সোমবার, ১৬ মে ২০২২, ০২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৪ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

জামানত হারিয়েছেন ৫ মেয়র প্রার্থী

নাসিক নির্বাচন

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৮ জানুয়ারি, ২০২২, ১২:০০ এএম

সদ্য অনুষ্ঠিত নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরশন (নাসিক) নির্বাচনে সর্বনিম্ন ভোট পড়েছে একটি কেন্দ্রে ৩০ শতাংশ। আর সর্বোচ্চ ভোট পড়েছে ৮০ শতাংশ। নির্বাচন কমিশনের (ইসি) কেন্দ্রভিত্তিক ফলাফল বিশ্লেষণে এ তথ্য পাওয়া গেছে। তবে নির্বাচনে ৭ জন মেয়র প্রার্থীর মধ্যে ৫ জনই জামানত হারিয়েছেন।
ইসির তথ্য অনুযয়ী উত্তর চাষাড়ার এবিসি ইন্টারন্যাশনাল স্কুলে স্থাপিত দুই কেন্দ্রে ভোটার হচ্ছে চার হাজার ১১৭ জন। এদের মধ্যে ভোট দিয়েছেন এক হাজার ২৫৬ জন। অর্থাৎ কেন্দ্রেটিতে ভোট পড়েছে ৩০ শতাংশ। এ কেন্দ্রে বিজয়ী প্রার্থী সেলিনা হায়াৎ আইভি পেয়েছেন ৬৪৪ ভোট। আর তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী তৈমূর আলম খন্দকার পেয়েছেন ৪৪২ ভোট।
অন্যদিকে সর্বোচ্চ ভোট পড়েছে লক্ষাচরের ৫৪ নম্বর কেরামতিয়া সরকারি প্রাথমিক বালিকা বিদ্যালয় কেন্দ্রে। এখানে মোট ভোটার দুই হাজার ১৮০ জন। ভোট দিয়েছেন এক হাজার ৭৪২ জন। অর্থাৎ কেন্দ্রটিতে ভোট পড়েছে ৮০ শতাংশ। এ কেন্দ্রে আইভী এক হাজার ১৮২ ভোট আর তৈমুর পেয়েছেন ৩৫৬ ভোট।
৪০ শতাংশের নিচে এবং ৭০ শতাংশের ওপরে ভোট পড়েছে ১২টি করে মোট ২৪টি কেন্দ্রে। এ নির্বাচনে মোট ভোট পড়েছে দুই লাখ ৯১ হাজার ৩৮২টি। এর মধ্যে ৪৭১টি ভোট বাতিল হয়েছে।
মেয়র পদে ৭ জন প্রার্থীর মধ্যে আওয়ামী লীগের প্রার্থী সেলিনা হায়াৎ আইভী (নৌকা) পেয়েছেন এক লাখ ৫৯ হাজার ৯৭ ভোট, স্বতন্ত্র থেকে বিএনপি নেতা তৈমূর আলম খন্দকার (হাতি) পেয়েছেন ৯২ হাজার ৫৬২ ভোট, খেলাফত মজলিসের এবিএম সিরাজুল মামুন (দেওয়াল ঘড়ি) পেয়েছেন ১০ হাজার ৭২৪ ভোট, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মাও. মো. মাছুম বিল্লাহ (হাতপাখা) পেয়েছেন ২৩ হাজার ৯৮৭ ভোট, বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের মো. জসীম উদ্দিন (বটগাছ) পেয়েছেন এক হাজার ৩০৯ ভোট, বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির মো. রাশেদ ফেরদৌস (হাত ঘড়ি) পেয়েছেন এক হাজার ৯২৭ ভোট, স্বতন্ত্র প্রার্থী কামরুল ইসলাম (ঘোড়া) পেয়েছেন এক হাজার ৩০৫ ভোট।
নির্বাচনী আইন অনুযায়ী, প্রদত্ত ভোটের ৮ ভাগের অন্তত এক ভাগ ভোট পেতে হয় জামানত রক্ষায়। নাসিকের প্রদত্ত ভোটের ৮ ভাগের এক ভাগ হচ্ছে ৩৬ হাজার ৪২৩ ভোট। কিন্তু এই সংখ্যক ভোট আইভী আর তৈমূর ছাড়া কেউ পাননি। তাই অন্য পাঁচ প্রার্থীর জামানত বাতিল হচ্ছে। নারায়ণগঞ্জ সিটি নির্বাচনে মেয়র প্রার্থীদের জামানত বাবদ ৩০ হাজার টাকা জমা দিতে হয়েছিল। ইসি নির্দেশনা অনুযায়ী, ৫ প্রার্থীর জামানত বাজেয়াপ্তের প্রতিবেদন ৭ দিনের মধ্যে জমা দিতে হবে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন