ঢাকা, বুধবার, ১৯ মে ২০২১, ০৫ জৈষ্ঠ্য ১৪২৮, ০৬ শাওয়াল ১৪৪২ হিজরী

খেলাধুলা

ছন্দে পিএসজি, অচেনা বায়ার্ন

জয়খরা কাটাল লিভারপুল-চেলসি

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১২ এপ্রিল, ২০২১, ১২:০১ এএম

এইতো ক’দিন আগেই চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টার ফাইনালের প্রথম লেগে অলিয়াঞ্জ অ্যারেনায় বায়ার্ন মিউনিখকে ৩-২ গোলের ব্যবধানে হারিয়ে দিয়েছিল নেইমারের পিএসজি। সেই ফর্ম লিগ ওয়ানেও ধরে রাখল ফরাসি জায়ান্টরা। লাল কার্ডের নিষেধাজ্ঞায় স্ত্রাসবুরের বিপক্ষে ছিলেন না নেইমার। কিন্তু কিলিয়ান এমবাপেতো ছিলেন। নিজে গোল করেছেন, করিয়েছেনও। চলতি মৌসুমে লিগ ওয়ানে সর্বোচ্চ গোলদাতা এমবাপের (২৭ ম্যাচে ২১টি) নৈপুণ্যে স্ত্রাসবুরকে তাদেরই মাঠে ৪-১ ব্যবধানে উড়িয়ে দিয়েছে মাওরিসিও পচেত্তিনোর দল।

ম্যাচে একটি করে গোল করেন এমবাপে, পাবলো সারাবিয়া, মোইজে কিন ও লেয়ান্দ্রো পারেদেস। দলটির বিপক্ষে লিগে প্রথম দেখায় গত অক্টোবরে ঘরের মাঠে ৪-০ গোলে জিতেছিল পিএসজি। আর গত রাউন্ডে লিলের বিপক্ষে ১-০ গোলে হেরেছিল মাওরিসিও পচেত্তিনোর দল। ৩২ ম্যাচে ২১ জয় ও তিন ড্রয়ে ৬৬ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আছে পিএসজি। দিনের অন্য ম্যাচে মেসের বিপক্ষে ২-০ গোলে জেতা লিল ৬৯ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে। এক ম্যাচ কম খেলে ৬২ পয়েন্ট নিয়ে তিনে মোনাকো।

তবে পিএসজির বিপক্ষে হারের ধাক্কা এখনও সামলে উঠতে পারেনি জার্মান চ্যাম্পিয়নরা। ঘরের মাঠ অলিয়াঞ্জ অ্যারেনায় নেইমারদের কাছে হারের পর এবার বুন্দেসলিগার ম্যাচে ইউনিয়ন বার্লিনের কাছে হোঁচট খেয়েছে গতবারের ট্রেবলজয়ীরা। ছন্দহীন ফুটবলে প্রথমার্ধে হতাশ করা বায়ার্ন এগিয়ে গিয়েছিল দ্বিতীয়ার্ধে। তবে ধরে রাখতে পারেনি ব্যবধান। তাতে ম্যাচটি ১-১ ব্যবধানের ড্র নিয়েই মাঠ ছাড়ে বুন্দেসলিগার চ্যাম্পিয়নরা। সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে এ নিয়ে টানা দুই ম্যাচ জয়হীন রইল বায়ার্ন।

ম্যাচের ৬৮তম মিনিটে গতবারের চ্যাম্পিয়নদের এগিয়ে নিয়েছিলেন মুসিয়ালা। তবে শেষ পর্যন্ত ব্যবধান ধরে রাখতে পারেনি টানা নবম লিগ জয়ের অভিযানে থাকা দলটি। ৮৫তম মিনিটে সমতা টানে সফরকারীরা। ম্যাচে বায়ার্নের ১৪ শটের কেবল দুটি ছিল লক্ষ্যে। ৭ শটের দুটি লক্ষ্যে ছিল বার্লিনের। লিগে টানা পাঁচ জয়ের পর পয়েন্ট হারানো বায়ার্ন ২৮ ম্যাচে ২০ জয় ও পাঁচ ড্রয়ে ৬৫ পয়েন্ট নিয়ে আছে শীর্ষে। একই সময়ে ভার্ডার ব্রেমেনকে ৪-১ গোলে উড়িয়ে দেওয়া লাইপজিগ সমান ম্যাচে ১৮ জয় ও ছয় ড্রয়ে ৬০ পয়েন্ট নিয়ে আছে দ্বিতীয় স্থানে।
ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে শক্তির বিচারে অনেক পিছিয়ে থাকা অ্যাস্টন ভিলার মাঠে শেষ দেখায় বিধ্বস্ত হয়েছিল লিভারপুল। ফিরতি দেখায় তাদের পাল্টা গুঁড়িয়ে প্রতিশোধ নিবে কী, উল্টো প্রথমে গোল হজম করে বসে লিভারপুল। ঘুরে দাঁড়িয়ে শেষ দিকের গোলে কাঙ্খিত জয় পেয়েছে ইয়ুর্গেন ক্লপের দল। অ্যানফিল্ডে গতপরশু ম্যাচটি ২-১ গোলে জেতে লিভারপুল। ওলি ওয়াটকিন্সের গোলে পিছিয়ে গতবারের চ্যাম্পিয়নরা পড়ার পর সমতা টানেন মোহামেদ সালাহ। যোগ করা সময়ে ব্যবধান গড়ে দেন ট্রেন্ট-অ্যালেকজ্যান্ডার আর্নল্ড।
এরই সঙ্গে ঘরের মাঠে ছয় ম্যাচের জয়খরা কাটল দলটির। লিগে এই বছরে ঘরের মাঠে লিভারপুলের এটাই প্রথম জয়! এর আগে সবশেষ এখানে তারা জিতেছিল গত ১৬ ডিসেম্বর, টটেনহ্যাম হটস্পারের বিপক্ষে ২-১ গোলে।

গত ৪ অক্টোবর লিভারপুলকে ঘরের মাঠে পেয়ে তাদের ৭-২ গোলে উড়িয়ে দিয়েছিল অ্যাস্টন। সেই কষ্টে প্রলেপ দেওয়ার এবং ঘরের মাঠে জয়ে ফেরার ম্যাচে প্রথমার্ধে লিভারপুলকে স্বরূপে দেখা যায়নি ঠিকই, তবে বল দখলে ও আক্রমণে তাদের আধিপত্য ছিল। চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টার-ফাইনালের প্রথম লেগে রিয়াল মাদ্রিদের বিপক্ষে ৩-১ গোলে হারের পর দ্বিতীয় লেগের আগে কিছুটা হলেও আত্মবিশ্বাস ফিরে পাবে দলটি।

আরেক ম্যাচে প্রথমার্ধে তিন গোল করে ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ নেওয়া চেলসি দ্বিতীয়ার্ধেও পেল জালের দেখা। ক্রিস্টাল প্যালেসকে উড়িয়ে প্রিমিয়ার লিগে জয়ের ধারায় ফিরল টমাস টুখেলের দল। প্রতিপক্ষের মাঠে ৪-১ গোলে জয়ের দিন জোড়া গোল করেন ক্রিস্টিয়ান পুলিসিক, একটি করে কাই হার্ভাটজ ও কুর্ত জুমা। দ্বিতীয়ার্ধে ক্রিস্তিয়ান বেনতেকের গোলে ব্যবধান কমায় স্বাগতিকরা।

চ্যাম্পিয়ন্স লিগে শেষ আটের প্রথম লেগে পোর্তোকে ২-০ গোলে হারানো চেলসি ৩১ ম্যাচে ১৫ জয় ও ৯ ড্রয়ে ৫৪ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার চতুর্থ স্থানে উঠে এসেছে। অ্যাস্টনকে হারানো লিভারপুল জায়গা করে নিয়েছে পয়েন্ট তালিকায় পাঁচে। ৩১ ম্যাচে ১৫ জয় ও সাত ড্রয়ে তাদের পয়েন্ট ৫২। ৩২ ম্যাচে ৭৪ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে একই রাতে ঘরের মাঠে লিডস ইউনাইটেডের বিপক্ষে হারা ম্যানচেস্টার সিটি।

 

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন