মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১০ কার্তিক ১৪২৮, ১৮ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

শুরু হয়নি করোনা পরীক্ষা বাতিল হলো দুবাই ফ্লাইট

অনুমতি মেলেনি আমিরাতের

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১২:০১ এএম

হযরত শাহজালাল (রহ.) আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে স্থাপিত ৬টি আরটিপিসিআর ল্যাবে শুরু হয়নি দুবাইগামী যাত্রীদের করোনা পরীক্ষা। ঠিক কবে বা কখন থেকে বিমানবন্দরে এই কার্যক্রম শুরু হবে তাও নিশ্চিত করতে পারেননি বেসামরিক বেসামরিক বিমান ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী।
এদিকে দুবাইগামী গতকালের বিশেষ ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে। এতে করে ভোগান্তিতে পড়েছেন বিভিন্ন জেলা থেকে বিমানবন্দরে আসা প্রবাসী বাংলাদেশিরা। অবশেষে কাজে ফিরতে পারছেন- এমন আশা নিয়ে গতকাল সকালে বিমানবন্দরে এসে হতাশ হতে হয়েছে দুবাইগামী প্রবাসী বাংলাদেশিদের। বিমান বন্দরে আসার পর তাদেরকে জানানো হয়, বিমানবন্দরে স্থাপিত আরটিপিআর ল্যাবে তাদের করোনার নমুনা পরীক্ষার কার্যক্রম শুরু হয়নি।

অথচ প্রায় ১ মাসের কর্মযজ্ঞ শেষে গতকাল থেকে দুবাইগামীদের করোনা পরীক্ষা শুরু হবে- এমন খবর জেনেই তারা এসেছিলেন বিমানবন্দরে। এই ভোগান্তির শেষ চান দেশের অর্থনীতিকে মজবুত করতে বিদেশের মাটিতে ঘাম ঝরানো প্রবাসীরা। বিমানবন্দরে ল্যাব বসানোর কার্যক্রম শেষ হলেও দুবাই থেকে মেলেনি করোনা পরীক্ষা শুরুর সবুজ সঙ্কেত।
ঠিক কবে শেষ হবে দুবাইগামী প্রবাসীদের ভোগান্তি তা-ও নিশ্চিত করে জানাতে পারেননি বেসামরিক বিমান পরিবহন প্রতিমন্ত্রী। তিনি বলেন, করোনা পরীক্ষা শেষ না করে দুবাই পাঠালে তাদের আবারও দেশে ফেরত আসতে হতে পারে। তাই অনুমোদনপত্র পেলেই পরীক্ষা শুরু হবে। তবে কবে নাগাদ এই কার্যক্রম শুরু হতে পারে তা নির্দিষ্ট করে জানাতে পারেননি প্রতিমন্ত্রী।

এদিকে, বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের (বেবিচক) চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল এম মফিদুর রহমান বলেন, আমরা চাচ্ছি, স্বাস্থ্য অধিদফতর বিমানবন্দরে যে ল্যাবটি বসিয়েছে, এটা যেন ব্যবহার করে যাত্রীরা যেতে পারেন। বিমানবন্দরে যে ছয় প্রতিষ্ঠানের ল্যাব আছে,এগুলোর অনুমোদন যদি গতকাল বিকালের মধ্যে হয়ে গেলে ফ্লাইট চলাচল শুরু হত। বিশেষ ফ্লাইট আপাতত আর দেবো না। গতকাল দুপুরে বিমানবন্দরে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন।

বেবিচক চেয়ারম্যান বলেন, গতকালও এমিরেটসের একটি ফ্লাইট ছিল। আমি সেটি বাতিল করে দিয়েছি। তাদের একটু চাপে রাখার কারণে এটা করেছি। আরব আমিরাতের নির্দেশনা অনুসারে- বিমানবন্দরে করোনা পরীক্ষার ব্যবস্থা করা হয়েছে, যেটা গত সোমবার প্রস্তুত হয়েছে এবং গতকাল থেকে শুরু হওয়ার কথা ছিল। সঙ্গত কারণেই গতকাল যাত্রীরা যেতে পারেননি। এর কারণ হলো, ছয় বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের পরীক্ষার স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিউরে (এসওপি) আমিরাতের সম্মতি থাকতে হবে। এটি আমরা দুই সপ্তাহ আগেই পাঠিয়ে দিয়েছিলাম। সেখানে এটা এখনও বিবেচনায় আছে।

মফিদুর রহমান বলেন, এসওপির সম্মতি দ্রুত করার চেষ্টা চালানো হচ্ছে। তবে সোমবার পর্যন্ত এটা হয়নি। এসওপি সম্মতি না পাওয়ায় শুরু করা যায়নি। ছয়টি প্রতিষ্ঠান কেন, আমিরাত সে প্রশ্ন তুলেছিল। একটা প্রতিষ্ঠান হলে আমিরাতের সুবিধা হবে। ছয় প্রতিষ্ঠানের একেক প্রতিষ্ঠানের একেক ধরনের যন্ত্র। এটার টেকনিক্যাল দিকটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। আমিরাত জানতে চেয়েছে, কে কীভাবে করতে চায়, এ জন্যই ছয়টি আলাদা এসওপি হয়েছে। এসওপিগুলো দূতাবাসের মাধ্যমে পাঠানো হয়েছে। আমিরাতের কমিটি যাচাই-বাছাই করছে। আমাকে দু’জন রাষ্ট্রদূত জানিয়েছেন, এটা শেষ পর্যায়ে আছে। আমার ধারণা সবাই অনুমোদন পাবে।

বেবিচক চেয়ারম্যান বলেন, আরব আমিরাতের অনুরোধে ও এমিরেটসের উদ্যোগে কয়েকটা ফ্লাইট গেছে পরীক্ষামূলকভাবে। এসব ফ্লাইটে ব্যবসার উদ্দেশ্যে এবং জরুরি কিছু যাত্রী পাঠানো ব্যবস্থা করে দূতাবাস। এই যাত্রীদের পরীক্ষার জন্য ছয় প্রতিষ্ঠানের মধ্যে একটি সংস্থাকে নির্বাচিত করে আমিরাত। সেই প্রতিষ্ঠানে করোনার পরীক্ষার পর তাদের আমিরাতে পাঠানো হয়েছে। দুইটি ফ্লাইট এভাবে গেছে। বেবিচক তাদের অনুরোধ রক্ষা করেছে।

উল্লেখ্য, গত ৩০ আগস্ট বিমান উড়ার ৬ ঘণ্টা আগে বাংলাদেশ থেকে দুবাইগামী যাত্রীদের বিমানবন্দরে র‌্যাপিড পিসিআর টেস্ট বাধ্যতামূলক করে নির্দেশনা জারি করে সংযুক্ত আরব আমিরাত। সেই নির্দেশনা আমলে নিয়ে বিমানবন্দরে ৬টি আরটিপিসিআর ল্যাব স্থাপন করেছে সরকার।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন