ঢাকা বুধবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৮ আশ্বিন ১৪২৭, ০৫ সফর ১৪৪২ হিজরী

সারা বাংলার খবর

ঢাকা-টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কে ৫০ কি.মি এলাকাজুড়ে থেমে থেমে যানজট

টাঙ্গাইল জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৩১ জুলাই, ২০২০, ১:৫৩ পিএম

ঢাকা-টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কের মির্জাপুরের গোড়াই থেকে বঙ্গবন্ধু সেতু পর্যন্ত শুক্রবার ভোর থেকে ৬৫ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে থেমে থেমে যানজটের সৃষ্টি হয়। দুপুরের দিকে যানজটের তীব্রতা কমে বঙ্গবন্ধুসেতু থেকে মির্জাপুর পর্যন্ত ৫০ কিলোমিটার থেমে থেমে চলছে গাড়ী। এতে করে চরম দুর্ভোগে পড়েছে ঈদে ঘরমুখো মানুষ। মহাসড়কে পশুবাহি ট্রাক ও যাত্রীবাহি বাসের সংখ্যা কয়েকগুন বেড়ে গেছে। এছাড়া বঙ্গবন্ধু সেতুর টোল প্লাজা ৮৯ মিটিন বন্ধ থাকা এবং ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের ৪ লেনের গাড়ী এলেঙ্গা থেকে বঙ্গবন্ধুসেতু পর্যন্ত দুই লেনে প্রবেশ করার কারনেই এ মহাসড়কে থেমে থেমে যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে। এতে করে চরম ভোগান্তি পরেছে যাত্রী সাধারন ও পরিবহন চালকরা।
মাক্রোবাসের এর চালক জানায়, ঢাকা থেকে টাঙ্গাইল পর্যন্ত আসতে সময় লাগলো প্রায় ১০ ঘন্টা। ভোর ৪ টায় রওয়ানা দিয়েছি। পুরো রাস্তায় একটু একটু করে গাড়ী চলতেছে। কোথাও কোথাও দীর্ঘ সময় বসে থাকতে হয়েছে। এখন আর যেতে মন চায় না।
যাত্রীরা জানান, রাত ২ টায় নিজের গাড়ী নিয়ে রওয়ানা দিয়েছি, এখন আসলাম টাঙ্গাইল। সকালে খাওয়া-দাওয়া গাড়ীতেই কোন রকমে শেষ করছি। দেশের এই পরিস্থিতি তারপরও এরকম জ্যামে পরবো চিন্তা করতে পারিনি। দেশের পুলিশ ও স্বেচ্ছাসেবক, সাংবাদিক কি করতে পারছে। আমাদের কষ্ট সব সময় থাকবেই।
টাঙ্গাইলের পুলিশ সুপার সঞ্জিত কুমার রায় জানান, মহাসড়কে গত চব্বিশ ঘন্টায় ৪৮ হাজার ৩শ ২১টি গাড়ি আসা যাওয়া করেছে। বঙ্গবন্ধু সেতুর উপর চাপ কমানোর জন্য টোল প্লাজা ৮৯ মিনিট বন্ধ রাখা হয়। এ কারনে এ যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে। তবে পুলিশ সর্বাত্মক কাজ করে যাচ্ছে। আগামী দুই তিন ঘন্টার মধ্যে যান চলাচল স্বাভাবিক হবে বলে তিনি জানিয়েছেন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
গোলাম মোস্তফা ১ আগস্ট, ২০২০, ১:০৭ পিএম says : 0
আমি নিজে গতকাল নিদারুন কষ্টকর এ ভ্রমনের একজন ভূক্তভোগী। ঢাকার গাবতলী থেকে টাংগাইলের এলেংগা পর্যন্ত প্রায় পুরো রাস্তায়ই তীব্র যানযট ছিলো। রাস্তায় যাত্রীবাহী গাড়ীর চাইতে ট্রাকের সংখ্যা বেশী ছিলো; মূলত, এ কারনেই তীব্র যানযটের সৃষ্টির ফলে ঈদে ঘরমুখো যাত্রীদের অবর্ণনীয় দূর্ভোগ পোহাতে হয়। বেশির ভাগ ট্রাক ছিলো খালি এবং কোন কোন ট্রাকে প্যাসেন্জার। কথা হলো-ঈদের আগেরদিন কেন এতোগুলো ট্রাক রাস্তায় ছাড়া হলো? মনে হয়, এ দেশে আমজনতার কথা ভাববার কেও নেই।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন