শনিবার, ০২ জুলাই ২০২২, ১৮ আষাঢ় ১৪২৯, ০২ যিলহজ ১৪৪৩ হিজরী

সারা বাংলার খবর

হুমকির ঘটনায় সংবাদ প্রকাশের পর সেই কৃষি কর্মকর্তা ও ডিলারকে শোকজ

ঈশ্বরগঞ্জ (ময়মনসিংহ) সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০২২, ৬:৫৫ পিএম

ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে বিএডিসির সার ডিলারকে উপ-সহাকারী কৃষি কর্মকর্তার হুমকির বিষয়টি গণমাধ্যমে প্রচার হলে উভয়কে শোকজ করেছে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সাধন কুমার গুহ মজুমদার। অপর দিকে হুমকির বিষয়টি নিয়ে প্রাণ নাশের আশঙ্কায় মঙ্গলবার দুপুরে থানায় সাধারণ ডায়েরী করেছেন ডিলার মোর্শেদ আলী ।

জানা যায়, উপজেলার তারুন্দিয়া ইউনিয়নে কর্মরত উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা ছাইদুর রহমান একই ইউনিয়নের বিএডিসির সার ডিলার মোর্শেদ আলীকে অবৈধ লেনদেন সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে মোবাইলে কথাকাটাকাটির এক পর্যায়ে প্রাণ নাশের হুমকি দেন। পরে উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তার হুমকির বিষয়টি উপজেলা কৃষি কর্মকর্তাকে জানায় ডিলার। ওই সময় নিজের জীবনের নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কার কথাও জানান ডিলার।

উপজেলার তারুন্দিয়া ইউনিয়নে বিএডিসি সার ডিলার হিসেবে ২০১৯ সালে নিয়োগ পান মোর্শেদ আলী। ওই ইউনিয়নে উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা হিসেবে কর্মরত রয়েছেন মো. ছাইদুর রহমান। মোর্শেদ আলী ও ছাইদুর রহমানের মধ্যে কথার দুটি অডিও রেকর্ড সম্প্রতি ফাঁস হয়। একটিতে ২০ হাজার টাকা দাবি করেন উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা। সেই রেকর্ড নিজের কাছে সংরক্ষণ করে কৃষি কর্মকর্তাকে সতর্ক করলে তিনি ডিলারকে হুমকি দেন। ডিলারকে দেওয়া হুমকিতে উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা মো. ছাইদুর রহমান বলেন- ‘তোর কল্লাডা রাখবাম এক জাগাত (জায়গায়), বডিডা রাখবাম এক জাগাত’। তোরে যদি অহন পাই পাড়া মাইর‍্যা ফুডায়া ফালবাম।’ গত বুধবার মুঠোফোনে ওই হুমকি দেওয়ার পর দিন বৃহস্পতিবার উপজেলা কৃষি অফিসে নালিশ নিয়ে যান মোর্শেদ।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সাধন কুমার গুহ মজুমদারের কাছে গিয়ে ঘটনার বিস্তারিত জানায় মোর্শেদ। ওই সময় সেখানে উপস্থিত ছসাইদুর রহমান মজা করে টাকা চেয়েছিলেন বলে জানান। আর হুমকির বিষয়টি নিজের ভুল হয়েছে বলে স্বীকার করেন।’ তখন ডিলার মোর্শেদ আলী বলেন, হুমকির পর তিনি নিরাপত্তা হীনতায় ভুগছেন। যে কোনো সময় তার ক্ষতি করা হতে পারে। বিচারের জন্য তিনি কর্মকর্তার কাছে এসেছেন।’

তবে কৃষি বিভাগ বলছে, মোর্শেদ ডিলার হিসেবে কাজ করলেও সে ছলছাতুরির আশ্রয় নেয়। গত জানুয়ারি মাসে তার নামে বরাদ্দ সার উত্তোলন না করেই কাগজে স্বাক্ষর নেওয়ার জন্য চেষ্টা করেন। আর সে ব্যবস্থা করে দেওয়ার জন্য টাকা চান উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা ছাইদুর।

ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সাধন কুমার গুহ মজুমদার বলেন, বিষয়টি নিয়ে উভয়কে শোকজ করা হয়েছে। আগামী তিন কার্য দিবসের মধ্যে নিজ নিজ পক্ষে লিখিত ভাবে জবাব দিতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Google Apps