ঢাকা, সোমবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১ আশ্বিন ১৪২৬, ১৬ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী।

প্রবাস জীবন

নিউইর্য়কে সাস্ট আ্যালামনাই ইউএসএ’র বার্ষিক বনভোজন

সাবেক শিক্ষার্থীদের মিলনমেলা

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৯ আগস্ট, ২০১৯, ৭:৩৩ পিএম

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (শাবি), সিলেটের প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের সংগঠন সাস্ট আ্যালামনাই ইউএসএ’র বার্ষিক বনভোজন অনুষ্ঠিত হয়েছে। ২৫ আগস্ট ‘তোমাদের কারও কি মনে পড়ে সেই এক কিলোর কথা, যেই পথ ছিল আমাদের স্বপ্নে আঁকা সবুজের মাঝে রোঁদের উঁিক ঝুঁকি আর দু’পাশে বয়ে চলা লেকের সুনসান নিরবতা’ Ñ এই স্লোগানে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের সংগঠন সাস্ট আ্যালামনাই ইউএসএ এই আয়োজন করে।
নিউইর্য়কের এস্টোরিয়া পার্কে আয়োজিত এই বনভোজনে নিউইয়র্ক, নিউজার্সি, কানেকটিকাট , পেনসিলভেনিয়ার বিভিন্ন পেশায় কর্মরত বাংলাদেশী বংশোদ্ভুত সাস্ট আ্যালামনাই ও তাদের পরিবারসহ প্রায় দুই শতাধিক সদস্য অংশ নেন।
বনভোজন শুরু হয় সকাল এগারোটায়। সকাল থেকেই নিউইর্য়কের বিভিন্ন বোরো থেকে অংশগ্রহনকারীরা পার্কে জড়ো হতে থাকে। সকাল সাড়ে ১১ টার দিকে সকলের মাঝে সকালের নাস্তা বিতরণ করা হয় । তরমুজ, পিৎজা, সিংগারা, চমুচা ও ঠান্ডা পানীয় দিয়ে অতিথিদের অ্যাপায়ন করা হয়। এরপর শুরু হয় মূল পর্ব। এ পর্বে ছিল ছোট ও বড়দের খেলাধুলা , ফুটবল, পিলোপাস, বিভিন্ন বয়সের বাচ্চাদের দৌড়, বল নিক্ষেপ, হাডি ভাঙ্গাসহ অন্যান্য প্রতিযোগিতা । এতে সাস্টিয়ান পরিবার ও সন্তানরা অংশগ্রহণ করেন। খেলাধুলা শেষে পরিবেশন হয় দুপুরের খাবার ।
মধ্যাহ্ন ভোজের পর পার্কের মনোরম পরিবেশে শুরু হয় ফটোসেশন। পরিচয় পর্ব শেষে একে একে বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালেেয়র প্রথম ব্যাচ থেকে শুরু করে বিভিন্ন ব্যাচের প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা। তারা ক্যাম্পাসের স্মৃতিচারণের সময় আবেগ আপ্লুত হয়ে পড়েন। পাশাপাশি আয়োজক কমিটিকে ধন্যবাদ জানান। পুরষ্কার বিতরণের পূর্বে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন বিশ্বদ্যিালয়ের প্রথম ব্যাচের শিক্ষার্থী মোহাম্মদ ফরিদ আলম ও মাসুদুর রহমান, মোহাম্মদ কামাল হোসেন, বদরুল হক, ৪র্থ ব্যাচের আকলিমা আহমেদ, সুজিত পুরুকায়স্থ এবং তাহরিমা বেগম।
অনুষ্ঠানের সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিলেন অসীম কুমার সরকার, সায়েদ জাবেদুর মুনির, আহমেদুর রহমান রণি, এহেছানুল হক (টিপু), তাপুতী চৌধুরী, রাজেশ কুমার শাহা, সঙ্গমিত্র দেব মুন্নী, মাহবুব আহমেদ মাসুম, মো. সাদিকুর রহমান সুফিয়ান, আজহার আহমেদ, জুনাইদ আরেফীন, শাকির হোসেন, মাসুদুর রহমান, বদরুল হক, মো. কামাল হোসেন, সিদ্দিকা চৌধুরী, হুমাইয়ারা সুলতানা, মো. আবুল কাশেম, জাফর আহমেদ, ইমতিয়াজ চৌধুরী, মো আবু বকর সিদ্দিক, আলমগীর হোসেন, শফি সিদ্দিকী, তৌফিক আহমেদ প্রমুখ।
অনুষ্ঠান পরিচালনার দায়িত্বে ছিলেন পিকনিক আয়োজক কমিটির আহবায়ক বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসিএস বিভাগের সাবেক শিক্ষার্থী আলাউদ্দিন ভুঁইয়া। বনভোজনে বিভিন্ন বয়সী ছেলেমেয়েদের জন্য আয়োজন করা হয় দৌড় প্রতিযোগিতা। সাত বছর ও এর উপরে ছেলেদের দৌড় প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হয় মাহিমিন, দ্বিতীয় ও তৃতীয়স্থান অর্জনকারী যথাক্রমে আইরান ও ইউসুফ। সাত বছর এর নিচে ছেলেদের দৌড় প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হয় তাফসীর, দ্বিতীয় ও তৃতীয়স্থান অর্জনকারী যথাক্রমে রাজদীফ ও আবীর। সাত বছর ও এর উপরে মেয়েদের দৌড় প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হয় উর্মি, দ্বিতীয় ও তৃতীয়স্থান অর্জনকারী যথাক্রমে নাফীসা ও মাইশা। সাত বছর এর নিচে মেয়েদের দৌড় প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হয় ফাইরুজ, দ্বিতীয় ও তৃতীয়স্থান অর্জনকারী যথাক্রমে জামিলা ও রাজমিয়া। বালিশ প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হয় তাসমিয়া চৌধুরী, দ্বিতীয় ও তৃতীয়স্থান অর্জনকারী যথাক্রমে পলি ও লিমা। হাড়ি ভাঙ্গা প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হয় তিথি, দ্বিতীয় ও তৃতীয়স্থান অর্জনকারী যথাক্রমে ফরিদা ইয়াসমিন ও মাইশা।
সবশেষে আয়োজন করা হয় বনভোজনের অন্যতম আকর্ষণ র‌্যাফেল ড্র। র‌্যাফেল ড্রতে প্রথম পুরষ্কার হিসেবে ৩২ ইঞ্চি স্মার্ট টিভি জিতে নেন রাজু, দ্বিতীয় ও তৃতীয়স্থান অর্জনকারী যথাক্রমে ফারহান ও পিটু।
শেষে খেলাধুলায় অংশগ্রহণকারী ও র‌্যাফেল ড্র বিজয়ীদের হাতে পুরষ্কার তুলে দেন সাস্ট আ্যালামনাই ইউএসএর আয়োজক কমিটির আহবায়ক আলাউদ্দিন ভুঁইয়া ও বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম ব্যাচের প্রাক্তন শিক্ষার্থী মোহাম্মদ ফরিদ আলম ও মাসুদুর রহমান।
শেষে আয়োজক কমিটির আহবায়ক আলাউদ্দিন ভুঁইয়া সাস্ট আ্যালামনাই ইউএসএ’র পক্ষ থেকে সবাইকে ধন্যবাদ জানান।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন