুক্তভোগি অভিযোগ তুলেছেন। গতকাল মঙ্গলবার রাত পর্যন্ত সরকারি ব্যবস্থাপনায় ৭ হাজার ৪২০ জন এবং বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ২৭ হাজার ১৮৪ জন নিবন্ধন কার্যক্রম সম্পন্ন করেছেন। সরকারি ব্যবস্থাপনার প্রাক-নিবন্ধনের পূর্বের সিরিয়াল বহাল রেখে ৪৫ হাজার ৫১৪ পর্যন্ত নির্ধারণ এবং বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় পূর্বের সিরিয়াল বহাল রেখে ৮ লক্ষ ৪৬৭ পর্যন্ত নির্ধারণ করা হয়েছে। উল্লেখ্য, হজ কোটা পূর্ণ হওয়ার সাথে সাথে নিবন্ধন সার্ভার স্বয়ংক্রিয়ভাবে বন্ধ হয়ে যাবে। ধর্ম মন্ত্রণালয়ের উপসচিব আবুল কাশেম মুহাম্মদ শাহীন গতকাল এ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

দেশে এখনো হজের পুরো মৌসুম শুরু হয়নি। কিন্তু তার আগেই সরকারি হজযাত্রীদের হয়রানির অভিযোগ উঠেছে। সম্প্রতি ধর্ম মন্ত্রণালয়ের এক প্রজ্ঞাপনে সরকারি হজযাত্রীরা প্রত্যেকে নিজ দায়িত্বে ঢাকায় আশকোনা হজ ক্যাম্পে পাসপোর্ট জমা দিয়ে আসতে হবে বলে নির্দেশনা দেয়া হয়। এতে বিপাকে পরে যায় প্রত্যন্ত গ্রামের সাধারণ মানুষ। তাদের কেউ কেউ কোনদিন ঢাকা শহর দূরের কথা নিজ জেলা শহরেও কোন দিন যাননি। অথচ ইতিপূর্বে তারা স্থানীয় ইসলামিক ফাউন্ডেশনজেলা অফিস অথবা জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে জমা দিতেন।

জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে একজন দায়িত্বশীল ব্যক্তি ঢাকায় আশকোনা হজ ক্যাম্পে পাসপোর্ট জমা দিয়ে আসতেন। এ বছর সরকারি নির্দেশনার কারণে প্রত্যন্ত এলাকার সাধারণ মানুষ ঢাকায় আশকোনা হজ ক্যাম্পে পাসপোর্ট জমা দিতে গিয়ে দুর্ব্যবহারের শিকার হন। তারা লম্বা লাইনে দিনভর দাঁড়িয়ে পাসপোর্ট জমা দেন। এর পর এক সপ্তাহ পর ধর্ম মন্ত্রণালয়ের এক প্রজ্ঞাপনে আবার নির্দেশনা দেন হজ্জযাত্রীরা আবার নিজের পাসপোর্ট ফেরত নিতে হবে। এবার আবার ঢাকায় এসে লম্বা লাইনে দাঁড়িয়ে তা ফেরত নিতে বাধ্য হন। ৩ দিন পর ধর্ম মন্ত্রণালয় পুনরায় নির্দেশনা দেয় পাসপোট ফেরত নেয়ার প্রয়োজন হবে না। পর পর ৩টি স্ববিরোধী নির্দেশনায় হতাশ সাধারণ হজযাত্রীরা।

তারা এ ধরনের হয়রানির কষ্ট প্রকাশের কোন জায়গা নেই বলে অভিযোগ করেন। ধর্ম মন্ত্রণালয়ের একটি সূত্র জানায় ধর্ম মন্ত্রণালয় এবং হজ অফিসের একশ্রেণির কর্মকর্তার গোপনে বেসরকারি হজ ব্যবসায় জড়িত থাকার অভিযোগ পুরনো। এ চক্রটি সম্প্রতি আবার সক্রিয় হয়ে উঠেছে। সরকারি ব্যবস্থাপনায় হজ প্যাকেজে অস্বাভাবিক মূল্য ছাড়াও হজযাত্রীদের সরকারি ব্যবস্থাপনার প্রতি অনীহা সৃ®িটর গোপন মিশনে চক্রটি মাঠে নেমেছে বলে অভিযোগ হজযাত্রীদের। হজ শাখার কর্মকর্তাদের রদবদলের দাবি তাদের। এখনি ব্যবস্থা গ্রহণ না করলে সউদী আরবে সরকারি ব্যবস্থাপনায় হজযাত্রীরা আরো বড় ধরনের হয়রানির শিকার হবেন বলে জানিয়েছে মন্ত্রণালয় সূত্র।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন