ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ০২ এপ্রিল ২০২০, ১৯ চৈত্র ১৪২৬, ০৭ শাবান ১৪৪১ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

আ.লীগ-বিএনপির রাজনীতি উপ নির্বাচন ঘিরে আবর্তিত

বগুড়া-১ আসন

মহসিন রাজু | প্রকাশের সময় : ৭ মার্চ, ২০২০, ১২:০১ এএম

বগুড়ায় প্রধান দুটি রাজনৈতিক দল আওয়ামীলীগ ও বিএনপির সব রাজনৈতিক কর্মকান্ডই পরিচালিত হচ্ছে সংসদের উপনির্বাচন ঘিরে। গত বছরের শুরুতে বগুড়া সদর সংসদীয় আসনের উপনির্বাচনে বিজয়ী বিএনপি মহাসচিব মীর্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর যথাসময়ে নির্বাচিত সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ না নেয়ায় সাংবিধানিক কারণে এখানে উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।
ফলে প্রধান দুটি রাজনৈতিক দল আওয়ামী লীগ ও বিএনপির সবকিছুই আবর্তিত হয় ওই নির্বাচন ঘিরে। নির্বাচনের কারনে বগুড়া জেলা বিএনপির নতুন আহ্বায়ক কমিটির মেয়াদ তিন মাসের জায়গায় ৬ মাস বাড়িয়ে নেয়। এরই মধ্যে কমিটির আহ্বায়ক জি এম সিরাজ বিএনপির মনোনয়ন পেয়ে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হলে দলে অপ্রতিদ্ব›িদ্ব হয়ে ওঠেন । তার কথাতেই এখন বগুড়া বিএনপিতো বটেই, কেন্দ্রীয় বিএনপিরও অনেক কিছু হচ্ছে বা ঘটছে বলে মনে করেন দলের নেতা কর্মিরা।
এদিকে অতি সম্প্রতি সিনিয়র আওয়ামী লীগ নেতা ও বগুড়া-১ সংসদীয় আসনের তিনবারের নির্বাচিত সংসদ সদস্য আব্দুল মান্নান আকস্মিক ইন্তেকাল করলে ফের সাংবিধানিক অনিবার্যতায় সেখানে আগামী ২৯ মার্চ অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে আরেকটি সংসদীয় উপনির্বাচন । ফলে প্রধান দুটি রাজনৈতিক দলেই ফের প্রেস্টিজ ইস্যু হয়ে উঠেছে উপানির্বাচনের সম্ভাব্য ফলাফল।
কেননা ২৯ মার্চ উপনির্বাচনে ব্যাপক জন সমর্থন থাকা সত্বেও যদি বগুড়া-১ সংসদীয় আসনে বিএনপি মনোনিত প্রার্থী আহসানুল তৈয়ব জাকির জিততে না পারেন তাহলে বগুড়া জেলা বিএনপির নতুন আহ্বায়ক কমিটি ও জিএম সিরাজ ভয়ানক সমালোচনার মুখে পড়বেন। কারো কারো ধারণা, তাঁর চেয়ার নিয়েও টানাটানি হতে পারে তখন । আবার যদি বগুড়া-১ সংসদীয় আসনে জিতে যায় তাহলে বিএনপিতে স্থানীয়/জাতীয় উভয় পর্যায়েই জি এম সিরাজ হয়ে উঠবেন আরও অপ্রতিদ্ব›িদ্ব !
একইভাবে বগুড়া-১ আসনে বিগত তিন টার্মেও এমপি মরহুম আব্দুল মান্নান যে উন্নয়নমুলক কাজ করেছেন, তারপরও আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পাওয়া মরহুমের বিধবা পত্মী সাহাদারা মান্নান শিল্পী যদি হেরে যান, তার পুরো দায় গিয়ে পড়বে জেলা আওয়ামী লীগের নতুন সভাপতি মজিবর রহমান মজনু ও সাধারণ সম্পাদক রাগেবুল আহসান রিপুর ওপর। আবার যদি বগুড়া আসনে সাহাদারা মান্নান শিরোপা বিজয়ী হন সেক্ষেত্রে বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মজনু ও সাধারণ সম্পাদক রিপুর ক্ষমতা ও কর্তৃত্ব আনেক বাড়বে বলে মনে করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ কর্মি ও সমর্থকরা ।
বগুড়ার ৭ টি সংসদীয় আসনের মধ্যে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের ২ জন (বগুড়া-১ ও বগুড়া-৫ আসনে, বিএনপির ২ জন (বগুড়া-৬ ও বগুড়া-৪), জাতীয় পার্টির ২ জন (বগুড়া-২ ও বগুড়া-৩) এবং স্বতন্ত্র ১ জন (বগুড়া-৭) নির্বাচিত হন। সম্প্রতি বগুড়া-১ আসনের সংসদ সদস্য আব্দুল মান্নানের আকস্মিক ইন্তেকালের পর বগুড়ায় এখন ১টি আসন রয়েছে আওয়ামী লীগের । অথচ এই ১জন মাত্র আওয়ামী লীগের এমপি যাকে মনে করা হয় সবেধন ‘নীলমনি।’ তাকে বর্তমানে অওয়ামী লীগে রাখা হয়েছে অনেকটা কোনঠাসা করে। বগুড়া ৫ আসনের আওয়ামী লীগের সাংসদ হাবিবর রহমান ওরফে এসপি হাবিব বিগত দিনগুলোর মনোনয়ন লড়াইয়ে বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মজিবর রহমান মজনুকে হারিয়ে দেয়ায় এখন অনুকুল পরিস্থিতির সুযোগ নিয়ে বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগের নব নির্বাচিত সভাপতি মজিবর রহমান মজনু তার ওপর প্রতিশোধ নিচ্ছেন বলে মনে করছেন দলের কর্মিদের অনেকেই।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন