ঢাকা, মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০১৯, ০১ শ্রাবণ ১৪২৬, ১২ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।

জাতীয় সংবাদ

রাজধানীবাসীর দুর্ভোগ

ঘূর্ণিঝড় ফণির প্রভাবে বৃষ্টি

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৫ মে, ২০১৯, ১২:০৮ এএম

ঘূর্ণিঝড় ফণির প্রভাবে বৃষ্টির দুর্ভোগে পড়েছে রাজধানীবাসী। সড়কের অবস্থাও বেহাল। সঙ্গে যোগ হয়েছে ঘূর্ণি বাতাস। গত দুইদিনের বৃষ্টিতে রাজধানীর অলিগলিসহ প্রধান সড়কে কাঁদা পানি মিলে একাকার হয়েগেছে। আর এতে নগরবাসী পড়েছে ভোগান্তিতে। গতকাল শনিবার দুপুরের পর রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে ঘুরে সরেজমিনে দেখা যায়, অপেক্ষাকৃত নিচু স্থানগুলোতে পানি জমে আছে। সেই পানিতে ভাসছে নোংরা-আবর্জনা।
বিশেষ করে নগরীর গুলিস্তান, মতিঝিল, বঙ্গভবনের সামনের সড়ক, শাহজাহানপুর, রাজারবাগ, মালিবাগ, মৌচাক, আরামবাগ, বাড্ডা, রামপুরা ও পুরান ঢাকার বিভিন্ন এলাকাসহ বেশ কিছু স্থানে পানি জমে পানিজট সৃষ্টি হয়েছে। এতে যানবাহনে ভোগান্তি বেড়েছে। মেট্রোরেলের কাজ শুরুর পর থেকে হালকা বৃষ্টি হলেই রাজধানীর কাজীপাড়া থেকে ১০ নম্বর গোলচত্বর পর্যন্ত পানি জমে যায়। পুরো রাস্তাজুড়েই কোথাও হাঁটু, কোথাও কোমর পরিমাণ পানি। আর তাতে যান চলাচলের এমনই অবস্থা হয় যে, সাধারণ জনগণকে বাস ছেড়ে গন্তব্যে পৌঁছাতে উঠতে হয় ভ্যান, রিকশা অথবা নৌকায়।
গতকালের বৃষ্টিতে দুর্দশা পোহাতে হয়েছিলো মিরপুর এলাকার বাসিন্দারা। এদিন রাস্তাঘাটে পানিবদ্ধতার কারণে কর্মজীবী মানুষকে গন্তব্যে পৌঁছাতে বেশ বেগ পেতে হয়েছে। দেখা গেছে সড়কজুড়ে বৃষ্টির পানির ঢেউ।
টানা বিশ দিন পর গত শুক্রবার ঢাকায় বৃষ্টি হয়েছে, সেটি গতকালও চলমান ছিল। তবে আজও বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে বলে আবহাওয়া অফিস সূত্রে জানা যায়। এদিকে বৈরি আবহাওয়ার কারণে বিপাকে পড়েছেন নগরের কর্মজীবী মানুষ। বৃষ্টি আর ঝড়ো বাতাসের কারণে গতকাল রাস্তায় গণপরিবহনের সংখ্যা অনেক কম ছিল। রাস্তায় সিএনজি অটোরিক্সা ও মোটরবাইকের সংখ্যাও কম ছিল। এছাড়া রাত থেকে চলা বৃষ্টিতে শহরের অনেক জায়গায় তেরি হয়েছে পানিবদ্ধতা।
বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা রাশেদ হাসান চৌধুরী বলেন, আমার অফিস মতিঝিলে, সকাল দশটায় অফিস টাইম হলেও এখনো আমি মিরপুর থেকে শাহবাগে পৌঁছুতে পারিনি। কারণ গাড়ির স্বল্পতা। বাসে উঠার জন্য সকাল থেকে প্রায় একঘণ্টা সময় আমাকে অপেক্ষা করতে হয়েছে।
তবে বৃষ্টির কারণে সবচে বেশি বিপাকে পড়েছে ছিন্নমূল ও নিম্ন আয়ের মানুষেরা। ছোট পুঁজির ভ্রাম্যমান ব্যবসায়িদের পণ্য ভিজে নষ্ট হয়েছে।
সজীব ও সীমা নামের ছিন্নমূল দুই শিশু জানায়, সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে তারা যেখানে ঘুমোতে যেত সেই জায়গায় তাদের বিছানা বালিশসহ চা বিক্রির বিভিন্ন সরঞ্জাম ভিজে গেছে। ফলে ঘর সামলানোর সঙ্কটে পড়ে দশের কাছাকাছি বয়সের এই দুই ভাইবোন রাতে ঘুমোতে পারেনি।
এছাড়াাও সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের গেট ও হাইকোর্ট মাজার এলাকায় নিম্ন আয়ের মানুষদের কাছে বিক্রির জন্য নিয়ে আসা খাবারও বিক্রি করতে পারেনি অনেকে।
এদিকে আবহাওয়া অধিদফতরের পরিচালক জানিয়েছেন, ফণির প্রভাবে দেশজুড়ে চলা বৈরি আবহাওয়া অব্যাহত থাকবে আজ রোববার বিকেল পর্যন্ত। তিনি জানান, ফণীর প্রভাবে গত শুক্রবার সকাল থেকেই সারাদেশে থেমে থেমে বৃষ্টি ও দমকা হাওয়াসহ বৃষ্টি হচ্ছে। কোথাও কোথাও চলছে ভারী বর্ষণ। একইসঙ্গে ঝড়ের প্রভাবে উপক‚লীয় এলাকা স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে ২-৪ ফুট অধিক উচ্চতার জলোচ্ছ¡াসে প্লাবিত হতে পারে বলে সতর্কও করেছেন তিনি।
এদিকে গতকালের বৃষ্টিতে পানিবদ্ধতা দেখা দিয়েছে পুরান ঢাকার বেশিরভাগ এলাকায়। এছাড়াও পোস্তগোলা, সায়েদাবাদ, শনিরআখড়া, যাত্রাবাড়ি, মানিকনগর, মুগদা, মান্ডা, বাসাবো, মাদারটেক, নন্দিপাড়া, গোড়ান, সিপাইবাগ, মেরাদিয়া, রামপুরা, মালিবাগ, শান্তিবাগ, গুলবাগ, রাজারবাগ, মৌচাক, শান্তিনগর, মগবাজার, রমনা, খিলগাও, তালতলা, মিরপুর, পল্লবী, শ্যমলি, কল্যাণপুর, শ্যাওড়াপাড়া, মণিপুর, কাজীপাড়া, জিগাতলা, আগারগাঁওয়ের নিচু এলাকা ও গলিতে পানিবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে বলে জানা গেছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন