শুক্রবার, ১৯ আগস্ট ২০২২, ০৪ ভাদ্র ১৪২৯, ২০ মুহাররম ১৪৪৪

জাতীয় সংবাদ

দুদক কি আইনের ঊর্ধ্বে ?

পূর্ণাঙ্গ রায়ে প্রশ্ন হাইকোর্টের

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৭ আগস্ট, ২০২১, ১২:০৪ এএম

দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) আইনের ঊর্ধ্বে কি-না এ প্রশ্ন তুলেছেন হাইকোর্ট। প্রকাশিত এক পূর্ণাঙ্গ রায়ে এ প্রশ্ন তোলা হয়েছে। আদালত বলেছেন, মামলার অনুসন্ধান, তদন্ত, বিচার প্রক্রিয়া দ্রুতসম্পন্ন করতে দুদক ইতিবাচক কোনো পদক্ষেপ নেয়নি। এমনকি এসব ক্ষেত্রে কমিশনের পক্ষ থেকে সন্তোষজনক ব্যাখ্যাও দেয়া হচ্ছে না। তাহলে প্রশ্ন ওঠে, কমিশন কি আইনের ঊর্ধ্বে? নিশ্চিতভাবে এর জবাব হচ্ছে ‘না’।

কুড়িগ্রাম পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের সহকারী প্রকৌশলী মো. জহিরুল ইসলামকে ঘুষ নেয়ার মামলা থেকে অব্যাহতির আদেশ বাতিল করে দেয়া হাইকোর্টের রায়ে উপরোক্ত মন্তব্য করা হয়। চলতি বছর ২৪ জানুয়ারি বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার এবং বিচারপতি মহিউদ্দিন শামীমের ডিভিশন বেঞ্চ এ রায় ঘোষণা করেন। গত মঙ্গলবার সুপ্রিম কোর্টের ওয়েবসাইটে পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশিত হয়। রায়ে সংশ্লিষ্ট মামলাটির বিচার কার্যক্রম এক বছরের মধ্যে অথবা দ্রæত সময়ে সম্পন্ন করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। ৭২ পৃষ্ঠার পূর্ণাঙ্গ রায়ের পর্যবেক্ষণ আদালত বলেন, দুর্নীতি করে ব্যাংক, আর্থিক প্রতিষ্ঠান এবং অনেক সরকারি দফতরের টাকা আত্মসাতের অভিযোগে মামলা হয়েছে। কিন্তু সেসব মামলার অনুসন্ধান, তদন্ত, বিচার প্রক্রিয়া দ্রুতসম্পন্ন করতে দুদক ইতিবাচক কোনো পদক্ষেপ নেয়নি। এমনকি এসব ক্ষেত্রে কমিশনের পক্ষ থেকে সন্তোষজনক ব্যাখ্যাও দেয়া হচ্ছে না। তাই প্রশ্ন ওঠে, কমিশন কি আইনের ঊর্ধ্বে? নিশ্চিতভাবে এর জবাব হচ্ছে ‘না’।

দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) আইন, ২০০৪ ও দুর্নীতি দমন কমিশন বিধি, ২০০৭-এ কমিশনের কার্যক্রম বিশদভাবে বর্ণনা করা আছে। ফলে দেশের দুর্নীতি চর্চা বন্ধ করতে আইনগত অবস্থান থেকে কমিশনের উচিৎ আরও কঠোর হওয়া।

রায়ের পর্যবেক্ষণে আদালত আরও বলেন, আজ-কাল আমরা বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে দেখতে পাচ্ছি, বড় বড় দুর্নীতির মামলার আইনি প্রক্রিয়া ত্বরান্বিত করার চেয়ে কমিশন আত্মসাৎ হওয়া অর্থ পুনরুদ্ধারে ব্যস্ত। টাকা উদ্ধার কমিশনের কাজ নয়। আইনেও সে ক্ষমতা দেয়া হয়নি। ফলে অভিযুক্তরা নিজেদের রক্ষায় সুবিধা পাচ্ছে বা সুবিধা নিচ্ছে। পর্যবেক্ষণে আরও বলা হয়, কমিশন আইন একটি বিশেষ বিধান হলেও মামলা দায়েরের পর অনেক সময় অতিবাহিত হলেও বহু মামলায় দুদক নির্ধারিত সময়ের মধ্যে অভিযোগপত্র বা অনুসন্ধান প্রতিবেদন দাখিল করতে পারেনি। এটি স্পষ্টত আইনের লঙ্ঘন। এমনকি এসব ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট অনুসন্ধান বা তদন্তকারী কর্মকর্তার বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থাই নেয়নি দুদক।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (8)
বাশীরুদ্দীন আদনান ২৬ আগস্ট, ২০২১, ১২:১৩ এএম says : 0
কেউই দেশের আইনের উর্ধ্বে থাকতে পারে না
Total Reply(0)
Ismail ২৬ আগস্ট, ২০২১, ১:৪৮ এএম says : 0
As he like what they do.. they are big gangster in the Bangladesh
Total Reply(0)
Anamul Haque ২৬ আগস্ট, ২০২১, ২:০২ এএম says : 0
দুদকের কাজ কি সেইটাই দুদক জানেনা অন্যের আদেশ পালন করতে করতে
Total Reply(0)
MD Monir Masum ২৬ আগস্ট, ২০২১, ২:০৩ এএম says : 0
কখন যে কোন আইন কার ওপর চাপানো হবে ....................
Total Reply(0)
Mostafa Zafar Haider ২৬ আগস্ট, ২০২১, ২:০৩ এএম says : 0
আদালত কে অনুরোধ করছি। সংকট কালীন সময়ে আপনারা এ বিষয়ে দ্রুত আদেশ দিন। নইলে দেশ ক্ষতিগ্রস্হ হবে, জনগণের অকল্যান হবে।
Total Reply(0)
Mashfique Ahmed Sheam ২৬ আগস্ট, ২০২১, ২:০৩ এএম says : 0
দুদককে বেতন দিয়ে রাখার কোন দরকার নাই।
Total Reply(0)
জাকির ২৬ আগস্ট, ২০২১, ৫:৩৮ এএম says : 0
এই দুদক নামক ময়লা পরিষ্কার হউক
Total Reply(0)
গোলাম বাকি, ২৬ আগস্ট, ২০২১, ১১:১৭ এএম says : 0
দুদকের একজন কর্মচারী হয়ে কুটিপতি।একজন কর্মচারী কতটাকা বেতন পান! টাকার পাহাড় গড়ে ঢাকায় মা বোনের নামে একাধিক ফ্লাট, গ্রামের বাড়িতে অগনিত সম্পদ। বিলাসবহুল গাড়ি কিভাবে হয়?বুঝে আসে না।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন