ঢাকা, শনিবার ২০ জুলাই ২০১৯, ০৫ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৬ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।

সারা বাংলার খবর

জাবি শিক্ষকের বিরুদ্ধে পরীক্ষা নিতে গড়িমসির অভিযোগ

জাবি সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৪ নভেম্বর, ২০১৮, ৫:২৯ পিএম

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে যথাসময়ে ব্যবহারিক পরীক্ষা না নিয়ে গড়িমসি করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ওই শিক্ষকের নাম রেজা মোহাম্মদ আরিফ। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের নাটক ও নাট্যতত্ত্ব বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক।
জানা যায়, নাটক ও নাট্যতত্ত্ব বিভাগের ২য় বর্ষের (৪৫তম ব্যাচ) ৫টা থিউরী আর ৫টা ব্যবহারিক কোর্স ছিল। এই কোর্সগুলোর পরীক্ষা শুরু হয় এবছরের ২৫ জুলাই। তারপর একে একে ৯টি কোর্সের পরীক্ষা গত ১৪ই অক্টোবর শেষ হয়। কিন্তু সহযোগী অধ্যাপক রেজা মোহাম্মদ আরিফের ২১০ নং কোর্সের (নাট্য প্রযোজনা-১) পরীক্ষা এখন অনুষ্ঠিত হয়নি। তিনি একের পর এক তারিখ ঘোষণা দিচ্ছেন, কিন্তু দেড়মাস অতিক্রম করলেও পরীক্ষাটি নিতে পারেননি।
শিক্ষার্থীদের সূত্রে জানা যায়, শিক্ষক রেজা মোহাম্মদ আরিফ তার এই কোর্সের পরীক্ষাটি প্রথমে ১১-১২ নভেম্বর নিবেন বলে জানান। কিন্তু এই সময়ে না নিয়ে পরবর্তীতে জানান, ২৩-২৪ নভেম্বর নিবেন। তাতেও তিনি পরীক্ষা না নিয়ে আবারও ২-৩ ডিসেম্বর পরীক্ষা নিবেন বলে জানিয়েছেন।
এমন অবস্থায় একটি কোর্সের পরীক্ষার জন্য ২য় বর্ষের শিক্ষার্থীরা ৩য় বর্ষের ক্লাস শুরু করতে পারছেননা। অথচ শিক্ষার্থীরা ১ম বর্ষের চূড়ান্ত পরীক্ষা শেষ করেছিলেন ২০১৭ সালের এপ্রিল মাসে। তার মানে দীর্ঘ প্রায় ১ বছর ৭ মাসেও দ্বিতীয় বর্ষ শেষ করতে পারেননি বিভাগটি।
এসব বিষয়ে বিভাগটির শিক্ষার্থীরা ক্ষুব্ধ। কিন্তু ভয়ে শিক্ষকদেরকে কিছু বলতে পারছেন না। এমনকি ভয়ে সাংবাদিকদের কাছেও মুখ খুলতে রাজি নন শিক্ষার্থীরা।
এদিকে জানা যায়, ২য় বর্ষের (৪৫তম ব্যাচ) শিক্ষার্থীদের ওয়েস্টার্ন একটি নাটকের প্রোডাকশনের রিহার্সাল করানোর কথা শিক্ষক রেজা মোহাম্মদ আরিফের। কিন্তু তিনি সেই দায়িত্ব পালন না করে বিভাগের জুনিয়র শিক্ষক মুহিবুর রউফ শৈবালকে রিহার্সালের দায়িত্ব দেন। অথচ তিনি শিক্ষার্থীদেরকে রিহার্সাল করানোর সময় না পেলেও ঠিকই তার নিজের থিয়েটার ‘আরশীনগর’ এর ‘রহু চন্ডালের হাড়’ এর রিহার্সাল করাচ্ছেন বিভাগেরই ল্যাবে।
এদিকে শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ২৪ নভেম্বর বিভাগের ল্যাবে শিক্ষক রেজা মোহাম্মদ আরিফ তার থিয়েটার আরশীনগরের নাটক ‘রহু চন্ডালের হাড়’ এর রিহার্সাল করাচ্ছেন বলে জানা গেছে। অন্যদিকে, শিক্ষার্থীরা অপেক্ষায় আছেন, কবে রেজা আরিফের ব্যক্তিগত এই কাজ শেষ হবে, আর তারা ২য় বর্ষের পরীক্ষা শেষ করে ৩য় বর্ষের ক্লাস শুরু করবেন।
এসব অভিযোগের বিষয়ে সহযোগী অধ্যাপক রেজা মোহাম্মদ আরিফ এর মোবাইলে একাধিকবার কল করা হলেও তিনি সাড়া দেননি।
এ বিষয়ে পরীক্ষা কমিটির সভাপতি অধ্যাপক মো. সানোয়ার হোসেন বলেন, ‘আমি আমার জায়গা থেকে চেষ্টা করেছি যথাসময় পরীক্ষা নিতে। কিন্তু কোর্স শিক্ষক ছাড়াতো পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব না। আর এই বিষয়ের এক্সপার্টও পাওয়া যাচ্ছিলনা। তাই কিছুদিন দেরি হয়েছে। আমি আগামী ২-৩ ডিসেম্বর তারিখ ঘোষণা করছি। যে করে হোক ওইসময় পরীক্ষা নিয়ে নেওয়া হবে।’

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন