ঢাকা, বুধবার, ২৭ মে ২০২০, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ০৩ শাওয়াল ১৪৪১ হিজরী

খেলাধুলা

‘বার্সেলোনার চে গুয়েভারা মেসি’

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১ এপ্রিল, ২০২০, ১২:০০ এএম

বার্সেলোনা বোর্ডের সঙ্গে খেলোয়াড়দের সম্পর্ক যে ভালো যাচ্ছে না তার প্রতিচ্ছবির দেখা মেলে খেলোয়াড়দের নানান সময়ের ভিন্ন ভিন্ন কথাতে। স¤প্রতিকালে বোর্ডের সঙ্গে আরো একবার দ্ব›েদ্ব জড়িয়েছেন লিওনেল মেসিরা। যদিও শেষে বোর্ডের প্রস্তাবে মেনে নিয়েছেন তারা। তবুও তা নিয়ে কম জল ঘোলা হয়নি। প্রস্তাব গ্রহণের সঙ্গে সঙ্গে বোর্ডের এক হাত নিয়েছেন বার্সেলোনার এই আর্জেন্টাইন কিংবদন্তি। আর তাতেই তাকে বার্সেলোনার চে গুয়েভারার উপাধি দিয়েছে ‘এল-ইকুইপ’ পত্রিকা। তাদের প্রথম পৃষ্ঠা জুড়ে লিওনেল মেসির কিউবার বিপ্লবী এক নেতার আকৃতির ছবি প্রকাশ করে স্প্যানিশ দৈনিকটি তাদের শিরোনাম করেছে, ‘লিওনেল মেসি, দ্য চে অব বার্সা।’ অর্থাৎ ‘লিওনেল মেসি বার্সেলোনার চে গুয়েভারা।’

ক্লাবের দেওয়া ৭০ শতাংশ বেতন কম নেওয়ার প্রস্তাবে রাজী হয়েছেন লিওনেল মেসিরা। তবে তার আগে পানি ঘোলা হয়ে অনেক। গতপরশু ইনস্টাগ্রামের পোস্টের মাধ্যমে মেসি জানান তারা ক্লাবের প্রস্তাবে রাজী। এর ঠিক এক ঘন্টা পর বার্সেলোনা অফিসিয়ালি ঘোষণা দেয় ফুটবলাররা তাদের প্রস্তাবে রাজী হয়েছে।

মেসি ইনস্টাগ্রামে লিখেছিলেন, ‘আমার মনে সময় এসেছে একটি ঘোষণা দেওয়ার। আমরা আমাদের বেতনের ৭০ শতাংশ কেটে নেওয়ার ব্যাপারে একমত হয়েছে। এর সঙ্গে আমরা আরও অর্থ যোগ করে একটি ব্যাপার নিশ্চিত করতে চাই, যাতে ক্লাবের স্টাফরা এই সঙ্কটের সময়ে শতভাগ বেতন পান। আমরা চেয়েছি ক্লাবের পাশাপাশি যারা এই মুহুর্তে আসলেই আক্রান্ত তাদেরকেও সাহায্য করতে। তাই সম্মিলিতভাবে একটি সঠিক উপায় খুঁজে বের করতে চেয়েছি আমরা। সে কারণে এতদিন আমাদের কাছ থেকে কোনো বিবৃতি পাওয়া যায়নি। খুব দ্রæতই আমরা এই সঙ্কট থেকে মুক্তি পাব। এবং এই সঙ্কট আমরা একসঙ্গে মোকাবিলা করব।’
এসময় বার্সেলোনার বোর্ডকেও এক হাত নিয়েছেন মেসি, ‘আমাদের নিয়ে অনেক কিছুই লেখালিখি হয়েছে। খেলোয়াড়দের নিয়ে এই জরুরি সময়েও অনেক কিছু লেখা হয়েছে। এটা নতুন কিছু নয়।’ মেসি মনে করিয়ে দেন এর আগেও তারা ক্লাবের পাশে ছিল এখনও ক্লাবের পাশেই আছেন। ‘এটা বিস্ময়ের নয় যে ক্লাব আমাদের এমন পরিস্থিতিতে ফেলেছে। তারা এটা আগেও করেছে। কিন্তু তারা এমন একটি বিষয়কে সামনে রেখে করেছে যেটা কিনা আমরা তাদের সঙ্গে একমত হতেই যাচ্ছিলাম।’

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন