বুধবার, ২০ অক্টোবর ২০২১, ০৪ কার্তিক ১৪২৮, ১২ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

অভ্যন্তরীণ

ইউপি নির্বাচনে সহিংসতা : কেশবপুরে দুই মেম্বার প্রার্থীর বসতঘরসহ ৪ বাড়ি ভাঙচুর-লুটপাট নারীসহ আহত ১৫

প্রকাশের সময় : ৬ মার্চ, ২০১৬, ১২:০০ এএম

কেশবপুর (যশোর) উপজেলা সংবাদদাতা : মণিরামপুরে আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে শুক্রবার রাত ১টার দিকে সরকার সমর্থকদের হামলায় বিএনপির দুই মেম্বার প্রার্থীর বসতঘরসহ ৪টি বাড়িঘর ভাঙচুর ও লুটপাট করেছে। এ সময় দুর্বৃত্তদের হাতে উভয় পক্ষের কমপক্ষে ১৫ জন নারী-পুরুষ আহত হয়েছে। জানা গেছে, প্রথম ধাপে দলীয় ব্যানারে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে মণিরামপুর উপজেলায় ৩ মার্চ থেকে প্রতীকসহ প্রচারণা শুরু হয়। এরই অংশ হিসেবে শ্যামকুড় ইউনিয়নের আ.লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. মনিরুজ্জামান গত শুক্রবার বিকেলে তার ইউনিয়নে মোটরসাইকেল শোভাযাত্রা বের করে। সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে শোভাযাত্রাটি দক্ষিণ শ্যামকুড় এলাকার বিএনপি সমর্থিত মেম্বার প্রার্থী আকছেদ আলী গাজীর বাড়ির সামনে পৌঁছলে একদল দুর্বৃত্ত পেছন দিক থেকে অতর্কিতভাবে শোভাযাত্রার গাড়ি বহরে হামলা চালায় বলে আ.লীগ অভিযোগ করে। এ সময় ৩টি মোটরসাইকেল ভাঙচুরসহ রুবেল, লতিফ ও সজিব আহত হয়। এ ঘটনার জের ধরে রাত ১টার দিকে ৫০/৬০ জনের একদল দুর্বৃত্ত ২০/২৫টি মোটরসাইকেলযোগে মেম্বার প্রার্থী আকছেদ আলীর গাজীর বাড়িতে হামলা চালায়। সন্ত্রাসীরা বাড়ির ভেতর ঢুকে ৪টি বসতঘরের আসবাবপত্র, ফ্রিজ, টেলিভিশন, কম্পিউটার ভাঙচুর, সোনাদানা, নগদ টাকা লুটপাট শেষে দলীয় সংরক্ষিত মহিলা প্রার্থী শাহিদা বেগম, প্রতিবেশী জিয়াউর রহমান ও মাসুদুজ্জামানের বাড়ি ভাঙচুর করে। এ সময় বাধা দিতে যাওয়ায় সন্ত্রাসীদের হাতে অপরপক্ষের ফতেমা বেগম, মেম্বার আকছেদ আলী, সংরক্ষিত মহিলা মেম্বার শাহিদা বগেম, রবিউল ইসলাম, মফিজুর রহমান, মাসুদুজ্জামান, জিয়াউর রহমান, মোজাফফর হোসেন, আসমিনা খাতুন, জোহরা বেগম, খোদেজা বেগম আহত হয়। এ ব্যাপারে আ.লীগ সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. মনিরুজ্জামান জানান, আমরা শান্তিপূর্ণভাবে শোভাযাত্রা করছিলাম। শোভাযাত্রার গাড়ি বহরটি আকছেদ গাজীর বাড়ির সামনে পৌঁছালে বর্তমান চেয়ারম্যান ও উপজেলা বিএনপিসাধারণ সম্পাদক মশিয়ার রহমানের হুকুমে এ হামলা চালানো হয়। মেম্বার আকছেদ আলীর ছেলে রবিউল ইসলাম জানান, আ.লীগ নেতারা আমার পিতাকে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়াতে বলেছিল। তারপরও নির্বাচনে অংশ নেয়ায় আ.লীগের সন্ত্রাসীরা বাড়িতে হামলা, ভাঙচুর ও লুটপাট করেছে। আহতদের হাসপাতালে নেয়ার সময় বাধা দেয়া হয়েছে। তাদের ভয়ে গ্রামের কোনো লোক সহযোগিতা করতে আসেনি। বিএনপির নেতা কর্মীদের মধ্যে হামলা ও মামলা আতঙ্ক বিরাজ করছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন