বৃহস্পতিবার, ১৯ মে ২০২২, ০৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৭ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

খেলাধুলা

রহমতগঞ্জের ইতিহাস না আবাহনীর ফেরা

জাহেদ খোকন | প্রকাশের সময় : ৯ জানুয়ারি, ২০২২, ১২:০০ এএম

ঘরোয়া ফুটবলে নতুন মৌসুমের দ্বিতীয় টুর্নামেন্ট ফেডারেশন কাপের শিরোপা জিততে চায় ঢাকা আবাহনী লিমিটেড ও রহমতগঞ্জ মুসলিম ফ্রেন্ডস সোসাইটি। দু’দলের লক্ষ্যই ফাইনাল ম্যাচ জিতে চ্যাম্পিয়ন ট্রফি ঘরে তোলা। টুর্নামেন্টের শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে আজ মুখোমুখি হচ্ছে আবাহনী ও রহমতগঞ্জ। কমলাপুরের বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে সন্ধ্যা সাড়ে ৫টায় শুরু হবে ম্যাচটি।
সেমিফাইনালের দুই রোমাঞ্চ জিতে ফাইনালে পৌঁছেছে আবাহনী ও রহমতগঞ্জ। শেষ চারের প্রথম ম্যাচে মোহামেডানের বিপক্ষে পিছিয়ে পড়েও জয় ছিনিয়ে নেয় পুরান ঢাকার ক্লাব রহমতগঞ্জ। অন্যদিকে দ্বিতীয় সেমিতে সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবের বিপক্ষে টাইব্রেকারে জিতে স্বাধীনতা কাপের পর আরেকটি শিরোপার লড়াইয়ে জায়গা পায় আবাহনী। ম্যাচ জিততে পারলে দুই মৌসুম পর ফেডারেশক কাপের ট্রফি ঘরে তুলবে আবাহনী। তারা সর্বশেষ ২০১৮ সালে এই টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল। আর যদি রহমতগঞ্জ আজকের ফাইনালে আবাহনীকে হারিয়ে দেয় তাহলে তারা ইতিহাস গড়বে। কারণ ১৯৮০ সালে শুরু হওয়া ফেডারেশন কাপে তারা কখনো চ্যাম্পিয়ন হতে পারেনি। যদিও এক মৌসুম আগে টুর্নামেন্টের ফাইনালে খেলেছিল পুরান ঢাকার দলটি। ২০১৯-২০ মৌসুমের ফাইনালে তারা বসুন্ধরা কিংসের কাছে ২-১ গোলে হেরে রানার্সআপ হয়েছিল।
এবারের টুর্নামেন্টের সেমিফাইনালে খেলার দু’দিন পর ফাইনাল খেলতে নামছে আবাহনী। তাই শিষ্যদের রিকভারির দিকেই মনযোগ বেশি দলটির পর্তুগীজ কোচ মারিও লেমোসের। গতকাল বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে) ভবনে ম্যাচ পুর্ববর্তী সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘দুই দিন আগে আমরা সাইফ স্পোর্টিংয়ের বিপক্ষে সেমিফাইনাল খেলেছি। তাই রিকভারিটা এই মুহূর্তে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। এ কারণে রিকভারির দিকে এবং ফাইনালের জন্য ছেলেদের শারীরিক ও মানসিকভাবে প্রস্তুত করার দিকে বেশি মনোযোগ দিচ্ছি।’
ম্যাচ খেলে ক্লান্তির কথা জানালেন অধিনায়ক নাবীব নেওয়াজ জীবন, ‘আসলেই আমরা অনেক ক্লান্ত। দুই দিন পর পর খেলা হচ্ছে। আমরা চেষ্টা করছি দ্রুত রিকভার করতে। কাল (আজ) আমরা ইনশাল্লাহ জয়ের জন্যই মাঠে যাব।’
ইনজুরির কারণে আবাহনীর ব্রাজিলিয়ান ডার্লিংটন খেলতে পারেননি সেমিফাইনালে। অধিনায়ক রাফায়েল দ্বিতীয়ার্ধে ইনজুরিতে ব্যাথা পেয়ে উঠে গেছেন। এ দুই জনের ফাইনাল মিস করার সম্ভাবনা আছে। ফাইনালের আগের দিন কোচ এই চাপ এড়াতে চাইলেন, ‘চোট নিয়ে আমি খুব বেশি চিন্তিত নই। আমি মনে করি কঠিন ম্যাচগুলো খেলোয়াড়দের পরখ করে নিতে আরও সাহায্য করে। আমি মনে করি না আমাদের মাঝমাঠে বড় কোনো সমস্যা আছে।’
পুরো টুর্নামেন্টের মতো ফাইনালেও ভালো খেলা উপহার দিতে চান রহমতগঞ্জের কোচ সৈয়দ গোলাম জিলানী, ‘যে তিনটা ম্যাচ খেলে আমরা ফাইনালে এসেছি, তিনটি দলই দেশের ফুটবলে শক্ত প্রতিপক্ষ। এখন আমাদের প্রতিপক্ষ আবাহনী। আমি ছেলেবেলায় আবাহনী ও মোহামেডান খেলা দেখতাম। তখন বাংলাদেশের ফুটবল বলতে আবাহনী ও মোহামেডানই ছিল। এখন তো অনেক করপোরেট দল এসেছে। আবাহনী অনেক শক্তিশালী দল, তারা সব সময়ই চ্যাম্পিয়ন হওয়ার জন্য খেলে। আমরা চেষ্টা করবো ভালো একটা খেলা উপহার দিয়ে ট্রফি জিতে নিতে।’ অধিনায়ক মাহমুদুল হাসান কিরণ বলেন, ‘আবাহনী আমাদের সামনে কঠিন প্রতিপক্ষ। যেহেতু ফাইনাল ম্যাচ। ভিন্নতা থাকবেই। ইতিহাসের দ্বারপ্রান্তে এসে আমরা চ্যাম্পিয়ন হতে চাই। আবাহনীর শক্তি ও দুর্বলতা নিয়ে কাজ করছি। এটা বলতে পারি দর্শকরা জমজমাট লড়াই দেখতে পারবেন ইনশাআল্লাহ। আমাদের রিবাউন্ড মেন্টালিটি, দ্রুত কামব্যাক করতে পারি। ম্যাচ জিতে সবাই ইতিহাসের অংশ হতে চাই।’

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন