ঢাকা, বুধবার, ০৫ আগস্ট ২০২০, ২১ শ্রাবণ ১৪২৭, ১৪ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

সারা বাংলার খবর

টাকা না পেয়ে শিক্ষার্থীকে জিম্মি করল চবি ছাত্রলীগের এক নেতা

চবি সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, ৩:১৭ পিএম

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) মোঃ সাজিক খাঁন নামের এক শিক্ষার্থীকে জিম্মি করে দুই লক্ষ টাকা চাঁদা দাবি করার অভিযোগ উঠেছে ছাত্রলীগের এক নেতার বিরুদ্ধে। আজ সকাল ১০টায় এ ঘটনা ঘটে। অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতা অনিক হোসেন সাব্বির চবি ছাত্রলীগের বিলুপ্ত কমিটির উপ-অর্থ বিষয়ক সম্পাদক ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ম্যানেজমেন্ট বিভাগের ২০১৪-১৫ সেশনের শিক্ষার্থী। সাব্বির আওমী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল ও চবি ছাত্রলীগের বিলুপ্ত কমিটির সহ-সভাপতি রেজাউল হক রুবেলের অনুসারী হিসেবে ক্যাম্পাসে পরিচিত। সূত্রে জানা যায়, জিম্মির শিকার সাজিক বিশ্ববিদ্যালয়ের বায়ো কেমিস্ট্রি বিভাগের ২০১৭-১৮ সেশনের শিক্ষার্থী। তার বাড়ি টাঙ্গাইল জেলার মির্জাপুর উপজেলায়। সে বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীক্ষার সময় ছাত্রলীগ নেতা সাব্বিরের সাথে দেড় লক্ষ টাকায় ভর্তি চুক্তি করে। পরবর্তীতে সাজিক বিজ্ঞান অনুষদের অধীনে ক ইউনিটে পরীক্ষা দিয়ে মেধাক্রমে ৮৭ তম হয়ে বায়ো কেমিস্ট্রি বিভাগে ভর্তি হয়। তবে সে ভর্তি পরীক্ষায় চান্স পাওয়ার পর সাব্বিরকে চুক্তির টাকা হিসেবে ৫০ হাজার টাকা দেয়। আর আজ ২৫ হাজার টাকা নিয়ে সাব্বিরের সাথে দেখা করেতে গেলে তাকে আটকে দেয় । এবং আরও দুই লক্ষ টাকা না দিলে মেরে ফেলবে বলে । চাঁদা দাবির বিষয়টি নিশ্চিত করে জিম্মি শিক্ষার্থীর মা জহুরা বেগম বলেন, বায়ো কেমিস্ট্রি বিষয় দিবে বলে দেড় লক্ষ টাকা চুক্তি করেছিল। তবে বিষয় এমনিতে আসছে তারপরও আমি তাঁদেরকে ৫০ হাজার টাকা দিয়েছি। আজ (বৃহস্পতিবার) আবার ২৫ হাজার টাকা নিয়ে গেছে আমার ছেলে আর আমি ওদেরকে বলেছি আমারে মাফ করে দাও বাজান! আমি গরিব মানুষ আমি আর টাকা পয়সা দিতে পারব না । ওরা এখন ফোন দিয়ে বলছে আরো ২ লক্ষ ২৫ হাজার টাকা না দিলে আপনার ছেলেকে পাবেন না আপনার ছেলেরে জানে মেরে ফেলব। এখন আমার ছেলেকে ওরা কোন ঘরে আটকে রেখেছে। এ বিষয়ে অভিযুক্ত অনিক হোসেন সাব্বিকে ফোন দিলে ফোন রিসিভ করে কথা না বলে কেটে দিয়ে ফোন বন্ধ করে রাখেন। বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কোন ভাবে কোন অন্যায়ের দায়ভার নেবে না জানিয়ে চবি ছাত্রলীগের বিলুপ্ত কমিটির সহ-সভাপতি রেজাউল হক রুবেল ইনকিলাবকে বলেন, যে বা যারা অন্যায় করবে তারা অন্যায়কারী তাদের বিরুদ্ধে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসন ব্যবস্থা নিবে এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর মোহাম্মদ আলী আজগর চৌধুরী বলেন, আমিও বিষয়টি শুনেছি এবং পুলিশ প্রশাসনকে জানিয়েছি তারা যথাযথ ব্যবস্থা নিবে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন