ঢাকা, শনিবার, ৩০ মে ২০২০, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ০৬ শাওয়াল ১৪৪১ হিজরী

অভ্যন্তরীণ

লালমোহনে সাপ আতঙ্কে ক্লিনিকের কার্যক্রম বন্ধ!

লালমোহন উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৭ এপ্রিল, ২০১৮, ১২:০০ এএম

ভোলার লালমোহনে বিষধর সাপ আতংকে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে একটি কমিউনিটি ক্লিনিকের সব ধরণের কার্যক্রম। প্রতিনিদিনেই সাপের উপদ্রব, এ কারণে বন্ধ করে দেয়া হয় উপজেলার পশ্চিম চর উমেদ ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ডের পাঙ্গাশিয়া কেরামতিয়া কমিউনিটি ক্লিনিকটির কার্যক্রম। গত দুই মাস ধরে ক্লিনিকটির ভেতরে ১০-১২ টি করে সাপ দেখা যায়। হঠাৎ গত রবিবার ক্লিনিকটির ভেতর দেড় শত সাপের দেখা মিলে। সে সময় উৎসুক জনতা সাপগুলো মেরে ফেলে। সেদিন সিমা নামের এক রোগীকেও সাপে দংশন করে। পরের দিন সোমবার ক্লিনিকের সিএইচসিপি মো. মাহাবুবুর রহমান বিষয়টি উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তাকে জানালে তিনি সাময়িক সময়ের জন্য সেবা নিতে আসা রোগীদের অন্য স্থানে সেবা প্রদান করতে বলেন এবং পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত ক্লিনিকের ভেতরের সকল কার্যক্রম বন্ধ রাখার নির্দেশ দেন। মঙ্গলবার দুপুরের দিকে ওই ক্লিনিকে অবারো ২৫ টি সাপের দেখা মিলে। এতে আতংক বিরাজ করছে ক্লিনিকের দায়িত্বপ্রাপ্ত সিএইচসিপি, সেবা নিতে আসা রোগী ও এলাকাবাসীর মাঝে।
সেবা নিতে আসা রোগী মো. আবু তাহের, মো. বেলাল হোসেন, পারভীন আক্তার জানান, আমরা সাপের ভয়ে ক্লিনিকে সেবা নিতে যেতে পারছি না। সেখানে প্রতিদিন বিষধর সাপ দেখা যায়।
ক্লিনিকের সিএইচসিপি মো: মাহাবুবুর রহমান বলেন, প্রতিদিন এখানে সাপ দেখা যায়। সে জন্য উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার নির্দেশে ক্লিনিকের ভেতরে সব ধরণের কার্যক্রম বন্ধ করে দিয়ে অন্য স্থানে সেবা প্রদান করা হচ্ছে।
উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আব্দুর রশিদ বলেন, ওই ক্লিনিকের সিএইচসিপি বিষয়টি আমাকে জানানোর পরে আমি বিষয়টি জেলা সিভিল সার্জনকে জানালে তিনি বলেছেন পার্শ্ববর্তী কাচারিতে রোগীদের সেবা দিতে। অন্যদিকে উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তার পরামর্শ অনুযায়ী ওই ক্লিনিকের ভেতরে কার্বোনিক এসিড দেয়া হয়েছে।

ছেলেকে রক্ষা করতে গিয়ে প্রাণ দিলো মা
চাটখিল (নোয়াখালী) উপজেলা সংবাদদাতা
চাটখিল পৌর সভার ছয়ানী টবগা গ্রামে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের হামলায় অঞ্জলী রানী ঘোষ (৪৫) নামের এক গৃহকর্তীর মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, বুধবার রাত ৯ টার দিকে ঘোষ বাড়ীতে অঞ্জলী রানী ঘোষের ছেলে আকাশ (২১) এর সাথে একই বাড়ির খোকনের মারামারির ঘটনা ঘটে। এ সময় অঞ্জলী রানী তার ছেলে আকাশকে প্রতিপক্ষের হামলা থেকে রক্ষা করতে এগিয়ে যায়। এক পর্যায়ে খোকন ও তার ভাই তপন প্রতিপক্ষ আকাশ ও তার মা অঞ্জলী রানীর ওপর হামলা চালায়। এতে ঘটনাস্থলে অঞ্জলী রানীর মৃত্যু ঘটে। পুলিশ রাতেই ঘটনাস্থলে পৌঁছে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য প্রেরণ করে। এ ব্যাপারে অঞ্জলী রানীর ঘোষের স্বামী নারায়ন চন্দ্র দেবনাথ বাদী হয়ে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছে। পুলিশ রাতেই খোকন ও তপনকে গ্রেফতার করেছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন