রোববার, ২৯ জানুয়ারি ২০২৩, ১৫ মাঘ ১৪২৯, ০৬ রজব ১৪৪৪ হিজিরী

সারা বাংলার খবর

শ্রীলঙ্কার ইস্যু নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় সমালোচনা

রুহুল আমিন | প্রকাশের সময় : ১৬ জুলাই, ২০২২, ৩:০৬ পিএম

বিক্ষোভকারীদের তোপের মুখে পদত্যাগ করে দেশ ছেড়ে পালিয়েছেন শ্রীলঙ্কার সদ্যসাবেক প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া রাজাপাকসে। তবে সেই সুযোগ আপাতত পাচ্ছেন না তার দুই ভাই মাহিন্দা রাজাপাকসে ও বাসিল রাজাপাকসে। এ দুই নেতার দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে শ্রীলঙ্কার সুপ্রিম কোর্ট। খবর ডেইল মিররের।

গতকাল শুক্রবার (১৫ জুলাই) লঙ্কান সুপ্রিম কোর্ট এক অভ্যন্তরীণ আদেশে শ্রীলঙ্কার সাবেক প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা ও সাবেক অর্থমন্ত্রী বাসিল রাজাপাকসের দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছেন। আদালতের অনুমতি ছাড়া আগামী ২৮ জুলাই পর্যন্ত শ্রীলঙ্কা থেকে বের হতে পারবেন না তারা। এ নিয়ে গত কয়েকদিন ধরে সোস্যাল মিডিয়ায় চলছে সমালোচনা।


হাহাকার মরুভূমি নামে একজন লিখেছেন, শ্রীলঙ্কার সরকার বিক্ষোভের মুখে ক্ষমতা থেকে চলে যেতে বাধ্য হয়েছে, এটা বাংলাদেশের জন্য অশনি সঙ্কেত। এ থেকে এ দেশের সরকারকে শিক্ষা নেওয়া উচিত। নয়তো এর থেকেও বড় কোনো ধরনের বিক্ষোভের মুখে পড়তে পারে এ দেশের সরকারকে।

আশিকুর রহমান নামে একজন লিখেছেন, যারা দেশটাকে নিজের বাবার সম্পদ মনে করে লুটে-পুটে খায়, তাদের অবস্থা গরু ছাগলের মতোই হবে। সব জালিমরা অপেক্ষা করো।

রেজওয়ান সালমান নামে একজন লিখেছেন, তাদেরকে বাংলাদেশে পাঠিয়ে দাও, তার অনেক সাথী ভাই আমাদের এখানে আছে।

সুমন শেখ নামে একজন লিখেছেন, বাংলাদেশে আসলে ভালো হতো , তার কাছ থেকে আমরা শিক্ষা নিতাম কি ভাবে দেশকে চাঙা বানিয়ে পালাতে হয়।

কাজির মাহমুদ নামে একজন লিখেছেন, এক মেয়াদের অধিক কেউ ক্ষমতায় থাকা উচিৎ না। দীর্ঘস্থায়ী সরকার ধীরে-ধীরে স্বৈরাচার হয়ে ওঠে।

সেলিম মাহমুদ নামে একজন লিখেছেন, উপমহাদেশের রাজনীতিতে পরিবারের আধিত্য হটানো প্রয়োজন। পারিবারিক রাজনীতি কোনো দেশের জন্যই ভালো না।


হুমায়ন কবির নামে একজন লিখেছেন, এই দুর্নীতিবাজদের জন্য আজ শ্রীলঙ্কা দেউলিয়া। লুটেরা বেশি দিন ক্ষমতায় থাকলে দেশের কোনো উন্নতি হয় না।

এন এইচ সায়েম নামে একজন লিখেছেন, বাংলাদেশেও এমন হবে, বেশি দিন আর বাকি নেই।

মেঘান রহমান নামে একজন লিখেছেন, আমাদের দেশের এমন অবস্থা যাতে না হয়, মহান আল্লাহর কাছে এই দোয়াই করি।

ইয়াসিন সোহাগ নামে একজন লিখেছেন, জনগণ ক্ষেপলে কোনো অবস্থায়ই ভালো হবে না, বাংলাদেশের সরকার তাদের থেকে শিক্ষা নিয়ে জনগণের ভোটাধিকার ফেরত দেওয়া প্রয়োজন।

রাব্বি সানি নামে একজন লিখেছেন, এই খবর শুনে বাংলাদেশের সরকারের একজন মানসিকভাবে একেবারেই ভেঙে পড়েছে।

মো. জাহাঙ্গির আলম নামে একজন লিখেছেন, মান-সম্মান থাকতে কেউ পদত্যাগ করে না। এটাই উপমহাদেশের রাজনীতির শিক্ষা।

সুবহাসিহ বিসায়ি নামে একজন লিখেছেন, বাংলাদেশের মানুষও চায় এই রকম একটা পরিস্থিতি হোক।

মিনার আহমেদ নামে একজন লিখেছেন, নঃশ্বর পৃথিবীতে কোনো কিছুই চিরস্থায়ী নয়, হতে পারে দীর্ঘস্থায়ী। এ দেশের সরকারও তাদের থেকে শিক্ষা নেওয়া প্রয়োজন।

জিল্লুর রহমান নামে একজন লিখেছেন, ভাগ্যের কি নির্মম পরিহাস, এক সময় যিনি দেশের নায়কোচিত-বীরোচিত মর্যাদা ভোগ করতেন, তিনিই এখন জনরোষ থেকে বাঁচতে পালিয়ে দেশ ছেড়েছেন। সবই ইতিহাস এবং পাপ করলে তাকে তার পরিণতি ভোগ করতে হয়।

অনেকে লিখেছেন, সারা বিশে^র সব সরকারকে এদের থেকে শিক্ষা নেওয়া উচিত। ক্ষমতা কোনো দীর্ঘস্থায়ী নয়, এটা সবাইকে মনে রাখা প্রয়োজন। ক্ষমতায় থাকতে ভালো ব্যবহার করলে এ পরিস্থিতি বহন করতে হয় না।

আবার অনেকে লিখেছেন, যারা ক্ষমতায় থেকে জনগণকে অন্যায় অত্যাচার করেছে তাদের পরিস্থিতি এমন ভোগ করতে হয়। এমনকি যারা জনগণের ভোটাধিকার হরণ করে ক্ষমতায় এসেছে, আজ নয় কাল তাদেরও এমন পরিণতি ভোগ করতে হবে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন