ঢাকা, বুধবার, ১২ আগস্ট ২০২০, ২৮ শ্রাবণ ১৪২৭, ২১ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

খেলাধুলা

সুপার কাপ হাতছাড়া করল জুভেন্টাস

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৪ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১২:০০ এএম

চলতি মৌসুমে জুভেন্টাস ম্যাচ হেরেছে কেবল দুটি। সেই দু’টি হারই লাৎসিওর বিপক্ষে। পরশু এই লাৎসিওর কাছে তো একটা শিরোপাই হাতছাড়া হয়ে গেল জুভেন্টাসের। ইতালিয়ান সুপার কাপের ফাইনালে রোমের নীল দলটার কাছে ৩-১ গোলে হেরেছে ইতালির চ্যাম্পিয়নরা।
ম্যাচের শুরুতে এগিয়ে যায় লাৎসিও। ম্যাচের ষোলো মিনিটে সার্বিয়ান মিডফিল্ডার সার্গেহ মিলিঙ্কোভিচ-সাভিচের কাছ থেকে বল পেয়ে দশ গজ দূর থেকে বল জালে পাঠান স্প্যানিশ মিডফিল্ডার লুইস আলবার্তো। প্রথমার্ধের শেষ দিকে আর্জেন্টাইন স্ট্রাইকার পাওলো দিবালার গোলে সমতা ফেরায় জুভেন্টাস। ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর শট লাৎসিওর গোলরক্ষক টমাস স্ট্রাকোশা ঠিকমতো ফেরাতে না পারলে বল পেয়ে যান দিবালা। গোল করতে তেমন সমস্যা হয়নি আর। ৭৩ মিনিটে ইতালির মিডফিল্ডার মার্কো পারোলোর ক্রস থেকে বসনিয়ার উইংব্যাক, দলের অধিনায়ক সেনাদ লুলিচ আবারও এগিয়ে দেন লাৎসিওকে। এবার আর সমতা ফেরাতে পারেননি রোনালদোরা। উল্টো ম্যাচের শেষদিকে লাল কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন জুভেন্টাসের উরুগুইয়ান মিডফিল্ডার রদ্রিগো বেনতাঙ্কুর। তার ঠিক পরের মিনিটেই দারুণ এক ফ্রি-কিক থেকে গোল করে জুভেন্টাসের কফিনে শেষ পেরেক ঠুকে দেন ইতালির মিডফিল্ডার দানিলো কাতালদি।

এই নিয়ে পঞ্চমবারের মতো এই শিরোপা জিতে নিল লাৎসিও। ২০১৭ সালের পর আবারও এই শিরোপা জেতার পথে জুভেন্টাসকে হারাল তারা। লাৎসিওকে হারানোর টোটকাই যেন খুঁজে পাচ্ছেন না মরিজিও সারি। এই মাসে দুটি ম্যাচ হারল জুভেন্টাস, দুটিই এই লাৎসিওর বিপক্ষে!
এদিকে লা লিগায় টানা দ্বিতীয় ম্যাচে গোলশূন্য ড্র করেছে রিয়াল মাদ্রিদ। পরশু সান্তিয়াগো বার্নাব্যুয়ে বছরে নিজেদের শেষ ম্যাচে এক পয়েন্ট নিয়ে মাঠ ছাড়ে রিয়াল। লিগে এটি তাদের টানা তৃতীয় ড্র। এই ড্রয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে থাকা বার্সেলোনার চেয়ে দুই পয়েন্ট পিছিয়ে গেল তারা। ঘরের মাঠে শুরু থেকে আক্রমণাত্মক খেলা রিয়াল এগিয়ে যেতে পারত বিরতির আগেই। ২০তম মিনিটে তিন ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে টনি ক্রুসের নেওয়া শট ফেরে ক্রসবারে লেগে। ৩৩তম মিনিটে করিম বেনজেমার শট গোল লাইন থেকে ফেরান আথলেতিক ডিফেন্ডার।

দ্বিতীয়ার্ধেও ভাগ্য সহায় হয়নি স্বাগতিকদের। ৬০তম মিনিটে খুব কাছ থেকে নেওয়া নাচোর হেড ফেরে ক্রসবারে লেগে। ৮৬তম মিনিটে দানি কারভাহালের ক্রসে বদলি ফরোয়ার্ড লুকা ইয়োভিচের হেড লাগে বাম দিকের পোস্টে। বাকিটা সময়ে মরিয়া চেষ্টা করেও গোলের দেখা পায়নি রিয়াল।

প্রিমিয়ার লিগে নগর প্রতিদ্বন্দ্বী ম্যানচেস্টার সিটির মাঠে জয়ের পর থেকে সময়টা ভালো যাচ্ছে না ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের। এভারটনের বিপক্ষে পয়েন্ট হারানোর পর এবারে হেরে গেছে টেবিলের তলানির দল ওয়াটফোর্ডের বিপক্ষে। প্রতিপক্ষের মাঠে লিগের ম্যাচে ২-০ গোলে হারে উলে গুনার সুলশারের দল। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে চার মিনিটের ব্যবধানে দুই গোল হজম করে ইউনাইটেড। চলতি মৌসুমে এটি তাদের পঞ্চম হার। ১৮ ম্যাচে ছয় জয় ও সাত ড্রয়ে ২৫ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার আট নম্বরে রয়েছে ইউনাইটেড।

ম্যানইউর হারের দিনে একই লিগে উইলিয়ানের নৈপুণ্যে টটেনহ্যাম হটস্পারকে হারিয়ে জয়ে ফিরল চেলসি। প্রতিপক্ষের মাঠে ২-০ গোলে জিতেছে তারা। এই প্রথম সাবেক কোনো দলের বিপক্ষে ঘরের মাঠে হারের তেতো স্বাদ পেলেন জোসে মরিনিয়ো।

লিগে আগের দুই ম্যাচে হারা চেলসি এগিয়ে যায় দ্বাদশ মিনিটে। শর্ট কর্নার থেকে মাতেও কোভাচিচের পা ঘুরে বল ফিরে পান উইলিয়ান। দ্রুত গতিতে ভেতরে ঢুকে কোনাকুনি শটে বল জালে পাঠান ব্রাজিলিয়ান এই মিডফিল্ডার। যোগ করা সময়ে সফল স্পট কিকে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন উইলিয়ান। এই জয়ে ১৮ ম্যাচে ৩২ পয়েন্ট নিয়ে চার নম্বরে রয়েছে চেলসি। ২৬ পয়েন্ট নিয়ে সাত নম্বরে আছে টটেনহ্যাম।

অন্যদিকে সিরি আ’তে এসি মিলানের বিপক্ষে যেন গোল উৎসবে মেতেছিল আতালান্তা। পরশু নিজের মাঠে ৫-০ গোলে উড়ে যায় মিলান। ১৯৯৮ সালের পর এই প্রথম এত বড় ব্যবধানে হারাল দলটি। ২১ বছর আগে রোমার কাছে সর্বশেষ পাঁচ গোলের ব্যবধানে হেরেছিল মিলান।
ম্যাচ শেষের প্রতিক্রিয়ায় কোচ পিওলি সমালোচনা করলেন মিলানের খেলোয়াড়দের, ‘এটা প্রকৃত মিলান হতে পারে না। আজকে আমাদের পারফরম্যান্স ছিল ভীষণ অপর্যাপ্ত। দ্বিতীয়ার্ধে দলের কাছে আমি একটা প্রতিক্রিয়া চেয়েছিলাম কিন্তু সেটা আসেনি। এমনকি দ্বিতীয়ার্ধে আমরা আরও জঘন্য খেলেছি।’

 

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন