মঙ্গলবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২১, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০২ জামাদিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিজরী

স্বাস্থ্য

বার বার মুখের আলসার

| প্রকাশের সময় : ২১ মে, ২০২১, ১২:০৪ এএম

মানসিক চাপ ও দুশ্চিন্তার কারণে মুখে আলসার বারবার দেখা দিতে পারে। এছাড়া দুর্বল রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থার কারণেও মুখের আলসার প্রায়শই লক্ষ্য করা যায়। হারপিস ভাইরাস বছরের পর বছর শরীরে থাকতে পারে। এ ভাইরাস মুখের আলসার হিসেবে দেখা যায় যখন ভাইরাসটি উদ্দীপনা পায়। জ্বরজনিত কারণে, হরমোনের পরিবর্তন, স্ট্রেস ও সূর্যের আলোতে হারপিস ভাইরাস উদ্দীপিত হয়ে থাকে।

ভিটামিন ‘বি’-এর অভাব হলে মুখে জ্বালাপোড়া ভাব অনুভূত হতে পারে। খাবার গলধাকরণের সময়ও মাঝে মাঝে সমস্যা হতে পারে। গালের ভিতর মিউকাস মেমব্রেন ফ্যাকাসে দেখায়। ভিটামিন ‘বি’-এর অভাবের কারণে রক্তস্বল্পতা দেখা দিতে পারে। মারাত্মক ধরনের ভিটামিন বি১২ বা কোবালমিনের অভাব হলে স্নায়ুগত সমস্যা যেমন তাপভাব দেখা দিতে পারে। মারাত্মক ধরনের ভিটামিন ‘বি’-এর অভাব হলে এট্রপিক গøসাইটিস হতে পারে। এট্রপিক গ্লসাইটিসের ক্ষেত্রে জিহবার টেস্ট বাড-এর ডিজেনারেশন হয়ে থাকে। ফলে জিহবার স্বাদ ঠিকভাবে পাওয়া যায় না।

ক্রনস ডিজিজের ক্ষেত্রে মানবদেহে অন্ত্রের বা গাঁটের গ্রদাহ দেখা দেয়। এর ফলে পাকস্থলী ও মুখে আলসার দেখা যায়। গ্লুটেন জাতীয় প্রোটিনের ইনটলারেন্সের কারণে সিলিয়াক ডিজিজ হয়ে থাকে। গ্লুটেন গম, রাই এবং বার্লিতে পাওয়া যায়। সিলিয়াক ডিজিজের ক্ষেত্রে ক্ষুদ্রান্তে প্রদাহ দেখা দেয়। বয়স্কদের ক্ষেত্রে সিলিয়াক ডিজিজে মুখে আলসার দেখা যায়। হরমোনের পরিবর্তনের কারণে মেয়েদের মাসিকের সময় মুখের আলসার দেখা যেতে পারে, আবার মাসিক বন্ধ হয়ে গেলেও মনোপজের সময় আলসার হতে পারে।

সাধারণ কারণগুলোর মধ্যে অতিরিক্ত সময় টুথব্রাশের কারণে বা শক্ত টুথব্রাশের কারণে বারবার মুখে আলসার হতে পারে। শক্ত খাবার চিবানোর কারণেও মুখে আলসার হতে পারে। আলসারেটিভ কোলাইটিস রোগীদে ক্ষেত্রেও মাঝে মাঝে মুখে আলসার দেখা যেতে পারে। তবে আলসারেটিভ কোলাইটিস রোগীদের চেয়ে ক্রনস ডিজিজের রোগীদের মুখের আলসার বেশি দেখা যায়। কারণ আলসারেটিভ কোলাইটিস রোগটি কোলনে অর্থাৎ বৃহদন্ত্রে সীমাবদ্ধ থাকে। আর ক্রনস ডিজিজের ক্ষেত্রে পরিপাকতন্ত্রের মুখ, পাকস্থলী, অন্ত্র এবং পায়ুপথসহ যে কোনো অংশ আক্রান্ত হতে পারে। শুধু ভুল মাউথওয়াস ব্যবহারের কারণেও মুখে বারবার আলসার হতে পারে। আপনার মাউথওয়াস প্রয়োজন আছে কিনা বা প্রয়োজন থাকলে কোনটি আপনার জন্য প্রযোজ্য তা অবশ্যই জেনে নিতে হবে।

ডা. মো. ফারুক হোসেন
মুখ ও দন্তরোগ বিশেষজ্ঞ
মোবাইল : ০১৮১৭-৫২১৮৯৭
ই-মেইল : dr.faruqu@gmail.com

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন