ঢাকা, বুধবার , ১১ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১৩ রবিউস সানি ১৪৪১ হিজরী

সারা বাংলার খবর

কুমেক হাসপাতালে আহতদের পাশে রেলমন্ত্রী

কুমিল্লা থেকে স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১২ নভেম্বর, ২০১৯, ৪:২০ পিএম

ঢাকাগামি আন্ত:নগর এক্সপ্রেস ট্রেন তূর্ণা-নিশিথা আর সিলেট থেকে চট্টগ্রামগামি উদয়ন এক্সপ্রেস ট্রেনের মধ্যকার সংঘর্ষের ঘটনার জন্য ঢাকাগামী তূর্ণা নিশিথা ট্রেনকে দায়ী করে রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন বলেছেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে তূর্ণা নিশিথার চালক সিগন্যাল অমান্য করায় দুর্ঘটনাটি ঘটেছে। মঙ্গলবার দুপুরে ঘটনাস্থল কসবার মন্দাবাগ স্টেশন পরিদর্শন শেষে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আহতদের দেখতে এসে এ মন্তব্য করেন রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন। এসময় তার সাথে উপস্থিত ছিলেন কুমিল্লা জেলা পুলিশ সুপার সৈয়দ মো. নুরুল ইসলাম। রেলমন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, কেন এ দুর্ঘটনা ঘটল তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এ দুর্ঘটনায় নিহত প্রত্যেকের পরিবারকে এক লাখ টাকা করে ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে। আর আহত ব্যক্তিদের পরিবারকে ১০ হাজার টাকা করে দেয়া হবে। দুর্ঘটনার কারণ অনুসন্ধানে তিনটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। আহতদের চিকিৎসার ক্ষেত্রে যাতে কোন সমস্যা না হয়, অবহেলা না হয় এজন্য স্থানীয় প্রশাসন খোঁজ খবর রাখছে।
ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার কবসার মন্দবাগে মঙ্গলবার রাতে আন্ত:নগর এক্সপ্রেসের দুই ট্রেনের সংঘর্ষে এখন পর্যন্ত ১৬জন মারা গেছে। আহত শতাধিক যাত্রী বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছে। এরমধ্যে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ৮জন পুরুষ, ৫জন নারী ও একজন শিশু ভর্তি হয়। সকাল ৭টায় ৫/৬ বছর বয়সী ফারজানা নামের শিশুটি হাসপাতালে আনার পরই মারা যায়। আর আহতদের মধ্যে ৪জনকে ঢাকায় প্রেরণ করা হয় এবং ৬জনকে চিকিৎসা শেষে কুমেক হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র দেয়া হয়। বাকি আহত পুরুষ তিনজন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তারা হলেন- কাউছার (২৮) পিতা আবদুল জলিল বাড়ি সিলেট হবিগঞ্জ, জাহাঙ্গীর (৪০) পিতা আবুল হাসেম মাল বাড়ি হাইমচর চাঁদপুর, সোবহান (৪০) পিতা বারিক বাড়ি শ্রীমঙ্গল। কুমিল্লা জেলা পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম কুমেক হাসপাতালে আহতদের চিকিৎসার খোঁজখবর নেন। পুলিশ সুপার জানান, আহতদের চিকিৎসার ব্যয়বার কুমিল্লা জেলা পুলিশ বহন করবে। কুমিল্লা মেডিকেলে থাকা আহত ব্যক্তিদের চিকিৎসায় কোন ঘাটতি থাকবে না। এছাড়া কুমিল্লায় থাকা আহতদের অনেকের স্বজনরাও ওই ট্রেন দুইটিতে ছিলো। তাদের ব্যাপারেও আমরা খোঁজ খবর নিচ্ছি।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন