ঢাকা, শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৫ আশ্বিন ১৪২৬, ২০ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী

খেলাধুলা

ছিয়ানব্বইয়ের শ্রীলঙ্কা এই বাংলাদেশ বুলবুলের চোখে

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৩ মে, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

১৯৯৬ বিশ্বকাপজয়ী শ্রীলঙ্কান দলের কথা মনে আছে? সেই যে সনৎ জয়াসুরিয়া আর রমেশ কালুভিতারানার উড়ন্ত শুরু, প্রতিপক্ষের বোলারদের এলোমেলো করে দেওয়ার কৌশল। স্কোরবোর্ডের চাকা দ্রæত ঘুরিয়ে চাপ তৈরি করা, পরে অভিজ্ঞদের স্থিতধী ব্যাটিং- এভাবেই তো সেবার বিশ্বকাপ জিতেছিল অর্জুনা রানাতুঙ্গার দল। ক্রিকেটবোদ্ধারা অবাকই হয়েছিলেন সেবার। লঙ্কানরা ভালো দল, কিন্তু তাই বলে বিশ্বকাপ জয়! বোদ্ধা, বিশ্লেষকদের ফেবারিটের তালিকাটা সেবার মিথ্যে প্রমাণিত হয়েছিল। মিথ্যে প্রমাণ করেছিলেন লঙ্কান ক্রিকেটাররা তাঁদের অনন্য, আক্রমণাত্মক ক্রিকেট দিয়েই। বিশ্বকাপে বাংলাদেশের প্রথম অধিনায়ক আমিনুল ইসলাম কেন যেন মাশরাফির দলের মধ্যে ১৯৯৬ বিশ্বকাপে শ্রীলঙ্কার প্রচ্ছন্ন ছায়া দেখতে পাচ্ছেন।

বাংলাদেশ দলের খেলোয়াড়দের খেলার ধরনই আমিনুলকে মনে করিয়ে দিচ্ছে লঙ্কানদের কথা, ‘বাংলাদেশের এবারের বিশ্বকাপ দলটি অনেকটা ৯৬ বিশ্বকাপজয়ী শ্রীলঙ্কার মতো। এই দলে শুরুতে ঝুঁকি নেওয়ার খেলোয়াড় আছে, তাদের সে সামর্থ্যও আছে। আবার পরে ধরে খেলার খেলোয়াড়ের সংখ্যাও কম নয়। নিজেদের মতো করে খেলতে পারলে এবারের বাংলাদেশ বিশ্বকাপে যেকোনো দলকেই ভড়কে দিতে পারে।’
আমিনুলের মতে বাংলাদেশের বোলিং ‘বৈচিত্র্যপূর্ণ’, ‘আমার কাছে মনে হয় এটি। আমাদের বোলিং বৈচিত্র্যপূর্ণ। কারও সঙ্গে কারও মিল নেই। মাশরাফি একরকম, রুবেল আর জায়েদ পুরোপুরি দুই রকম। মোস্তাফিজ আবার আরেক রকম। আমাদের দুই স্পিনার মেহেদী মিরাজ আর সাকিব আল হাসানও দুরকম স্পিনার। আমাদের কেবল দরকার সামর্থ্যরে প্রয়োগ।’

বাংলাদেশের ব্যাটিং লাইনআপ নিয়ে উচ্ছ¡সিত দেশের প্রথম টেস্ট সেঞ্চুরিয়ান, ‘আমি বাংলাদেশের ব্যাটিং নিয়ে যথেষ্ট আশাবাদী। দারুণ একটা ব্যাটিং লাইনআপ আমাদের। দীর্ঘ ব্যাটিং লাইনআপ। সবচেয়ে বড় কথা, প্রায় প্রতিটি ব্যাটসম্যানই দারুণ ফর্মে আছেন। আয়ারল্যান্ডের দুর্দান্ত পারফরম্যান্সের কারণে বিশ্বকাপে আত্মবিশ্বাসটা তুঙ্গেই থাকবে।’

সাকিব আল হাসানকে একটু নিচের দিকে ব্যাটিং করানোর পক্ষে আমিনুল। কেন, সেটির ব্যাখ্যাও দিয়েছেন তিনি, ‘সাকিব আসলে তিন নম্বরে ব্যাটিং করার ব্যাটসম্যান নয়। আমি সাকিবকে আরও একটু নিচের দিকে চাই। ইংল্যান্ডের বিশ্বকাপে আমাদের অনেক বড় বড় রান তাড়া করতে হবে। সে কারণে সাকিবকে একটু নিচের দিকে দরকার পড়বে। তিনে নেমে ওর মতো ব্যাটসম্যান দ্রæত আউট হয়ে গেলে সেটা দলের জন্য চাপের কারণ হয়ে দাঁড়াবে।’

তাহলে তিনে ব্যাটিং করবেন কে? মুশফিকুর রহিম। আমিনুল অবশ্য মুশফিককেও সেখানে খেলার পক্ষপাতি নন, ‘মুশফিক আমাদের দলের সেরা ব্যাটসম্যান। মুশফিক চারে নামুক। আমি ওয়ান ডাউনে এমন একজনকে চাচ্ছি, যে ব্যাটসম্যানের নতুন বল নিয়মিত খেলার অভিজ্ঞতা আছে।’

 

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (8)
Muhammed Washim ২৩ মে, ২০১৯, ১:৫৮ এএম says : 0
সঠিক কথা বলেছেন,,,,দেশের মানুষের শুভকামনা থাকবে অবশ্যই।
Total Reply(0)
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ২৩ মে, ২০১৯, ২:০২ এএম says : 0
আমাদের কিন্তু শীর্ষ দশের বাটসমেন নেই বোলার ও নেই, কিন্তু আমাদের সেরা শক্তিই হলো টিমওয়ার্ক যেটা অন্য অনেক দলের চেয়েও এগিয়ে, তাইতো ২০১৫ সালের পরে ওয়ানডেতে আমাদের সাফল্যের পাল্লাটাই বেশি ভারী|
Total Reply(0)
atahar uddin ২৩ মে, ২০১৯, ২:০৩ এএম says : 0
কিন্তু বিসিবির বস সাকিব ত চায় ৩ এ ব্যাটিং করতে কারন এবার সব পিচ ব্যাটিং সর্গ, তাই ম্যান অব দ্যা ম্যাচ অথবা সিরিজ হওয়ার সুযোগটা না আবার মিস হয়ে যায়।
Total Reply(0)
Md. Mofazzal Hossain ২৩ মে, ২০১৯, ২:০৩ এএম says : 0
জানি না কি connection তবে বাংলাদেশী মিডিয়া আর সমর্থকরা যখন সংযত হয় তখন ওদের ক্রিকেট টিম ভালো ফল করে ;তো একটা উপদেশ... বেশি উইরেন না,শেষে না কাপড়কাচা সাবাণের মালিকেরা অ্যাড এর রসদ পায়!
Total Reply(0)
kazi mohiul islam ২৩ মে, ২০১৯, ২:০৪ এএম says : 0
fully agreed ... tamim, shoumyo, liton, mushi, sakib, riad, mosaddek, saifuddin, Miraz, mash, mostafiz..
Total Reply(0)
Masud Ahmed ২৩ মে, ২০১৯, ২:০৪ এএম says : 0
Aminul Islam has rightly said..please guys have faith on our players.don't put question on their capabilities..they are the best we have.. Insha Allah we will do good in this tournament.,
Total Reply(0)
Rupban ২৩ মে, ২০১৯, ২:০৫ এএম says : 0
৯৬ এর দিকে দলগুলো এতো এটাকিং ক্রিকেট খেলতো না কিন্তু এখন প্রায় সব দলই প্রচণ্ড এটাকিং ক্রিকেট খেলে এবং তারা ধারাবাহিকও বটে। এক্ষেত্রে যারা মোটামুটি নিয়ন্ত্রিত বোলিং করে যেতে পারবে তাদের জয়ের সম্ভাবনা বেশি থাকবে। বাংলাদেশ পেস বোলিংয়ের তুলনায় স্পিন ভালো করে তাই স্পিন নির্ভর দল মাঠে নামাতে হবে। এবারের বিশ্বকাপে গতিসম্পন্ন পেস বোলার ছাড়া সবারই ধোলাই খাওয়ার সম্ভাবনা বেশি।
Total Reply(0)
Uka ২৩ মে, ২০১৯, ৮:৫৯ এএম says : 0
Abarer bissokap bangladesh pabe kew badha hote parbena
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন