ঢাকা, মঙ্গলবার, ০৭ জুলাই ২০২০, ২৩ আষাঢ় ১৪২৭, ১৫ যিলক্বদ ১৪৪১ হিজরী

সম্পাদকীয়

চিঠিপত্র

| প্রকাশের সময় : ২৮ এপ্রিল, ২০২০, ১২:০৩ এএম

ত্রাণ বিতরণে সেনাবাহিনীকে কাজে লাগান

সারাদেশে লকডাউন ঘোষণা করায় অতিদরিদ্র, দিন আনে দিন খায় মানুষগুলো ঘরে অবরুদ্ধ হয়ে পড়েছে। এসব দরিদ্র, অতিদরিদ্র, দিনমজুর, খেটে খাওয়া মানুষগুলোর আয় উপার্জনের পথ প্রায় বন্ধ। ফলে তাদের দুঃখ- দৈন্যের শেষ নেই। কিছুদিন আগে দেশের সচেতন নাগরিক সমাজের পক্ষ থেকে এসব অতিদরিদ্র মানুষের জন্য বিনামূল্যে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসসহ খাদ্য বিতরণের জন্য রাষ্ট্রীয় উদ্যোগ নেয়ার আহবান জানানো হয়। সচেতন নাগরিকগণ বলেন, পশ্চিমবঙ্গে যেখানে এসব নিম্নআয়ের মানুষদের জন্য মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি খাবারের ব্যবস্থা করেছেন সেখানে আমাদের প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনারও করা উচিৎ রাষ্ট্রের অভিভাবক হিসেবে এখানেও একই ব্যবস্থা করার। করোনাভাইরাসের কারণে লকডাউনে এসব নিম্নআয়ের মানুষের নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস ও ১০ টাকা কেজিতে চাল বিতরণের জন্য গত ২৫ মার্চ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণ দিয়েছেন। এরপর সাধারণ ছুটির মধ্যে রাজধানী ঢাকার বিভিন্ন ওয়ার্ডসহ বিভিন্ন জেলা-উপজেলা-গ্রাম-ইউনিয়ন পর্যায়ে প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিদের মাধ্যমে ১০ টাকা কেজিতে চাল বিতরণ শুরু হয়, যা পরে স্থগিত করে দেয়া হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বারবার বলছেন ত্রাণ বিতরণে দুর্নীতি কখনো সহ্য করা হবে না। তারপরেও চলছে অনিয়ম ও দুর্নীতি। এসব দুর্নীতির সাথে জড়িত থাকার কারণে অনেক চেয়ারম্যান-মেম্বার বরখাস্থ হচ্ছে, গ্রেফতার হচ্ছে। তাও বন্ধ করা যাচ্ছে না দুর্নীতি। সম্প্রতি ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল (টিআইবি) বলেছে, ‘ত্রাণ বিতরণে দলীয় কমিটি করলেও আরো দুর্নীতি আর ভাগ-ভাটোয়ারার সুযোগ সৃষ্টি হবে।’ এই প্রেক্ষাপটে বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ বলছেন, ত্রাণ বিতরণে সেনাবাহিনীকে কাজে লাগানো হোক। অতীতে সকল কাজে সেনাবাহিনী যেহেতু সফল হয়েছে তাই তালিকা প্রস্তুতসহ ত্রাণ বিতরণে সেনাবাহিনীকে দায়িত্ব দিলে তারা সুষ্ঠুভাবে অসহায় মানুষদের ত্রাণ দিতে পারবে। প্রতিটি দুর্যোগের সময়ে পৃথিবীর অন্যান্য দেশেও সেনাবাহিনী নামানো হয়। সুন্দর ও শৃঙ্খলিতভাবে লকডাউন পালন করতে যেখানে রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশে প্রশাসনকে সহায়তা করার জন্য আমাদের দেশপ্রেমিক সেনাবাহিনীকে নামানো হয়েছে তাই সরকারি ত্রাণ বিতরণের দায়িত্বটা দেশপ্রেমিক সেনাবাহিনীর হাতে দিলে ভালো হবে বলে অনেকে মনে করছেন। এমনকি কয়েকদিন আগে প্রধানমন্ত্রী ৫০ লক্ষ মানুষের জন্য রেশন কার্ড দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, এটাও সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে করা প্রয়োজন। আমরাও মনে করি, দেশপ্রেমিক সেনাবাহিনীকে এই দায়িত্বটা দিলে সহজে দুর্নীতি বন্ধ হবে।
মো. ইয়ামিন খান
শ্যামলী, ঢাকা।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন