ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ মে ২০২১, ৩০ বৈশাখ ১৪২৮, ৩০ রমজান ১৪৪২ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

মাহে রমজানে ফিরিশতার ঘোষণা

এ. কে. এম. ফজলুর রহমান মুনশী | প্রকাশের সময় : ২১ এপ্রিল, ২০২১, ১২:০০ এএম

রমজান মাসের প্রথম রাত্রিতেই আল্লাহ পাকের দিক থেকে কতগুলো ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়। যেমন (ক) শয়তান ও অধিক দুষ্ট প্রকৃতির জিনদেরকে বেঁধে ফেলা। (খ) জাহান্নামের দরজাগুলো বন্ধ করে দেয়া। (গ) জান্নাতের দরজাগুলো খুলে দেয়া। (ঘ) একজন ঘোষণাকারীর ঘোষণা জারি করা। হযরত আবু হুরায়রা (রা:) বর্ণিত এবং জামে তিরমিজি ও সুনানে নাসাঈতে সংকলীত হাদিসে একজন ঘোষণাকারীর কথা বলা আছে। ঘোষণাকারীকে তার কথা উল্লেখ নেই। কিন্তু মোসনাদে আহমাদে সংকলিত একটি হাদীসে স্পষ্টতই উল্লেখ আছে যে, রমজান মাসে একজন ফিরিশতা ঘোষণা করবেন। তাঁর ঘোষণাটি হলো- ‘হে কল্যাণের আকাক্সক্ষী! অগ্রসর হও, এগ্রিয়ে এস এবং হে অকল্যাণ পোষণকারী! বিরত হও, পশ্চাদপসরণ কর।’

ফিরিশতার এই ঘোষণা যদিও সাধারণ মানুষের শ্রুতিগোচর না হয়, কিন্তু আল্লাহ প্রেমিক বান্দারা এই ঘোষণা শুনতে পান এবং মাহে রমজানের এই ঘোষণা নিজেদের জীবনে ও ঈমানদারদের জীবনে বাস্তবায়নের সুচারু ব্যবস্থা গ্রহণ করে থাকেন। এ জন্য মাহে রমজানে তারা আল্লাহর মহ্ববতে এতই উদ্বেল হয়ে উঠেন যে, যেমনটি অন্য কোনো মাসে সচরাচর দেখা যায় না। ফিরিশতার এই ডাকে, এ আহ্বান, এ ঘোষণা আল্লাহর তরফ হতে পরম ও চরম সওগাত হিসেবে গ্রহণ করে থাকেন।

প্রথম ঘোষণাটি হচ্ছে- ‘হে কল্যাণের আকাক্সক্ষী! আগ্রসর হও, এগিয়ে এস’। এই ঘোষণার মর্ম কথা হলো- প্রত্যেক ঈমানদার মুমিন মুসলমানের উচিত এই মাসে নেক আমল সম্পাদনে স্বর্বাত্মকভাবে আত্মনিয়োগ করা। কেননা, এই মাসের নেক আমলের সওয়াব বহু গুণে বর্ধিত করা হয়। এই সুবর্ণ সুযোগ হাত ছাড়া করা মোটেই সমীচীন নয়। আর দ্বিতীয় ঘোষণাটি হচ্ছে- ‘হে অকল্যাণ পোষণকারী! বিরত হও। পশ্চাদপসরণ কর! এই ঘোষণার মূল প্রতিপাদ্য বিষয় হচ্ছে এই যে, যারা অকল্যাণকারী, যারা কল্যাণ ও মঙ্গলের প্রতি স্বতই উদাসীন, যারা অকল্যাণের পুঞ্জীভূত আবর্তে ঘুরপাক খাওয়াকে ইহকাল ও পরকালের সাফল্য বলে বিবেচনা করছে, তাদেরকে সতর্ক করা ও সচেতন করা এবং এই দিকনির্দেশনা প্রদান করা যে, সফলতা, স্বস্তি, শান্তি ও নিরাপত্তা অকল্যাণের মাসে পাওয়া যায় না। আর যায় না বলেই এ পথ পরিহার করা উচিত। মূলত: এই পথ শাস্তি আযাব ও গজবকে অপরিহার্য করে তোলে, এজন্য এ পথ পরিহার করা ও এ থেকে পশ্চাদপসরণ করা অতীব দরকার। মানব জাতি এই দরকার সম্পর্কে যতবেশি কর্মতৎপর হবে, ততই মঙ্গল। আল্লাহপাক আমাদেরকে কল্যাণের পথে পরিচালিত করুন, কায়মনে এই কামনাই করছি-আমীন!

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
Ahmed hossain khan ২১ এপ্রিল, ২০২১, ১:৫৪ এএম says : 0
Santi borkater hee sahre sahee ramadaan. A gariber goor a tumay hajar ahlan sahlan.
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন