বুধবার, ০৫ অক্টোবর ২০২২, ২০ আশ্বিন ১৪২৯, ০৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরী

ইসলামী জীবন

কিশোর অপরাধ : আইনি ও ইসলামী দৃষ্টিকোণ

মুহাম্মাদ মনজুর হোসেন খান | প্রকাশের সময় : ৫ নভেম্বর, ২০২১, ১২:০৯ এএম

ফলে শিশু-কিশোররা ত্রুটিপূর্ণ আচার-আচরণ ও সামাজিক দৃ’িভঙ্গি নিয়ে বেড়ে উঠে। ‘আব্দুল হামীদ আশ-শাওয়ারাবী, জারাঈমূল আহদাছ, আল-ইস্কান্দারীয়া : দারুল মাতবা’আতিল জামি’ঈয়্যাহ, ১৯৮৬ খ্রি., পৃ. ২১; আব্দুল হাকিম সরকার, অপরাধবিজ্ঞান তত্ত্ব ও বিশ্লেষণ, প্রাগুক্ত, পৃ . ১৬৭’। এ প্রসঙ্গে অধ্যাপক আফসার উদ্দিন কর্তৃক পরিচালিত অনুসন্ধানটি উল্লেখ করা যেতে পারে। সেখানে দেখা যায় যে, কিশোর অপরাধীদের শতকরা ৩৭ ভাগ ভগ্ন পরিবার থেকে আগত। ‘ড. এ. .এইচ. এম. মোস্তাফিজুর রহমান, সামাজিক সমস্যা, ঢাকা : লেখা-পড়া, ২০১১ খ্রি., পৃ. ২৮৬’। অন্যদিকে বাসস্থানের অনুপযুক্ত পরিবেশ কিশোর অপরাধের অন্যতম প্রভাবক হিসেবে কাজ করে। যেমন নিম্নমানের গৃহায়ণ ও বস্তি এলাকার পরিবেশে শিশু-কিশোররা জীবনের ন্যূনতম সুযোগ সুবিধা থেকে বঞ্চিত হয়ে বিচ্যুত আচরণ দ্বারা তারা তাদের আশা আকাক্সক্ষা ও চাহিদা পূরণে সচে’ হয়। এভাবেই বাসস্থানের খারাপ পরিবেশ কিশোর-কিশোরীদের অপরাধ প্রবণতার দিকে ঠেলে দেয়। ‘আহ্মাদ মুহাম্মদ কুরাইষ, আর-রিয়া’আতুল ইজতিমা’ইয়া, প্রাগুক্ত, পৃ. ১৮১-১৮৪; আনোয়ার মুহাম্মদ আশ-শুরকাবী, ইনহিরাফুল আহ্দাছ, আল-কাহেরা : দারুছ ছাকাফাহ, ১৯৭৭ খ্রি., পৃ. ৯৯-১০৮; প্রফেসর মো. আতিকুর রহমান, সামাজিক সমস্যা ্ বেং সমস্যা বিশ্লেষণ কৌশল, প্রাগুক্ত, পৃ. ২৭৫’।

অর্থনৈতিক কারণ : অর্থনৈতিক অবস্থা উল্লেখযোগ্যভাবে কিশোর অপরাধের মাত্রাকে প্রভাবিত করে। দরিদ্রতা ও সম্পদের প্রাচুর্য উভয়ই প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে কিশোর অপরাধ সংগঠনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। দরিদ্রতার কারণে মৌলিক চাহিদা পূরণে ব্যর্থ হয়ে কিশোররা বিভিন্ন প্রকারের অপরাধে লিপ্ত হয়ে থাকে। এ জন্যই রাসূলুল্লাহ স. কুফরীর পাশাপাশি দরিদ্রতা থেকেও আল্লাহর নিকট আশ্রয় প্রার্থনা করে বলেন, ‘হে আল্লাহ! আমি আপনার নিকট কুফরী ও দরিদ্রতা থেকে আশ্রয় প্রার্থনা করছি।’ ‘আস-সূয়ূতী, শারহু সুনানিন নাসাঈ, বৈরূত : দারুল কিতাবিল ‘আরাবী তা.বি., খ, ৮, পৃ. ২২৬; শায়খাইন এর শর্তানুযায়ী হাদীসটির সনদ সহীহ, আল-হাকিম আন-নায়শাপুরী, আল-মুসতাদরাক ‘আলাস সহীহাইন, অধ্যায় : আল-মানাসিক, অনুচ্ছেদ : আদ্ দু’আ ওয়াত তাকবীর ওয়াত তাহলীল ওয়াত তাসবীহ ওয়ায যিকর, আল-মাকতাবাতুশ শামিলাহ : ২য় সংস্করণ, খ. ৪, পৃ. ৪৯২, হাদীস নং-১৮৯৯’। অন্য একটি হাদীসে বলা হয়েছে, দরিদ্রতা কুফরী ডেকে আনে। ‘আল-বায়হাকী, শু’আবুল ঈমান, অনুচ্ছেদ : আল-হাছ্ছু ‘আলা তারাকিল গিল্লি ওয়াল হাসাদ, আল-মাকতাবাতুশ শামিলাহ, ২য় সংস্করণ, খ. ১৪, পৃ. ১২৫, হাদীস নং-৬৩৩৬; হাদীসটির সনদ য’ঈফ মুহাম্মাদ নাসিরুদ্দীন আল-আলবানী, সিলসিলাতুল আহদাছিল যা’ঈফাহ ওয়াল মাওযূ’আহ ওয়া আছারুহাছছায়্যি ফীল উম্মাহ, রিয়া : দারুল মা’আরিফ, ১৪১২ হি., হাদীস নং-৪০৮০’। তেমনিভাবে সম্পদের প্রাচুর্যের অপব্যবহার শিশু-কিশোরদেরকে অন্যায়, অপকর্ম ও অপরাধে লিপ্ত হতে সহায়তা করে। মহান আল্লাহ এ বাস্তবতাকে স্মরণ করে দিয়ে বলেন, আল্লাহ তার বান্দাদেরকে জীবনোপকরণে প্রাচুর্য দিলে তারা জমীনে বিপর্যয় সৃষ্টি করতো। ‘আল-কুরআন, ৪২ : ২৭’।
সামাজিক কারণ : কিশোর অপরাধ সংঘটনের ক্ষেত্রে পারিপার্শ্বিক সামাজিক পরিবেশের প্রভাব অপরিসীম। বিধায় আবাসিক পরিবেশ, সঙ্গীরে প্রভাব, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের দূর্বলতা, সামাজিক শোষণ-বঞ্চনা ইত্যাদি সামাজিক উপাদানগুলো শিশু-কিশোরদের আচরণে প্রভাব বিস্তার করে থাকে।
আবাসিক পরিবেশ : শিশু-কিশোরদের নৈতিক ও সামাজিক আচরণের উপর আবাসিক পরিবেশের প্রভাব অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ। এজন্যই বাসস্থানের অনুপযুক্ত পরিবেশ (যেমন ঘনবসতিপূর্ণ বস্তি এলাকা) কিশোর-কিশোরীদের অপরাধমূলক কর্মকান্ডে ধাবিত করতে পারে। বিভিন্ন আবাসিক এলাকার উপর পরিচালিত গবেষণামূলক জরিপে প্রতীয়মান হয় যে, বস্তি এলাকার বিরাজমান সামাজিক পরিবেশই অপরাধমূলক আচরণের জন্য অনেকাংশে দায়ী। কেননা বস্তি এলাকার লোকজন সাধারণত অস্থায়ী বাসিন্দা হয় এবং তারা ঘন ঘন বাসস্থান পরিবর্তন করে। তাদের পরস্পরের মধ্যে সামাজিক সংযোগ ও সংহতি থাকে না। এরূপ পরিবেশে শিশুরা গৃহের বাইরে অবাধে অপরাধমূলক আচরণে লিপ্ত হয়। ‘প্রফেসর মঞ্জুর আহমদ, অস্বভাবী মনোবিজ্ঞান, ঢাকা : জ্ঞানকোষ প্রকাশনী, ২০১৩ খ্রি., পৃ. ২১২’।
সঙ্গদল : কিশোর অপরাধের ক্ষেত্রে সঙ্গদলের প্রভাব একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। কিশোর-কিশোরীরা এই বয়সে পরিবারের প্রভাবমুক্ত হয়ে স্বাধীনভাবে চলতে চায় এবং পাড়া-প্রতিবেশী. খেলার সাথী ও সমবয়সীদের সাথে মিলে মিশে একাকার হয়ে যায়। এধরনের সম্পর্কের মাধ্যমে শিশু-কিশোররা অত্যন্ত সহজে ও স্বতঃস্ফূর্তভাবে বিভিন্ন বিষয়ে শিক্ষা লাভ করতে পারে, যা পিতা-মাতা, আত্মীয়-স্বজন বা পরিবার-পরিজনের নিকট থেকে তা করতে পারে না। ‘ড. উত্তম কুমার দাশ ও অনিমা রাণী নাথ, মানবীয় বিকাশ আচরণ ও সামাজিক পরিবেশ, পৃ. ৬৫২’।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন