ঢাকা রোববার, ১৭ জানুয়ারি ২০২১, ০৩ মাঘ ১৪২৭, ০২ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী

শান্তি ও সমৃদ্ধির পথ ইসলাম

পৃথিবীতে প্রথম মূর্তিপূজা

উবায়দুর রহমান খান নদভী | প্রকাশের সময় : ২ ডিসেম্বর, ২০২০, ১২:০০ এএম

হযরত আদম (আ.) থেকে মানবজাতির সূচনা। এরপর শীষ (আ.) ও ইদরীস (আ.) নবী হন। প্রায় দুই হাজার বছর পর হযরত নূহের যুগ। তখনই প্রথম মানুষ আল্লাহকে অস্বীকার করে আর কিছু মানুষ আল্লাহর সাথে শরীক করে। এদের দ্বারাই প্রথম মূর্তিপূজা সংঘঠিত হয়। মূর্তিপূজা আসলে পূজা হিসেবে শুরু হয়নি। এসব হয়েছিল শ্রদ্ধা নিবেদন থেকে। স্মৃতি তর্পণ থেকে। নূহ (আ.)-এর আগেকার জাতি সবাই ছিল তাওহীদে বিশ্বাসী। তারা কেবল আল্লাহরই ইবাদত করত। তখন পর্যন্ত বিস্তারিত শরীয়ত নাযিল হয়নি।

মানবজাতির প্রাথমিক সময়, সভ্যতার ঊষালগ্ন তখন। জীবন, জগৎ ও সভ্যতা বিষয়ই আল্লাহর ওহী আসত। বিস্তারিত জীবন বিধান আসতে শুরু করে হযরত নূহের যুগে। আদিযুগের মানুষের মধ্যে সৎ, মহৎ ও অধিক খোদাভীরু লোকেদের মৃত্যুর পর তাদের ভক্তরা শোক ও দুঃখ ভুলার জন্য এবং তাদের স্মৃতিকে জাগরুক রাখার জন্য পাথরে তাদের প্রতিকৃতি আঁকে।

পরের প্রজন্ম ছোটবেলা দেখা সেই প্রতিকৃতি যা রোদ বৃষ্টি ঝড়ে মুছে গিয়েছিল সেসব খোদায় করে ভাস্কর্য তৈরি করে। এরপরের প্রজন্ম আরও মমতা মিশিয়ে পাথর কেটে ছেটে নিপুণ মূর্তি তৈরি করে। তখন এসব তারা উঠান, বাজার ও চত্বরে স্থাপন করেছিল। পরের প্রজন্ম এসবকে উপাসনার স্থানে স্থাপন করে ঘরটিকে দেবালয়ে রূপ দেয়।

শুরুতে তারা আল্লাহর ইবাদতের ঘরে পেছনের দেওয়ালে মূর্তিগুলো ঠেস দিয়ে রাখে। মূলত তারা আল্লাহরই ইবাদত করত। বলতো, এসব মূর্তি আমাদের প্রভু নয়। আমরা এদের ইবাদতও করি না। আল্লাহর এসব প্রিয় বান্দা আর মহৎ ব্যক্তিকে স্মরণ ও শ্রদ্ধার মাধ্যমে আল্লাহর নৈকট্য লাভেরই চেষ্টা করি মাত্র।

দু’য়েক প্রজন্ম পর শ্রদ্বেয় ব্যক্তিদের পেছনে রাখাটা আর তাদের ভালো লাগেনি। ইবাদতখানার সামনের দেওয়ালে এসব মূর্তি স্থাপিত হয়। নূহ (আ.) প্রথম এই ক্রমান্বয়ে প্রচলিত শিরকের প্রথম সংশোধনকারী। ৯৫০ বছর তিনি এসব মানুষকে হেদায়াতের দাওয়াত দিয়েছেন। কিন্তু খুব সামান্য লোকই তারা ডাকে সাড়া দেয়। বাকি সব মানুষ তাদের বাপদাদার সংস্কৃতি ও মনগড়া শিরকী চেতনা ছাড়তে সম্মত হয়নি।

মহান আল্লাহ বিষয়টি এভাবে বলেছেন, তাদের নেতারা বলল, তোমরা (নূহ আ. এর কথায়) তোমাদের দেবতাদের ত্যাগ করো না। তোমরা ছেড়ে দিও না, ওয়াদ, সুয়া, ইয়াগুছ, ইয়াউক ও নাসরকে। (সূরা নূহ : আয়াত ২৩)।

হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আব্বাস (রা.) বলেন, কোরআনে বর্ণিত ওয়াদ, সুয়া, ইয়াগুছ, ইয়াউক ও নাসর হচ্ছে, নূহ (আ.) এর কওমের কিছু মহৎ লোকের নাম। তাদের মৃত্যুর পর শয়তান জনগণকে বোঝালো, তোমরা এসব ব্যক্তির বৈঠকখানার পাশে একটি ভাস্কর্য তৈরি করো। প্রতিটি ভাস্কর্যকে তোমরা সেই মহৎ ব্যক্তির নামে নামকরণ করবে।

অতএব তারা শয়তানের প্ররোচনায় ভাস্কর্য তৈরি করল বটে, কিন্তু কোনোদিনই সেগুলোর উপাসনা করেনি। অবশ্য কিছুদিন পর নতুন প্রজন্মের লোকজন ভক্তি ও স্মৃতির সীমা লংঘন করে এসব মূর্তির উপাসনা শুরু করে। (সহীহ বুখারী : ৪৬৩৬;)।

মূর্তিপূজা প্রথম উপাসনা বা পূজা হিসেবে শুরু হয়নি। হয়েছিল শ্রদ্ধা জ্ঞাপনের মাধ্যমে। স্মৃতি তর্পণের মাধ্যমে। প্রজন্মান্তরে এসব ভাস্কর্য ও মূর্তি আল্লাহর আসন দখল করে নেয়। (নাউযুবিল্লাহ)। আদম (আ.) থেকে নূহের আগ পর্যন্ত পৃথিবী তাওহীদে ভরপুর ছিল। মানবজাতি ছিল শিরকমুক্ত। মহৎ লোকের ভাস্কর্যই ঈমানদার মানবজাতির জন্য কাল হয়ে দাঁড়ালো।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (24)
Engr Amirul Islam ২ ডিসেম্বর, ২০২০, ২:৪৬ এএম says : 0
In time writing as this happening in Bangladesh now.
Total Reply(0)
মনিরুজ্জামান ২ ডিসেম্বর, ২০২০, ২:০৯ এএম says : 0
লেখাটির জন্য লেখক ও দৈনিক ইনকিলাবকে অসংখ্য মোবারকবাদ জানাচ্ছি
Total Reply(0)
Zahid Hossain ২ ডিসেম্বর, ২০২০, ৩:০৮ এএম says : 0
আল্লাহ তায়ালা আমাদের সকল প্রকার শিরক থেকে বেঁচে থাকার তাওফিক দিন।
Total Reply(0)
মাজহারুল ইসলাম ২ ডিসেম্বর, ২০২০, ৩:০৮ এএম says : 0
হে আল্লাহ শিরক স্থাপনকারী ব্যক্তিদের হেদায়েত দিন।
Total Reply(0)
রুহান ২ ডিসেম্বর, ২০২০, ৩:০৯ এএম says : 0
আল্লাহ সকল মুসলিমরা শিরক হইতে বেঁচে থাকতে পারে সেই ব্যবস্থা করে দিন।
Total Reply(0)
Md.Azizul Haque ২ ডিসেম্বর, ২০২০, ৫:৫০ এএম says : 0
লেখাটির জন্য লেখক ও দৈনিক ইনকিলাবকে অসংখ্য মোবারকবাদ জানাচ্ছি
Total Reply(0)
Engr Amirul Islam ২ ডিসেম্বর, ২০২০, ৭:৪৯ এএম says : 0
In time writing as this happening in Bangladesh now.
Total Reply(0)
habib ২ ডিসেম্বর, ২০২০, ৯:৫২ এএম says : 0
Bortoman sorkare kono imandar lok ki ache jader islam sompor ke kono gann ache?
Total Reply(0)
Aber ২ ডিসেম্বর, ২০২০, ৯:০৩ এএম says : 0
Whoever Involved this kind of Shirk! only way for them Jahannam!
Total Reply(0)
Md Nazrul Islam ২ ডিসেম্বর, ২০২০, ৯:২৬ এএম says : 0
In the light of article where quoting is taken from Quran and Hadith, there is no difference between sculpture and statue, I do not know who will give opinion for making sculpture,Alam or atheist or general people ?
Total Reply(0)
মুহাম্মাদ নূরুল্লাহ ২ ডিসেম্বর, ২০২০, ৯:৫৮ এএম says : 0
জাযাকাল্লাহু ফি হায়াতী, সংকলক, প্রকাশক সকলকে আন্তরিক মুবারক।
Total Reply(0)
মুহাম্মাদ নূরুল্লাহ ২ ডিসেম্বর, ২০২০, ৯:৫৮ এএম says : 0
জাযাকাল্লাহু ফি হায়াতী, সংকলক, প্রকাশক সকলকে আন্তরিক মুবারক।
Total Reply(0)
Abul Kalam ২ ডিসেম্বর, ২০২০, ১০:৩৩ এএম says : 0
প্রকাশকে আন্তরিক মুবারক।
Total Reply(0)
Saem ২ ডিসেম্বর, ২০২০, ১০:৩৬ এএম says : 0
আল্লাহর সাথে শরীক করা থেকে আল্লাহ আমাদের হেফাযত করুক আমিন। আল্লাহর সাথে কোন কিছুকে শরীক করলে,আল্লাহর পরিবর্তে অন্য কিছুুর ইবাদত করলে সে জান্নাতে প্রবেশ করতে পারবে না।আল্লাহ আমাদের সবাইকে এই জগন্য কাজ থেকে হেফাজত করুন, আমিন।
Total Reply(0)
সাইফুল ইসলাম ২ ডিসেম্বর, ২০২০, ১১:৩২ এএম says : 0
আল্লাহ্ আপনি পৃথিবীর সমস্ত মানুষকে শিরকের গুনাহ্ থেকে রক্ষা করুন । আমিন!
Total Reply(0)
Saem ২ ডিসেম্বর, ২০২০, ১০:৪০ এএম says : 0
আল্লাহর সাথে শরীক করা থেকে আল্লাহ আমাদের হেফাযত করুক আমিন। আল্লাহর সাথে কোন কিছুকে শরীক করলে,আল্লাহর পরিবর্তে অন্য কিছুুর ইবাদত করলে সে জান্নাতে প্রবেশ করতে পারবে না।আল্লাহ আমাদের সবাইকে এই জগন্য কাজ থেকে হেফাজত করুন, আমিন।
Total Reply(0)
সালাউদ্দিন গাজী । ২ ডিসেম্বর, ২০২০, ৮:১৭ পিএম says : 2
মূর্তি আর ভাস্কর্য নির্মাণের লোকজন ধ্বংস হোক ।
Total Reply(0)
Montasir Mahmud ২ ডিসেম্বর, ২০২০, ৮:৫৩ পিএম says : 0
ইসলামের এই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলো না জেনে যারা ক্ষমতার চেয়ারে বসে যায় তাদের মত অজ্ঞ মানুষ আর কোথাও নেই
Total Reply(0)
Mdimamhossain ৩ ডিসেম্বর, ২০২০, ১২:১৫ পিএম says : 0
Dailyinqiab কে অনেক অনেক ধন্যবাদ আপনাদের এইরকম পোষ্ট দেয়ার জন্য ❤️????????????????????????
Total Reply(0)
Ramjan ali ৪ ডিসেম্বর, ২০২০, ১০:৫৮ এএম says : 0
সংক্ষেপে সুন্দর তথ্য পরিবেশেনের জন্য ধন্যবাদ।
Total Reply(0)
সাঈদুর রহমান ৭ ডিসেম্বর, ২০২০, ৮:১৪ পিএম says : 0
কিছু বলার নেই বর্তমান যুগের শ্রেষ্ঠ একটা পোষ্ট ধন্যবাদ ইনক্বিলাব কে
Total Reply(0)
shyamal kumar chakrabartty ১২ ডিসেম্বর, ২০২০, ৯:৪৭ এএম says : 2
purai mithaa kotha karon 5500 bosor purber vogoban srikisnor murti ase.
Total Reply(2)
এন ইসলাম ১৪ ডিসেম্বর, ২০২০, ১১:৫০ পিএম says : 1
আপনি বিশ্বাস না-ই করতে পারেন, কিন্তু "মিথ্যাকথা" মন্তব্যটি কি ঠিক হলো ?
মুহাম্মাদ তানভীর হুসাইন ৬ জানুয়ারি, ২০২১, ৩:৫৯ পিএম says : 0
দাদা, আপনি যথাযথভাবে প্রবন্ধটি পড়ুন। প্রবন্ধে বলা হয়েছে কি উদ্দেশ্যে ভাস্কর্য/মূর্তি তৈরী হয়েছিল, এবং কিভাবে তা উপাস্যে পরিণত হয়েছে। তাছাড়া, সনাতন ধর্মেও মূর্তি পূজাকে সমর্থন করে কোন শ্লোক আপনি দেখতে বা দেখাতে পারবেন না। আপনার ধর্মেই বলা হয়েছে ভগবান এক ও অবিনশ্বর, আকারহীন।
Moazzem Hossain ১২ ডিসেম্বর, ২০২০, ১১:১৮ এএম says : 0
Masha Allah,
Total Reply(0)
Md. Zahidul Islam (Zahid) ২৯ ডিসেম্বর, ২০২০, ১১:২২ এএম says : 0
সংক্ষেপে সুন্দর তথ্য পরিবেশেনের জন্য ধন্যবাদ।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন