ঢাকা, সোমবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৮ আশ্বিন ১৪২৬, ২৩ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী

সারা বাংলার খবর

কবুতর পালন করে স্বাবলম্বী মীরসরাইয়ের সিরাজুল

মীরসরাই (চট্টগ্রাম) সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৩ এপ্রিল, ২০১৯, ১:০৯ পিএম

১০ বছর আগে শখের বশে একজোড়া কবুতর কিনে বাড়ীতে আনেন মীরসরাই উপজেলার জোরারগঞ্জ ইউনিয়নের মধ্যম সোনাপাহাড় গ্রামের মৃত নূরুল ইসলামের পুত্র সিরাজুল ইসলাম। কিছুদিন পালন করার পর ৫ জোড়া বাচ্চাও হয় সেই কবুতরের। বড় করে সেই কবুতর জোড়াগুলো বিক্রি করেন। তখন থেকেই মাথায় আসে বাণিজ্যিক ভাবে কবুতর পালন ও বিক্রি করা। এরপর আরও কিছু কবুতর কিনে বাড়ীর আঙ্গিনায় বাণিজ্যিকভাবে গড়ে তোলেন কবুতরের খামার। বর্তমানে ৫০ জোড়া কবুতর রয়েছে তার।
সিরাজুল ইসলাম জানান, ১০ বছর আগে ফেনীর ফাজিলপুর এলাকা থেকে একজোড়া কিং কবুতর ক্রয় করেন। এর থেকে ৫ জোড়া বিক্রি করে তার মাথায় আসে বাণিজ্যিকভাবে কবুতরের খামার করার। বাড়ির অন্যান্যদের সহযোগিতায় বাড়ীর আঙ্গিনায় গড়ে তোলেন সিরাজুল প্রিজন ফার্ম। বর্তমানে তার খামারে বিভিন্ন প্রজাতির দেশী বিদেশী কবুতর রয়েছে। এর মধ্যে ৪২ হাজার টাকা জোড়া মূল্যের ইয়োলো বোখরা, ১০ হাজার টাকা মূল্যের মডেনা বল্টু কিং, ম্যাগপাই ও আওল এবং ৬ হাজার টাকা মূল্যের বিউটি হুমার। আছে ৬ থেকে ২০ হাজার টাকা মূল্যের পাকিস্তানি বল্টু সিরাজি, কালো কিং, লাল কিং, হলুদ কিং, হোয়াইট কিং, সাটিং, শ্যালো, নানপারভিন, সিংহ ও হাইপিলার। ৬ হাজার টাকা মূল্যের অস্ট্রেলিয়ার কিং। ২ হাজার টাকা মূল্যের ভারতীয় বোম্বে ও লোটন এবং দেশী সোয়াচন্দন। ২০ হাজার টাকা খরচ করে এক জোড়া বিদেশি কবুতর পুষলে বছরে সব খরচ বাদ দিয়ে ৩০ হাজার টাকা লাভ থাকে। এক জোড়া কবুতর কমপক্ষে ৪ জোড়া বাচ্চা দেয়। প্রতি জোড়া বাচ্চার দাম ৩০০ টাকা থেকে শুরু করে ১ হাজার টাকা পর্যন্ত। কবুতরের খাবার বাবদ এক বছরে খরচ হয় ১৫শ’ থেকে ২ হাজার টাকা। অন্যান্য খরচ ৪ হাজার টাকার মতো। এ হিসাবে খরচ বাদ দিয়ে মাসে প্রায় ৩০ হাজার টাকার লাভ থাকে। এভাবেই ৪ বছর খামারে উৎপাদিত বাচ্চা ও কবুতর বিক্রি করে উল্লেখযোগ্য আর্থিক পরিবর্তন আনতে পেরেছেন।
সিরাজুল ইসলাম আরও জানান, বর্তমানে নোয়াখালী, ফেনী ও ঢাকা থেকে বিভিন্ন প্রজাতির কবুতর ক্রয় করে জোরারগঞ্জ পোষ্ট অফিসের সামনে প্রতিদিন বিক্রি করছি। পাশাপাশি খামারে উৎপাদিত বিদেশী জাতের কবুতরের বাচ্চা বিক্রি করছি।
ব্যবসায়ী মো: শামীম জানান, সিরাজুল ইসলাম কবুতর বিক্রি করে স্বাবলম্ভী হচ্ছে। নিজেই সুন্দরভাবে সংসার চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করছেন।
এ ব্যাপারে মীরসরাই উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. শ্যামল চন্দ্র পোদ্দার জানান, সিরাজুল ইসলাম দেশি বিদেশী বিভিন্ন জাতের কবুতর পালন করে আজ স্বাবলম্বী হয়েছেন। সিরাজুল কবুতরের সমস্যা নিয়ে আসলে তাকে সঠিক পরামর্শ দেয়া হবে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন