ঢাকা, শনিবার, ০৬ জুন ২০২০, ২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ১৩ শাওয়াল ১৪৪১ হিজরী

সারা বাংলার খবর

ফুলপুরে ইউএনও’র হস্তক্ষেপে বাল্যবিয়ে বন্ধ, পিতা-মাতাকে জরিমানা

ফুলপুর (ময়মনসিংহ) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৫:৪১ পিএম

ফুলপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ সাইফুল ইসলামের বাল্যবিবাহ বিরোধী অভিযানে বাল্যবিবাহ থেকে রক্ষা পেল ৮ম শ্রেণির ছাত্রী মনি আক্তার (১৩)। এসময় বাল্যবিয়ের আয়োজন করার অপরাধে মেয়ের পিতা-মাতাকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করেন ভ্রাম্যমান আদালত।

জানা যায়, ময়মনসিংহের ফুলপুর উপজেলার বালিয়া ইউনিয়নের বিলাসাটী গ্রামের মালীবাড়িতে মোঃ আজিজুল হক তার মেয়ে ৮ম শ্রেণির ছাত্রী মনি আক্তারের (১৩) সাথে শনিবার রাতে পার্শ্ববর্তী তারাকান্দার নগুয়া গ্রামের এক ছেলের সাথে বিয়ের আয়োজন চলছিল। স্কুল ছাত্রীর বাল্যবিবাহ হচ্ছে সংবাদ পেয়ে ফুলপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ সাইফুল ইসলাম শনিবার রাতে পুলিশ ফোর্স নিয়ে মেয়ের বাড়িতে বাল্যবিবাহ বিরোধী অভিযান চালান এবং বাল্যবিবাহের ক্ষতিকর প্রভাব সম্পর্কে সকলকে বুঝিয়ে বাল্যবিবাহ বন্ধের কথা বলেন। এসময় অভিযান টের পেয়ে বর ও তার লোকজন পালিয়ে যায় এবং মেয়েকেউ সরিয়ে ফেলা হয়। পরে স্থানীয় লোকজনের সহযোগিতায় অভিযান চালিয়ে মেয়েকে রাত ২ টার দিকে উদ্ধার করে বাল্যবিবাহ বন্ধ করা হয়। এসময় বাল্যবিয়ের আয়োজন করার অপরাধে মেয়ের পিতা মোঃ ফজলুল হক ও মাতা হোসনে আরাকে ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করেন নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ সাইফুল ইসলাম এবং ১৮ বছর পূর্ণ হওয়ার আগে এই মেয়েকে কোথাও বিয়ের আয়োজন করতে পারবে না মর্মে মুচলেখা আদায় করেন। বরপক্ষ পালিয়ে যাওয়ায় তাদের পরিচয় পাওয়া যায়নি।

ফুলপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ সাইফুল ইসলাম বলেন, বাল্যবিবাহের ক্ষতিকর প্রভাব বোঝানোর পর তারা বুঝতে পারে এবং তার অভিভাবকরা ১৮ বছর পূর্ণ হওয়ার আগে এই মেয়েকে কোথাও বিয়ের আয়োজন করবে না মর্মে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হয়ে মুচলেখা দিয়েছে।

এসময় ফুলপুর থানার এএসআই আলমগীরসহ সঙ্গীয় ফোর্স, স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিগণ উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য যে, মনি আক্তারের স্থায়ী বাড়ি হালুয়াঘাট উপজেলার শাকুয়াই খাল পাড়। সে বিলাসাটী নানার বাড়িতে থেকে বিলাসাটী তমিজ উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ে ৮ম শ্রেণিতে লেখাপড়া করে। তার পিতা-মাতা গাজীপুর পোষাক কারখানায় কাজ করেন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
ইবরাহীম ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ২:৩৭ পিএম says : 0
যৌতকের কারনে বাবা মেয়েকে বিয়া দিতে পারেনা '''তখন কোথায় চলে যায় এই অভিযান
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন