ঢাকা শুক্রবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ১৩ ফাল্গুন ১৪২৭, ১৩ রজব ১৪৪২ হিজরী

খেলাধুলা

আজহারের রাজত্বে মামুনের হানা

নৌবাহিনীর শ্রেষ্ঠত্বে শেষ জাতীয় অ্যাথলেটিক্স

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৮ জানুয়ারি, ২০২১, ১২:০০ এএম


১৯৯৫ সাল থেকে ডিসকাস থ্রোয়িংয়ের রাজা ছিলেন সেনাবাহিনীর আজহারুল ইসলাম। জাতীয় ও সামার অ্যাথলেটিক্স মিলে ৩৩টি স্বর্ণপদক এখন তার ঘরে। মাঝে ২০১৬ সালে একবার হেরেছিলেন। গতকাল জাতীয় অ্যাথলেটিক্সে ফের রাজত্ব হারালেন সেনাবাহিনী থেকে নৌবাহিনীতে সেই আজহার (৪১.৮০ মিটার)। হেরে গেলেন সেনাবাহিনীর মামুন শিকদারের (৪৪.২৫ মিটার) কাছে।

ক্যারিয়ারে অ্যাথলেটিক্স ছাড়াও ভারোত্তোলনে খেলেছেন আজহার। সব মিলিয়ে ঘরে ৪৩টি স্বর্ণপদক রয়েছে তারা। যার মধ্যে কেবল ডিসকাস থ্রোতে ৩৩টি এবং শটপুটে ৬টি স্বর্ণ রয়েছে আজহারের। এক সময়কার তরুন আজহার এখন মধ্যবসয়ী (৫০ বছর)। নিজ জেলা কিশোরগঞ্জে অ্যাথলেট গড়ার একটি একাডেমিও (আজহার একাডেমি) তৈরী করেছেন। অথচ তিনি এখনো খেলছেন। জাতীয় অ্যাথলেটিক্স এলে তার মন টানে মিটে আসার জন্য। তার কথায়, ‘বয়স ৫০ চলছে। ১৯৯৫ সাল থেকে দীর্ঘদিন সেনাবাহিনীতে খেলেছি। এই সার্ভিসেস দলের হযে টানা ২১ বছর স্বর্ণপদক জিতেছি। মাঝে ২০১৬ সালে একবার নিজের মসনদ হারিয়েছিলাম। পরে পুনরুদ্ধার করেছি। আজ (গতকাল) আবার হারিয়ে ফেললাম।’ এ জন্য আবহাওয়াকেই দায়ী করলেন আজহার, ‘বাতাস ছিল অনেক। তাই চাকতি ঠিকমতো ঘুরাতে পারিনি।’ তাই বলে হাল ছাড়ার পাত্র নন নৌবাহিনীর এই অ্যাথলেট, ‘এখনি হাল ছাড়ছি না। আমি এখনো ক্যারিয়ারের ইতি টানছি না। বাংলাদেশ গেমসে খেলার অনেক আগে চলে আসবো। অনুশীলন করবো। দেখি আবার স্বর্ণপদক জিততে পারি কিনা।’


তবে তিনি না পারলেও গতকাল শেষ হওয়া জাতীয় অ্যাথলেটিক্সে সেরা হয়েছে তার দল নৌবাহিনীই। তিন দিনব্যাপী প্রতিযোগিতায় ২১টি স্বর্ণ, ১২টি রুপা ও ১৩টি ব্রোঞ্জ জিতে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে তারা। ১৩টি স্বর্ণ, ২০টি রুপা ও ৯টি ব্রোঞ্জপদক জিতে রানার্সআপ হয়েছে সেনাবাহিনী। একটি স্বর্ণ ও পাঁচটি ব্রোঞ্জ জিতে আনসার তৃতীয় এবং একটি স্বর্ণপদক জিতে চতুর্থ হয়েছে পুলিশ। খেলা শেষে বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেনে ফেডারেশনের সভাপতি এএসএম আলী কবির। এ সময় সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবদুর রকিব মন্টু উপস্থিত ছিলেন।

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন