শুক্রবার, ২৬ জুলাই ২০২৪, ১১ শ্রাবন ১৪৩১, ১৯ মুহাররম ১৪৪৬ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

কাগজের উচ্চ মূল্যেও মেলায় বাড়ছে নতুন বই

রাহাদ উদ্দিন | প্রকাশের সময় : ১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩, ১২:০৫ এএম

চলতে চলতে ১৬ দিন পার করলো বাংলা একাডেমি আয়োজিত বাঙালির প্রাণের মেলা অমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০২৩। এ বছর কাগজের অস্বাভাবিক মূল্য বৃদ্ধিতে বিপাকে পড়েছে পাঠক, লেখক ও প্রকাশকরা। তবে থেমে নেই নতুন নতুন বইয়ের মোড়ক উন্মোচন। বাংলা একাডেমির জনসংযোগ উপবিভাগের তথ্য মতে মেলার প্রথম ১৫দিনে নতুন বই এসেছে ১৫৭৭টি। যা কাগজের স্বাভাবিক মূল্যে অনুষ্ঠিত ২০২২ সালের মেলায় একই সময়ে আগত বইয়ের তুলনায় একটু বেশি।

বাংলা একাডেমির সূত্র মতে ২০২২ সালে বইমেলার প্রথম ১৫দিনে মেলায় নতুন বই আসে ১৫৬৫ টি। যা কাগজের অস্বাভাবিক মূল্যের এ সময়ে অনুষ্ঠিত মেলায় আগত বইয়ের সংখ্যার চেয়ে একটু কম। এর আগে ২০২১ সালে একই সময়ে মেলায় নতুন বই আসে ১৭৭০ টি। তবে সে বছরের মেলার সাথে তুলনা হয় না ২৩ এর মেলার। ২০২১ সালে করোনা মহামারির কারণে মেলা অনেকটাই বিলম্বে ৩ মার্চ থেকে শুরু হয়। যা শেষ হয় ৪ এপ্রিল। সেবছর মেলা ছিল অনেকটাই অগোছালো। প্রকাশনা সংস্থাগুলো অনেক টাকা লোকসান গুণতে হয়েছে বলেও জানা যায়। তবে মহামারি ছাপিয়ে এ বছর পুরোনো আমেজে ফিরেছে বইমেলা। ১ ফেব্রæয়ারি থেকেই যথারীতি শুরু হয়েছে মেলা। চলবে ২৮ ফেব্রæয়ারি পর্যন্ত।

গত ১৫ দিনে মেলায় আগত বইয়ের তালিকায় শীর্ষে রয়েছে কবিতা। যার সংখ্যা ৪৬৮টি। এরপর রয়েছে যথাক্রমে উপন্যাস ২৫৬টি, গল্প ১৮০টি, প্রবন্ধ ৮৫টি, জীবনী ৬১টি, শিশুতোষ ৫৬টি, ইতিহাস ৪৫টি, মুক্তিযুদ্ধ ৩৭টি, ছড়া ২৭টি, বিজ্ঞান ২৬টি, সায়েন্স ফিকশন ২৪টি, গবেষণা ২২টি ও অন্যান্য বিষয়ে রচিত বই।
গতকাল বৃহস্পতিবার অমর একুশে বইমেলার ১৬তম দিনে মেলা নতুন বই এসেছে ৮৩টি। বিকেল ৪টায় বইমেলার মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় বাংলা ভাষা, সাহিত্য ও সংস্কৃতির বিকেন্দ্রীকরণ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ফরিদ আহমদ দুলাল। আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন মাহমুদ কামাল, নজিবুল ইসলাম এবং সাজ্জাদ আহসান। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন অনীক মাহমুদ।

আজ লেখক বলছি অনুষ্ঠানে নিজেদের নতুন বই নিয়ে আলোচনা করেন ইসরাইল খান, মাসুম রেজা, রিপন আহসান ঋতু এবং জুনান নাশিত। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে কবিতা পাঠ করেন আমিনুর রহমান সুলতান, আয়শা ঝর্না, শিহাব শাহরিয়ার, অংকিতা আহমেদ রুবি, ফরিদুজ্জামান। আবৃত্তি পরিবেশন করেন আবৃত্তিশিল্পী সৈয়দ শহীদুল ইসলাম, জেসমিন বন্যা, নূরুননবী শান্ত। এছাড়া ছিল সিরাজুল মোস্তফা-এর পরিচালনায় সাংস্কৃতিক সংগঠন ‘মাইজভাÐারী মরমী গোষ্ঠী’ এবং মোঃ আনোয়ার হোসেনের পরিচালনায় ‘আরশিনগর বাউল সংঘ’-এর পরিবেশনা। সংগীত পরিবেশন করেন ফরিদা পারভীন, সেলিম চৌধুরী, সাধিকা সৃজনী তানিয়া, শ্যামল কুমার পাল, সনৎ কুমার বিশ্বাস, মেহেরুন আশরাফ, বাবু সরকার এবং মো. আরিফুর রহমান। যন্ত্রাণুষঙ্গে ছিলেন চন্দন দত্ত (তবলা), রবিন্স চৌধুরী (কি-বোর্ড), গাজী আব্দুল হাকিম (বাঁশি), শেখ জালাল উদ্দীন (সেতার)।

এদিকে অমর একুশে গ্রন্থমেলার ১৪তম দিনে একটি বই নিষিদ্ধ করেছে বইমেলার জন্য গঠিত টাস্কফোর্স কমিটি। গত মঙ্গলবার বিকেলে প্রকাশনা সংস্থা ‘নালন্দা’র স্টল থেকে বইটি তুলে নেওয়া হয়েছে। বইটি লিখেছেন প্রবাশী লেখিকা জান্নাতুন নাঈম প্রীতি। ‘জন্ম ও যোনির ইতিহাস’ নামক বইটি বর্তমানে বিক্রি বন্ধ আছে।
এ বিষয়ে বইমেলার টাস্কফোর্সের সভাপতি অসীম কুমার দে গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, মেলায় বইটি বিক্রি ও প্রদর্শন না করার মৌখিক নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এই বইয়ে বইমেলার নীতিমালা পরিপন্থী নানা বিষয় উঠে এসেছে। এর মধ্যে রয়েছে ব্যক্তিগত আক্রমণ ও কয়েকজন পরিচিত ব্যক্তিকে নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য। প্রকাশনা প্রতিষ্ঠানটিও এ বিষয়ে একমত হয়েছে। তারা মেলায় এ বই বিক্রি ও প্রদর্শন করবে না বলে টাস্কফোর্সকে জানিয়েছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন