ঢাকা, শুক্রবার , ১৫ নভেম্বর ২০১৯, ৩০ কার্তিক ১৪২৬, ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী

খেলাধুলা

পরীক্ষার নাম সুইং-পেস-বাইন্স নিউজিল্যান্ড-বাংলাদেশ প্রথম টেস্ট

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১২:০৫ এএম

প্রথমবারের মত দেশের বাইরে তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজ খেলতে যাচ্ছে বাংলাদেশ। রাত শেষ না হতেই হ্যামিল্টনে শুরু হবে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সেই সিরিজের প্রথম টেস্ট। বাংলাদেশ সময় আজ দিবাগত রাত চারটায় শুরু হবে ম্যাচটি।
টেস্ট ম্যাচের জন্য বাংলাদেশের ব্যাটিং অনুশীলনটা ভালোমত হলেও বোলিং অনুশীলন বাধা পড়ে বৃষ্টির কারণে। এরপরও সিরিজে ব্যাটিং নিয়েই টাইগারদের বড় ভাবনা। তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে বাজেভাবেই হোয়াইটওয়াশ হয়েছে মাশরাফির দল। টেস্টে সেখানে স্বাগতিক বোলারদের পেস, বাউন্স, সুইং সামলানো আরো কঠিন। সেই কঠিন কাজটা আরো কঠিন হয়ে গেছে দলে ইনজুরির থাবা পড়ায়।
সাকিব আল হাসান তো সফরেই নেই। প্রথম টেস্টে নাও দেখা যেতে পারে দলের অন্যতম ব্যাটিং স্তম্ভ মুশফিকুর রহিমকে। উইকেটকিপার ব্যাটসম্যানের বুকের ব্যথা তো আছেই, চোট পেয়েছেন আঙ্গুলেও। দলের অপর দুই সিনিয়র ব্যাটসম্যান তামিম ইকবাল ও মাহমুদউল্লাহর উপর তাই দায়ীত্ব অনেক। নতুন বলে তাদের সামলাতে হবে ট্রেন্ট বোল্ট ও টিম সাউদিকে। দারুণ বোলিংয়ে ওয়ানডে সিরিজে ৬ উইকেট নেন বোল্ট। তৃতীয় ম্যাচে তো সাউদির কাছেই হারে বাংলাদেশ। তিনি একাই নেন ৬ উইকেট। নিল ওয়াগনার ও ম্যাট হেনরির মত পরীক্ষিতরাও রয়েছে তাদের সাহাজ্য করতে। অবশ্য একই পিস থেকে রুবেল-এবাদতদেরও সুযোগ রয়েছে ফয়দা তুলে নেয়ার।
সফরকারী দলের সবচেয়ে বড় দুশ্চিন্তা টপ অর্ডার নিয়ে। ওয়ানডে সিরিজে কোন ম্যাচেই হসেনি দলের শীর্ষ ব্যাটসম্যানদের ব্যাট। এগিয়ে আসতে হবে তাই লিটন দাশ ও সৌম্য সরকারদেরও। পেস বলে তাদের দূর্বলতা কারো অজানা নয়। সেই দূর্বল জায়গা নিয়ে কাজ করা দরকার বলে জানান দলের কোচ স্টিভ রোডস, ‘আমি মনে করি টেস্টে ক্রিকেটে বিশেষ করে গত ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরের পর থেকে কিছু এরিয়া নিয়ে আমাদের কাজ করা দরকার। এটা আমরা আগেও করেছি। দুই পায়েই আমাদের ভালো খেলতে হবে- সামনে এবং পিছনে, একই সঙ্গে বাউন্স বলও ভালোভাবে মোকাবেলা করতে হবে।’
ওদিকে ঘরের মাঠে বাংলাদেশের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ শুরুর আগে দারুণ এক সুসংবাদ পেয়েছে নিউজিল্যান্ড। আইসিসি টেস্ট র‌্যাংকিংয়ের দ্বিতীয় স্থানে উঠে এসেছে তারা। নিজেদের ক্রিকেট ইতিহাসে যা সেরা। তার মানে, নিজেদের ইতিহাসের সবচেয়ে শক্তিশালী অবস্থানে থেকেই বাংলাদেশের বিপক্ষে সিরিজ শুরু করতে যাচ্ছে কিউইরা।
তবে শক্তিমত্তা কিংবা পরিসংখ্যান বিচারে এগিয়ে থেকেও খুব একটা স্বস্তি গায়ে মাখতে রাজি নয় ব্ল্যাক ক্যাপ বাহিনী। দলের অন্যতম সদস্য হেনরি নিকলস জানালেন তেমনি। র‌্যাংকিং দিয়ে নিজেদের মান বিচার না করে টাইগারদের বিপক্ষে ভালো করেই নিজেদের জাত চেনাতে চান তিনি, ‘বাংলাদেশের বিপক্ষে নিউজিল্যান্ডের পারফরম্যান্সই বলে দিবে তারা দল হিসেবে কতটা ভালো।’ তিনি বলেন, ‘আমাদের জন্য এটা জানা জরুরী যে আমরা বাংলাদেশের বিপক্ষে যতোটা ভালো খেলবো, আমরা এখন এখন ঠিক ততটুকুই ভালো দল।’
নিকলসের কাছে তাই র‌্যাংকিংয়ের ভালো অবস্থানই সুসময়ের সব নয়। প্রকৃত সুসময় কিংবা সাফল্য পেতে হলে বাংলাদেশের দিক থেকে ছুঁড়ে দেওয়া চ্যালেঞ্জগুলো সঠিকভাবে মোকাবেলা করার প্রত্যয় তার, ‘একদিকে এসব র‌্যাংকিং যখন ভালো অনুভূতি দেয় এবং ভালো পারফরম্যান্সের স্বীকৃতি দেয়, একইভাবে অন্যদিকে আমাদের জন্য এও মানতে হবে এবং প্রস্তুত থাকতে হবে যে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে আসা চ্যালেঞ্জগুলো আমরা ঠিকভাবে মোকাবেলা করতে পারছি।’
তবে তাই বলে র‌্যাংকিংয়ে নিজেদের সেরা অবস্থানকে ছোট করে দেখছেন না অভিজ্ঞ এই বাঁহাতি ব্যাটসম্যান। টেস্ট র‌্যাংকিংয়ের দ্বিতীয় স্থানে উঠে আসা বিগত এক বছরে দলের ধারাবাহীক ভালো খেলার দলিল বলে আখ্যা দেন নিকলস, ‘র‌্যাংকিংয়ে এতো ওপরে ওঠা সত্যিই দারুণ। এটা একটা দলিল যে আমরা গত ১২ মাসে কতোটা ভালো ক্রিকেট খেলছি।’


সেরা বোলার সাকিব
নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে দ্বিপক্ষীয় টেস্ট সিরিজে বাংলাদেশের সেরা বোলার সাকিব আল হাসান। ৮ ম্যাচে ২৬ উইকেট নিয়েছেন তিনি। তবে এ দুই দলের মধ্যকার সিরিজে সেরা বোলার সাবেক দলপতি ড্যানিয়েল ভেট্টোরি। তার শিকারে রয়েছে ৫১টি উইকেট। দু’দলের লড়াইয়ে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারী ভেট্টোরি।
সাকিবের পর এই তালিকায় শীর্ষ পাঁচে নেই কোন বাংলাদেশি বোলারা। সাকিবের পর বাংলাদেশের পক্ষে মাশরাফি বিন মর্তুজা ১৪টি, আব্দুর রাজ্জাক ১০ ও মোহাম্মদ রফিক ৯টি উইকেট শিকার করেছেন। কিন্তু এদের কেউই এখন আর টেস্ট খেলছেন না।
বাংলাদেশ-নিউজিল্যান্ড দ্বিপক্ষীয় টেস্ট সিরিজে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারী বোলার :
খেলোয়াড় ম্যাচ রান উইকেট
ড্যানিয়েল ভেট্টোরি (নিউজিল্যান্ড) ৯ ৮১৯ ৫১
সাকিব আল হাসান (বাংলাদেশ) ৮ ৭৫২ ২৬
ক্রিস মার্টিন (নিউজিল্যান্ড) ৪ ৪২৮ ১৯
নিল ওয়াগনার (নিউজিল্যান্ড) ৩ ৩৯২ ১৭
ট্রেন্ট বোল্ট (নিউজিল্যান্ড) ৪ ৪৯৯ ১৫

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন