বুধবার, ০৬ জুলাই ২০২২, ২২ আষাঢ় ১৪২৯, ০৬ যিলহজ ১৪৪৩ হিজরী

খেলাধুলা

বিপিএলে চট্টগ্রাম আবাহনীর প্রথম হার

জিতেছে বারিধারা-ঢাকা আবাহনী

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৬ মার্চ, ২০২২, ৯:২০ পিএম

ঘরোয়া ফুটবলের সর্বোচ্চ আসর বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) নিজেদের সপ্তম ম্যাচে এসে প্রথম হারের দেখা পেল চট্টগ্রাম আবাহনী লিমিটেড। তাদেরকে এই হারের স্বাদ দিলো শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব। অন্যদিকে অপেক্ষাকৃত দুর্বল উত্তর বারিধারা ক্লাবের কাছে হেরে গেল শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র এবং ঢাকা আবাহনী জয় পেল সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবের বিপক্ষে।

রোববার বিকালে মুন্সিগঞ্জের বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ ফ্লাইট লে.মতিউর রহমান স্টেডিয়ামে শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব ২-১ গোলে চট্টগ্রাম আবাহনীকে হারিয়ে তালিকায় সেরা তিনে রইল। বিজয়ী দলের হয়ে গাম্বিয়ান ফরোয়ার্ড অধিনায়ক সলোমন কিং কনফার্ম জোড়া গোল করেন। চট্টগ্রাম আবাহনীর পক্ষে এক গোল শোধ দেন নাইজেরিয়ান ফরোয়ার্ড পিটার থ্যাঙ্কগড।

ম্যাচের শুরু থেকেই আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণে খেলা চললেও প্রথম গোলটি পায় শেখ জামালই। ১১ মিনিটে প্রথম আক্রমণ শাণায় ঢাকার অভিজাত পাড়ার দলটি। কিন্তু রায়হান হাসানের লম্বা থ্রো-ইন থেকে সোলায়মান সিল্লাহর ব্যাক হেড গোললাইন থেকে ক্লিয়ার করে চট্টগ্রামকে ম্যাচে রাখেন ডিফেন্ডার কামরুল ইসলাম। ১৭ মিনিটে চট্টগ্রাম আবাহনীও সুযোগ পেয়েছিল। মনির হোসেনের ডানপ্রান্তের ক্রসে পিটার থ্যাঙ্কগড হেড করলেও বল চলে যায় মাঠের বাইরে। ম্যাচের ২৯ মিনিটে সফল হয় শেখ জামাল। এসময় অধিনায়ক সলোমন কিং প্রায় ৩০ গজ দূর থেকে ডান পায়ের বুলেট গতির শটে চট্টগ্রামের গোলরক্ষক আজাদ হোসেনকে পরাস্ত করেন (১-০)। পিছিয়ে থেকে বিরতিতে গেলেও দ্বিতীয়ার্ধের মাঝামাঝি সময়ে আরেক গোল হজম করে চট্টগ্রাম আবাহনী। ম্যাচের ৬৮ মিনিটে নাইজেরিয়ান ফরোয়ার্ড চিনেদু ম্যাথিউর নিচু ক্রসে সলোমন কিং পা চালালেও চট্টগ্রামের গোলরক্ষক শুয়ে পড়ে তা প্রতিহত করতে গিয়ে বল ঠিকমতো ক্লিয়ার করতে পারেননি। ফিরতি বলে দারুণ শটে জামালের পক্ষে দ্বিতীয় গোল করেন সলোমন (২-০)। দুই গোলে পিছিয়ে থেকে ম্যাচে ফিরতে আপ্রাণ চেষ্টা করলেও শেষ পর্যন্ত তা পারেনি চট্টগ্রাম আবাহনী। তবে সান্তনার একটি গোল শোধ দিয়েছে তারা। ম্যাচের ৮৩ মিনিটে নাইজেরিয়ান ডিফেন্ডার কেইন্দা ইসার কাটব্যাক থেকে বলের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে শটে গোল করেন পিটার থ্যাঙ্কগড (১-২)। ব্যস ওই পর্যন্তই। বাকি সময় লিড ধরে রেখে ২-১ ব্যবধানের জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে শেখ জামাল। সাত ম্যাচে চার জয় ও তিন ড্রতে ১৫ পয়েন্ট নিয়ে তালিকায় তৃতীয় স্থানে শেখ জামাল। সমান ম্যাচে তিনটি করে জয় ও ড্র এবং এক হারে ১২ পয়েন্ট পেয়ে চতুর্থ স্থানে আছে চট্টগ্রাম আবাহনী।

একই দিন গোপালগঞ্জের শেখ ফজলুল হক মনি স্টেডিয়ামে শুরুতে দুই গোলে এগিয়ে থেকেও শেষ পর্যন্ত উত্তর বারিধারার কাছে ৩-২ গোলে হারে শেখ রাসেল। ম্যাচ জিতে বারিধারা সাত খেলায় দুই জয়, এক ড্র ও চার হারে ৭ পয়েন্ট নিয়ে তালিকায় অষ্টম স্থানে জায়গা পেল। সমান ম্যাচে এক জয়, দুই ড্র ও চার হারে ৫ নিয়ে নবম স্থানে শেখ রাসেল। অন্যদিকে সিলেট জেলা স্টেডিয়ামে এদিন লিগের আরেক ম্যাচে সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবকে ২-১ ব্যবধানে হারিয়ে তালিকার দ্বিতীয় স্থান ধরে রাখলো শিরোপা প্রত্যাশি ঢাকা আবাহনী লিমিটেড। বিজয়ী দলের হয়ে ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড ডরিয়েলটন ও কোস্টারিকার ফরোয়ার্ড ড্যানিয়েল কলিন্দ্রেস একটি করে গোল করেন। সাইফের পক্ষে এক গোল শোধ দেন রুয়ান্ডার ডিফেন্ডার এমেরী। সাত ম্যাচ শেষে পাঁচ জয় এবং একটি করে ড্র ও হারে ১৬ পয়েন্ট পাওয়া ঢাকা আবাহনীর অবস্থান দুইয়ে। সমান ম্যাচে তিনটি করে জয় ও হারে এবং এক ড্রতে ১০ পয়েন্ট নিয়ে সাইফ রয়েছে পঞ্চম স্থানে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Google Apps