বুধবার, ১৮ মে ২০২২, ০৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৬ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

খেলাধুলা

অসম লড়াইয়ে ভারতের বিপক্ষে বড় হার বাংলাদেশের

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৫ ডিসেম্বর, ২০২১, ৭:৪২ পিএম | আপডেট : ৮:১০ পিএম, ১৫ ডিসেম্বর, ২০২১

হিরো এশিয়ান চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি হকি টুর্নামেন্টে বাংলাদেশ-ভারত ম্যাচ সত্যিই এক অসম লড়াই। আর এই অসম লড়াইয়ে বড় হার মেনে নিয়ে টুর্নামেন্ট শুরু করলো স্বাগতিক বাংলাদেশ। বুধবার বিকালে মওলানা ভাসানী জাতীয় হকি স্টেডিয়ামে টুর্নামেন্টের দ্বিতীয় দিন শক্তিশালী ভারতের বিপক্ষে টার্ফে নেমেছিল লাল-সবুজরা। নিজেদের প্রথম ম্যাচে বরাবরের মতো ভারতের সামনে দাঁড়াতেই পারেনি আশরাফুল বাহিনী। ম্যাচে ভারত ৯-০ গোলে বিধ্বস্ত করে বাংলাদেশকে। বিজয়ী দলের হয়ে দিলপ্রীত সিং তিনটি, জারমানপ্রীত সিং দু’টি এবং ললিত কুমার উপাধ্যায়, হারমানপ্রীত সিং, মানদ্বীপ মোরে ও আকাশদ্বীপ সিং একটি করে গোল করেন।
এশিয়ার মর্যাদাপূর্ণ হকি আসর এশিয়ান চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে বাংলাদেশের প্রথম অংশগ্রহণ সুখকর হলো না। পুরো ম্যাচে ১৪টি পেনাল্টি কর্ণার (পিসি) পেয়েছে ভারত। এতেই প্রমাণ মেলে কতটা আক্রমণাত্মক হকি খেলেছে ভারতীয়রা। বাংলাদেশ একটিও পিসি আদায় করতে পারেনি। গোলবার লক্ষ্য করে তারা একবারই মাত্র হিট নিতে পেরেছে। কিন্তু গোল আসেনি। দীর্ঘ একচল্লিশ বছর পর টোকিও অলিম্পিক হকিতে পদক (ব্রোঞ্জ) জিতে এখন যেন আকাশে উড়ছে ভারতীয় হকি দল। বাংলাদেশ অপেক্ষাকৃত দূর্বল দল হলেও ৬০ মিনিটের ম্যাচে ভারত ৯ গোল আদায় করে প্রমাণ করেছে সুযোগ পেলেই তারা জ্বলে উঠতে পারে। অন্যদিকে প্রায় ৪০ মাস কোনো আন্তর্জাতিক ম্যাচ না খেলা বাংলাদেশ দল ফের প্রমাণ করলো ভারতের সামনে দাঁড়ানোর সামর্থ তাদের নেই।
তাই তো ম্যাচ শেষে বাংলাদেশ অধিনায়ক আশরাফুল ইসলাম বলেন, ‘আমরা অনেক দিন আন্তর্জাতিক ম্যাচে ছিলাম না। বিপরীতে ভারত প্রায় ৭০/৮০টি ম্যাচ খেলেছে। তফাৎটা এখানেই।’
টোকিও অলিম্পিকে ব্রোঞ্জজয়ী ভারতের কাছে হারবে বাংলাদেশ- এটাই স্বাভাবিক। তবে এমন বড় হারে জাতীয় দলের নির্বাচক কমিটি নিয়েই প্রশ্ন উঠেছে। রাকিবুলের পাসপোর্ট নেই, তারপরও তাকে দলে রাখা হয়েছিল। এ নিয়ে জল কম ঘোলা হয়নি। এবার জানা গেল, ছয় সদস্যের নির্বাচক কমিটি থেকে জহিরুল ইসলাম মিতুল পদত্যাগ করলেও চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির দল নির্বাচনের সময় ঠিকই তিনি এ কমিটিতে কাজ করছেন। যা অনেককে হতবাক করেছে। শুধু তাই নয়, জাতীয় দল নির্বাচনে সাজেদ এএ আদেলের নেতৃত্বাধীন নির্বাচক কমিটির বিরুদ্ধে স্বজন-প্রীতিরও অভিযোগ উঠেছে।
আগের দিন দক্ষিণ কোরিয়ার সঙ্গে ২-২ গোলে ড্র করলেও বুধবার বাংলাদেশের বিপক্ষে ম্যাচের শুরু থেকেই গোলের জন্য ক্ষুধার্ত ছিল ভারত। তারা একের পর এক আক্রমণে বাংলাদেশের রক্ষণদূর্গ তছনছ করে দেয়। ম্যাচে প্রথম কোয়ার্টারের ৭ মিনিটে ৫টি পিসি পায় ভারতীয়রা। এতেই বোঝা যায় তারা কতটা আক্রমণাত্মক ছিল। ম্যাচের ১২ মিনিটে ফিল্ড গোল করে ভারতকে এগিয়ে নেন দিলপ্রীত সিং (১-০)। এরপর নিয়মিত বিরতিতে গোল আদায় করে নেয় অতিথি দল। দ্বিতীয় কোয়ার্টারে এসে ২২ মিনিটে ফিল্ড গোল করেন দিলপ্রীত (২-০)। ২৮ মিনিটে নবম পিসি পায় ভারত। সেই পিসি থেকে গোল করেন ললিত কুমার (৩-০)। তৃতীয় কোয়ার্টারে ম্যাচের ৩১ মিনিটে পিসি থেকে ভারতের পক্ষে চতুর্থ গোলটি করেন জারমানপ্রীত সিং (৪-০)। ধারাবাহিক আক্রমণের মুখে ৪২ মিনিটে পিসি থেকে ফের জারমানপ্রীত গোল করেন (৫-০)। দুই মিনিট পর মানপ্রীতের পাস থেকে দিলপ্রীত সিং ফিল্ড গোল করেন (৬-০)। চতুর্থ কোয়ার্টারে ম্যাচের ৫৩ মিনিটে আকাশদ্বীপ ফিল্ড গোল করলে ব্যবধান দাঁড়ায় ৭-০। পরের মিনিটেই পিসি থেকে মানদ্বীপ (৮-০) এবং ৫৬ মিনিটে পিসি থেকে হারমানপ্রীত গোল করলে ৯-০ ব্যবধানের জয় নিশ্চিত হয় ভারতের।

 

 

 

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন