ঢাকা, মঙ্গলবার, ০২ জুন ২০২০, ১৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ০৯ শাওয়াল ১৪৪১ হিজরী

সারা বাংলার খবর

বাউফলে ঘূর্নিঝড় আমফান মোকাবিলায় ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহন

বাউফল উপজেলা (পটুয়াখালী) সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৯ মে, ২০২০, ৭:১৪ পিএম

করোনা উদ্বেগের মধ্যেই বঙ্গোপসাগরে সৃষ্টি হওয়া ঘূর্নিঝড় আমফানের আঘাতে সম্ভাব্য ক্ষতি মোকাবিলায় পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহন করা হয়েছে। ইতিমধ্যে উপজেলা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল মোতালেব হাওলাদারের সভাপতিত্বে গত রোববার দুপুরে ঘূর্নিঝড় প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এরপর সোমবার বিকেলে আবহাওয়া দপ্তর পায়রা সমুদ্র বন্দর এলাকায় সাত নম্বার বিপদ সংকেত দেখিয়ে যেতে বলায় গতকাল সোমবার রাত সাড়ে আটটায় ওই কমিটির সহসভাপতি উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা জাকির হোসেন এর সভাপতিত্বে ঘূর্নিঝড় মোকাবিলার জন্য একটি জরুরী সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা রাজিব বিশ্বাস বলেন, সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে স্থানীয় ব্যক্তিরা যাতে আশ্রয় নিতে পারেন, সে জন্য ১৫৭ টি সাইক্লোন শেল্টার কেন্দ্র প্রস্তুত রাখা হয়েছে। দুর্যোগ পরিস্থিতে সার্বক্ষনিকভাবে তদারকি করার জন্য উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তার কার্যলয়ে নিয়ন্ত্রনকক্ষ খোলা হয়েছে। দুর্যোগকালীন সময় ক্ষয়ক্ষতি বা খাদ্য সংকট দেখা দিলে নিয়ন্ত্রন কক্ষের (০১৭৪৯৪৯৬৯৫৫) নম্বরে যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে। ঘূর্নিঝড় আম্পানে নদীর তীরবর্তী সাতটি ইউনিয়নের ক্ষয়ক্ষতির সম্ভাবনা বেশী থাকায় ওই সব ইউনিয়নের প্রতি বেশী গুরুত্ব দেয়া হয়েছে। প্রাথমিক পর্যায়ে প্রতিটি ইউনিয়নে ঘূর্নিঝড় প্রস্তুতি কর্মসূচীর কাজ করার জন্য ১২/১৫ জনের একটি সেচ্ছাসেবক দল প্রস্তুত রাখা হয়েছে। দুর্যোগের পরিস্থিতি বিবেচনা করে এর সংখ্যা বাড়ানো হবে।
এদিকে আজ মঙ্গলবার সকাল থেকে সূর্যোজ্জ্বল আবহাওয়ায় দেখা গেলেও দুপুরের পরে আকাশ কিছুটা থমথমে আর ভ্যাপসা গরম ছাড়া ঘূর্নিঝড় ‘আম্পানের’ আর কোন ধরণের প্রভাব এখন পর্যন্ত লক্ষ্য করা যায়নি। চলতি শতাব্দিতে বঙ্গোপসাগরে এটিই প্রথম সুপার সাইক্লোন ও ২০০৭ সালের সিডরের চেয়েও শক্তিশালী উল্লেখ করে সাইরেন বাজিয়ে ও মাইকিং করে সতর্ক করা হচ্ছে সর্বসাধারনকে।
উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা জাকির হোসেন বলেন, ঘূর্নিঝড় আম্পানের আঘাত মোকাবিলা করার জন্য উপজেলা প্রশাসন সম্পূর্নভাবে প্রস্তুত রয়েছে। ইতিমধ্যে পনেরটা ইউনিয়নের জন্য ১৫ টি মেডিকেল টিম গঠন করা হয়েছে। সার্বিকভাবে দেখাশুনার জন্য কন্ট্রোলরুম খোলা হয়েছে। প্রস্তুত রাখা রয়েছে ফায়ার সার্ভিসও । তাছাড়া স্ব-স্ব ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও মেম্বারদেরকে সার্বিকভাবে তদারকি করার জন্য নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন