বুধবার, ০৬ জুলাই ২০২২, ২২ আষাঢ় ১৪২৯, ০৬ যিলহজ ১৪৪৩ হিজরী

খেলাধুলা

৭ গোলের রোমাঞ্চ জিতল বসুন্ধরা

জামাল-আবাহনী ম্যাচ ড্র

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৬ মার্চ, ২০২২, ৯:১৭ পিএম | আপডেট : ৯:৩৫ পিএম, ১৬ মার্চ, ২০২২

ঘরোয়া ফুটবলের সর্বোচ্চ আসর বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) নিজেদের নবম ম্যাচে ৭ গোলের রোমাঞ্চে জিতল বর্তমান চ্যাম্পিয়ন বসুন্ধরা কিংস। অন্যদিকে শেখ জামাল ধানমন্ডি ও ঢাকা আবাহনী লিমিটেডের মধ্যকার ম্যাচে গোলের দেখা মেলেনি। বুধবার বিকালে বসুন্ধরা কিংস অ্যারেনায় স্বাগতিক দল ৪-৩ গোলে হারায় সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবকে। বিজয়ী দলের হয়ে জোড়া গোল করেন মিডফিল্ডার মতিন মিয়া। অন্য দুই গোল করেন যথাক্রমে ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড রবসন রবিনহো ও ইরানি ডিফেন্ডার খালেদ শাফি। সাইফের পক্ষে একটি করে গোল করেন নাইজেরিয়ান ফরোয়ার্ড এমফন উদো, স্থানীয় ফরোয়ার্ড ফয়সাল আহমেদ ফাহিম ও ডিফেন্ডার রিয়াদুল হাসান রাফি।

একবার বসুন্ধরা এগিয়ে যায় তো পরক্ষণেই সেই গোল শোধ দিয়ে এগিয়ে যায় সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব। বিপিএলে বুধবার এমনই এক রোমাঞ্চকর ম্যাচ দেখলেন ফুটবলপ্রেমীরা। ম্যাচের শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক ফুটবল উপহার দিয়ে প্রথমে এগিয়ে যায় বসুন্ধরা কিংস। ৩ মিনিটে ব্রাজিলিয়ান রবিনহো গোল করে কিংসদের এগিয়ে নেন (১-০)। তবে ১৯ মিনিটে ম্যাচে সমতা আনে সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব। এসময় আসরোরোভ দারুণভাবে বল বাড়িয়ে দেন ফয়সাল আহমেদ ফাহিমকে। ফাহিম প্রতিপক্ষ দলের গোলরক্ষক আনিসুর রহমান জিকোকে কাটানোর পর এমফন উদো’র পায়ে বল যায়। উদোর শটে গোল করে দলকে ম্যাচে ফেরান (১-১)। ম্যাচের ২৬ মিনিটে নাসিরের ভুলে দ্বিতীয় গোল হজম করে সাইফ স্পোর্টিং। নাসির নিয়ন্ত্রণ নিতে না পারায় বল চলে যায় বসুন্ধরার মতিন মিয়ার পায়ে। সুযোগ হাতছাড়া করেননি মতিন। শটে গোল করে ফের দলকে এগিয়ে নেন তিনি (২-১)। এগিয়ে থেকে বিরতিতে গিয়ে দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই তৃতীয় গোল আদায় করে নেয় লিগের বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। ম্যাচের ৫৫ মিনিটে সাইফ অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়ার ভুল পাসে বল পেয়ে মতিন শটে গোল করে ব্যবধান বাড়ান (৩-১)। ম্যাচে ফিরতে মরিয়া সাইফ স্পোর্টিং পাল্টা আক্রমণে গিয়ে সুযোগ সৃষ্টি করে ঠিকই ব্যবধান কমায়। ম্যাচের ৬০ মিনিটে এমফোন উদো’র বাড়ানো বলে ফয়সাল আহমেদ ফাহিম একদম ফাঁকা পোস্টে শট নিলে তা জালে জড়ায় (২-৩)। দ্বিতীয় গোল করে উজ্জীবিত সাইফের ফুটবলাররা ঝাঁপিয়ে পড়ে কিংস রক্ষণদূর্গে। দারুণ আক্রমণে ম্যাচের ৬৭ মিনিটে তারা সমতায় ফেরে। এসময় কর্নার থেকে পাওয়া বলে সুবিধাজনক স্থানে থেকে রাফি শট নিলে তা জাল স্পর্শ করে (৩-৩)। তবে ভাগ্য খারাপ সাইফের। শেষ পর্যন্ত তারা রুখতে পারেনি উড়তে থাকা বসুন্ধরা কিংসকে। ম্যাচের ৭৭ মিনিটে রবিনহোর কর্নার থেকে হেডে গোল করেন খালেদ শাফি (৪-৩)। বকি সময় আর কোন গোল না হওয়ায় সাত গোলের রোমাঞ্চ জিতে মাঠ ছাড়ে কিংসরা। ম্যাচ জিতে নয় ম্যাচে আট জয় ও এক হারে ২৪ পয়েন্ট নিয়ে তালিকায় সবার উপরে বসুন্ধরার নাম। সমান ম্যাচে তিন জয়, দুই ড্র ও চার হারে ১১ পয়েন্ট পাওয়া সাইফের অবস্থান ছয়ে।

এদিকে ফের পয়েন্ট খোঁয়ালো শিরোপা প্রত্যাশি ঢাকা আবাহনী লিমিটেড। বুধবার মুন্সিগঞ্জের ফ্লাইট লে. বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ মতিউর রহমান স্টেডিয়ামে লিগের আরেক ম্যাচে আবাহনী গোলশূণ্য ড্র করে শেখ জামালের সঙ্গে। ম্যাচে আবাহনীর কোস্টারিকান ফরোয়ার্ড ড্যানিয়েল কলিন্দ্রেস পেনাল্টি মিস করায় জয় বঞ্চিত হয় আকাশী হলুদ শিবির। নয় ম্যাচে পাঁচ জয়, তিন ড্র ও এক হারে ১৮ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয়স্থানে আবাহনী। সমান ম্যাচে চার জয় ও পাঁচ ড্রতে ১৭ পয়েন্ট পেয়ে দ্বিতীয় স্থানে শেখ জামাল।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Google Apps