শনিবার, ২৮ জানুয়ারি ২০২৩, ১৪ মাঘ ১৪২৯, ০৫ রজব ১৪৪৪ হিজিরী

খেলাধুলা

আর্জেন্টিনা-জার্মানির পর অঘটনের শিকার বেলজিয়ামও

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৭ নভেম্বর, ২০২২, ৯:০৮ পিএম | আপডেট : ১০:২৪ পিএম, ২৭ নভেম্বর, ২০২২

 
কাতার বিশ্বকাপ প্রথম সপ্তাহেই  টুর্নামেন্টের ইতিহাসের অন্যতম সেরা আসর হিসেবে নিজের স্থান পাকাপোক্ত করে ফেলেছে। ফুটবল বিশ্বকাপে জায়ান্ট টিমগুলোর সাথে ছোট দলগুলোর এমন চোখ রেখে লড়াই করতে আগে কখনো দেখা যায়নি।ইতিমধ্যে এই আসরে অঘটনের শিকার হয়েছে আর্জেন্টিনা-জার্মানির মতো দল। সেই তালিকায় নতুন করে নাম লিখিয়েছে ইউরোপ পরাশক্তি বেলজিয়াম। কাতারের আল থুমামা স্টেডিয়ামে ডি ব্রুইনা-হ্যাজার্ডদের ২-০ গোলে হারিয়ে ঐতিহাসিক এক জয় তুলে নিয়েছে মরক্কো।
 
শক্তিমত্তা,অভিজ্ঞতা ত বটেই পরিসংখ্যানের বিচারেও 'এফ' গ্রুপের এ লড়াইয়ে ফেভারিট হিসেবে মাঠে নেমেছিল বেলজিয়াম।বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বে কখনো আফ্রিকান দেশের বিপক্ষে হারেনি রবার্তো মার্টিনেজের দল।এমনকি প্রথম রাউন্ডে খেলা নিজেদের শেষ ৮ ম্যাচে ডি ব্রুইনা-হ্যাজার্ডরা ছিলেন অপরাজিত।
 
তবে এসব কাগুজে পরিসংখ্যানের মাঠে কোন ধরনের প্রতিফলন দেখা যায়নি।রক্ষণ আক্রমণের অসাধারণ মুন্সিয়ানায় কাতারে রুপকথা লিখেছে মরক্কো। নিজেদের প্রথম ম্যাচে গত আসরের রানার্স আপ ক্রোয়েশিয়াকে রুখে দিয়ে আসরে শুভসূচনা করেছ আরব দেশটি।আর এবার গতবারের সেমিফাইনালিস্ট বেলজিয়ামকে আধিপত্য দেখিয়ে হারানোর মাধামে ওয়ালিদ রেগরাগুইয়ের শিষ্যরা জানান দিল স্বপ্নটা এবার অনেক বড়।
 
তবে এদিন ম্যাচের প্রথমার্ধ দেখে এমন ফলাফলের অনুমান করা ছিল বেশ কঠিন।আল থুমামা স্টেডিয়ামের চলা ম্যাচটিতে প্রথমার্ধের বেশির ভাগ সময় বল দখলে রেখেছিল বেলজিয়ামই। ৭০ শতাংশ বল দখলে রেখে রেকর্ডও গড়ে ইউরোপীয় দেশটি। ১৯৬৬ বিশ্বকাপের পর আর কখনো ম্যাচের প্রথমার্ধে এত বেশি সময় বল নিজেদের নিয়ন্ত্রনে রাখতে পারেনি টুর্নামেন্টের অন্যতম ফেভারিট দলটি।
 
এ সময় এগিয়ে যাওয়ার বেশ কয়েকটি সুযোগও পেয়েছিল ডি ব্রুইনারা।বিশেষ করে ১৯তম মিনিটে  তমা মুনিয়ে নেওয়া শট একটু এদিক সেদিক হলেই লিড পায় বেলজিয়াম।সুযোগ এসেছিল মরক্কোর সামনেও।২৮ তম মিনিটে বেলজিয়াম ডি বক্সে নায়েফ আগুয়ের্দের হেড থেকে বল পেয়ে যান সেলিম আমাল্লাহ।তবে বেলজিয়াম বংশোদ্ভূত মরক্কোর এই মিডফিল্ডার শট ঠিকটাক নিতে পারেননি।
 
মরক্কো আরাও সুযোগ পায় ৩৫তম মিনিটে। ডান দিক দিয়ে ডি-বক্সে ঢুকে উড়িয়ে মেরে সেই সুযোগ হাতছাড়া করেন পিএসজির ডিফেন্ডার আশরাফ হাকিমি।
 
গোলশূন্য সমতায় শেষ হয় প্রথমার্ধ। বিরতির পর পাল্টে যায় ম্যাচের দৃশ্যপট। বলের ওপর নিয়ন্ত্রণ কমে বেলজিয়ামের, মরক্কো হয়ে ওঠে আরও আগ্রাসী। এর ফলাফলওআসে দ্রুত।৭৩ তম বদলি হিসেবে নামা ফরোয়ার্ড আবদেলহামিদ সাবিরি দারুণ এক ফ্রি কিক গোলে দলকে এগিয়ে দেন।
 
গোল হজমের পর এলোমেলো হয়ে যায় বেলজিয়াম।রক্ষণ মাঝমাঠ নজর না দিয়ে তারা গোল শোধের জন্য মরিয়া হয়ে ওঠে।আর এই সুযোগটি কাজে লাগিয়ে বেলজিয়ামের কফিনের শেষ পেরেক ঠুকে দেয় মরক্কো। ম্যাচের যোগ করার সময়ে ডান দিক দিয়ে বক্সে ঢুকে এক বেলজিয়াম ডিফেন্ডারকে পরাস্ত করে কাটব্যাক করেন জিয়াশ, সুবিধা জনক জায়গায় বলতে সহজে লক্ষ্যভেদ করেন আবুখলাল।২-০ গোলের লিড নিয়ে মরক্কো জয় তখন হয়ে ওঠে সময়ের ব্যাপার মাত্র।
 
এর ফলে দীর্ঘ দুই যুগ পর বিশ্বকাপে জয়ের স্বাদ পেল আফ্রিকার দেশটি। সবশেষ ১৯৯৮ সালের আসরে স্কটল্যান্ডকে হারিয়েছিল তারা।সব মিলিয়ে বিশ্ব আসরে এটি তাদের তৃতীয় জয়। ১৯৮৬ আসরে গ্রুপ পর্বে পর্তুগালকে হারিয়ে শেষ ষোলোয় উঠেছিল তারা, যা এখনও তাদের সেরা সাফল্য।
 
 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন